নারায়ণগঞ্জ ১২:৩২ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মাওলানা আব্দুল আউয়ালের বিরুদ্ধে ভাংচুর মামলার স্বাক্ষ্য গহন

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:২৫:৪২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৭
  • ৩৫ বার পড়া হয়েছে

২০১১ সালে ডিআইটি ২নং রেলগেইট এলাকায় হরতাল চলাকালে পুলিশের কর্তব্যরত কাজে বাধা প্রদান ও ভাংচুর মামলায় মাওলানা আব্দুল আউয়ালসহ ৩৬ জন আসামীর বিরুদ্ধে স্বাক্ষ্য গ্রহন করা হয়েছে। স্বাক্ষ্য গ্রহনকালে এ মামলার ৩৬ জন আসামীর মধ্যে ১৯ জন আসামী আদালতে উপস্থিত ছিলেন। সোমবার (৪ ডিসেম্বর) দুপুরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তৃতীয় মাহমুদুল মহসিন এর আদালতে স্বাক্ষ্য গ্রহন করা হয়।

আসামী পক্ষের আইনজীবী এড. আব্দুল হামিদ খান ভাষানী বলেন, ডিআইটি মসজিদের খতিবের উপর আনিত মামলাটি সম্পূর্ন মিথ্যা ও উদ্দেশ্যে প্রনোধিত। তিনি ঘটনার সময় ওই স্থানেই উপস্থিত ছিলেন না। তিনি একজন মাওলানা তিনি ন্যায়ের কথা বলেন কিন্তু প্রশাসন তাকে শুধু শুধু হয়রানি করার জন্য এ মিথ্যা মামলাটি দায়ের করছেন। আশাকরি এ মামলা থেকে ন্যায় বিচার পাব।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালে নারী পুরুষ সমান অধিকার আইনের বিরুদ্ধে ইসলামী আইন বাস্তবায়ন কমিটি ডাকা হরতালে নারায়নগঞ্জ ২নং রেলগেইট এবং চাষাড়ায় গাড়ি ভাংচুর ও পুলিশের কর্তব্যরত কাজে বাধা প্রদান করা ঘটনায় সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় ডি আই টি মসজিদের খতিব মাওলানা আব্দুল আউয়ালকে প্রধান আসামী করে ৩৬ জনের রিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

মাওলানা আব্দুল আউয়ালের বিরুদ্ধে ভাংচুর মামলার স্বাক্ষ্য গহন

আপডেট সময় : ০৮:২৫:৪২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৭

২০১১ সালে ডিআইটি ২নং রেলগেইট এলাকায় হরতাল চলাকালে পুলিশের কর্তব্যরত কাজে বাধা প্রদান ও ভাংচুর মামলায় মাওলানা আব্দুল আউয়ালসহ ৩৬ জন আসামীর বিরুদ্ধে স্বাক্ষ্য গ্রহন করা হয়েছে। স্বাক্ষ্য গ্রহনকালে এ মামলার ৩৬ জন আসামীর মধ্যে ১৯ জন আসামী আদালতে উপস্থিত ছিলেন। সোমবার (৪ ডিসেম্বর) দুপুরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তৃতীয় মাহমুদুল মহসিন এর আদালতে স্বাক্ষ্য গ্রহন করা হয়।

আসামী পক্ষের আইনজীবী এড. আব্দুল হামিদ খান ভাষানী বলেন, ডিআইটি মসজিদের খতিবের উপর আনিত মামলাটি সম্পূর্ন মিথ্যা ও উদ্দেশ্যে প্রনোধিত। তিনি ঘটনার সময় ওই স্থানেই উপস্থিত ছিলেন না। তিনি একজন মাওলানা তিনি ন্যায়ের কথা বলেন কিন্তু প্রশাসন তাকে শুধু শুধু হয়রানি করার জন্য এ মিথ্যা মামলাটি দায়ের করছেন। আশাকরি এ মামলা থেকে ন্যায় বিচার পাব।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালে নারী পুরুষ সমান অধিকার আইনের বিরুদ্ধে ইসলামী আইন বাস্তবায়ন কমিটি ডাকা হরতালে নারায়নগঞ্জ ২নং রেলগেইট এবং চাষাড়ায় গাড়ি ভাংচুর ও পুলিশের কর্তব্যরত কাজে বাধা প্রদান করা ঘটনায় সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় ডি আই টি মসজিদের খতিব মাওলানা আব্দুল আউয়ালকে প্রধান আসামী করে ৩৬ জনের রিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।