সোনারগাঁও মাসব্যাপী লোককারুশিল্প মেলার শুভ উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক, মো: আক্তার হোসেন :   নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন চত্বরে মাসব্যাপী লোককারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে।

সোমবার(১ মার্চ) বিকেলে লোকজ মঞ্চে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী, কে এম খালিদ এম পি এ উৎসবের উদ্বোধন করেন।

ফাউন্ডেশনের পরিচালক ড. আহমেদ উল্লাহ্‌ সভাপতিত্বে সম্মানীয় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ -৩ (সোনারগাঁ) আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা ও
সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সচিব,মোঃ বদরুল আরেফিন,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ, জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ) সার্কেল শেখ বিল্লাল হোসেন, সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আতিকুল ইসলাম,সহকারী কমিশনার (ভূমি)গোলাম মোস্তাফা মুন্না, সোনারগাঁ থানা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট শামসুল ইসলাম ভূঁইয়া থানা অফিসার ইনচার্জ রফিকুলইসলাম,

জাতীয় সঙ্গীত ও মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে এ অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নেন বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী মামুন ও লালন পাঠশালার ক্ষুদে শিল্পীরা।

আবহমান গ্রাম বাংলার বিলুপ্ত প্রায় লোকজ ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে বর্তমান প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ঐতিহাসিক সোনারগাঁয়ে এই উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে।

বাংলাদেশের হারিয়ে যাওয়া লোক সংস্কৃতি ও লোক কারুশিল্পের নিদর্শন সমূহের সংগ্রহ, সংরক্ষণ, প্রদর্শন ও পুনরুজ্জীবনের লক্ষে বাংলার প্রাচীন রাজধানী সোনারগাঁয়ে এক বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে এ লোকজ উৎসব।

উৎসব উপলক্ষে কারুশিল্প ফাউন্ডেশনকে সাজানো হয়েছে বর্ণিল সাজে।

ফাউন্ডেশনের বিভিন্ন স্থানে রংবেরঙের ব্যানারে শোভা পাচ্ছে বিভিন্ন লোকজ প্রবাদ প্রবচন ও খনার বচন।

উৎসবে কর্মরত কারুশিল্পীদের মধ্যে এবার স্থান পেয়েছে চট্টগ্রামের তাল পাতার পাখা শিল্প, সোনারগাঁয়ের কাঠ খোদাই শিল্প, রংপুরের শতরঞ্জি, মানিকগঞ্জের বাঁশের কাজ, রাজশাহীর শখের হাড়ি, মাগুরার শোলা শিল্প, সোনারগাঁওয়ের নকশিকাঁথা শিল্প, রাঙামাটি ও বান্দরবানের উপজাতীয় বস্ত্র শিল্প, ঢাকার ঝিনুক শিল্প, মুখোশ, কারুশিল্প, পটচিত্র শিল্প ও তামা কাসার শিল্প।

মেলার লোকজ মঞ্চে প্রতিদিন পরিবেশিত হবে বিভিন্ন লোকজ অনুষ্ঠান। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা লোকশিল্পীরা এখানে গান পরিবেশন করবেন। এসব পরিবেশনার মধ্যে রয়েছে, বাউলগান, পালাগান, কবি গান, ভাওয়াইয়া ও ভাটিয়ালী গান, জারিগান, সারিগান, হাছন রাজার গান, লালন সংগীত, মাইজভান্ডারীর গান, মুর্শিদী গান, আলকাপ গান, গায়ে হলুদের গান, উপজাতীয়দের অনুষ্ঠান, শরিফতী-মারফতি গান, লোকজ কবিতা, ছড়া পাঠের আসর, পুঁথি পাঠের আসর ও লোকজ নাটক।

ফাউন্ডেশন”র” উপ পরিচালক রবিউল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, এবারের লোকজ মেলায় প্রায় ১০০ টি স্টল স্থান পেয়েছে এর মধ্য ২৪ টি কারুশিল্প । এগুলোর মধ্যে হস্তশিল্প, মৃৎশিল্প, বিভিন্ন তৈজসপত্র, তাঁতবস্ত্র, দা কাচি, খাবারের স্টল, মুড়ি-মুড়কিসহ বিভিন্ন মিষ্টান্ন দ্রব্যের স্টল রয়েছে।

মাসব্যাপী এ লোকজ উৎসব চলবে আগামী ৩০মার্চ পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য মেলা প্রাঙ্গণ খোলা থাকবে।