নারায়ণগঞ্জ ০৬:১০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কিশোর গ্যাং প্রধান তুহিন বন্দুক যুদ্ধে নিহত

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:০০:৩৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯
  • ৭২ বার পড়া হয়েছে

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জে কিশোর গ্যাং প্রধান হত্যাসহ একাধিক মামলার আসামী শীর্ষ সন্ত্রাসী সাইফুল ইসলাম তুহিন(২০) র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছে। বুধবার ভোর রাতে শহরের সৈয়দপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশী পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

নিগত তুমিন দেওভোগ শন্তিনগর এলাকার কাওসার হোসেনের ছেলে। সে চাপাতি তুহিন হিসেবে পরিচিত। তার বিরুদ্ধে হত্যা,চাঁদাবাজিসহ ৪ টি মামলা রয়েছে বলে র‌্যাব জানায়।

র‌্যাব-১১ সিপিসি ইনচার্জ এএসপি মোস্তাফিজুর রহমান জানান,মঙ্গলবার রাতে কুমিল্লার দেবিদ্বার থানা এলাকা থেকে তুহিনকে আটক করা হয়। পরে তার দেয়া তথ্যমতে বুধবার গভীর রাতে সৈয়দপুর এলাকায় অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার করতে যায় র‌্যাব। তখন আগে থেকেই ওৎপেতে থাকা তুহিনের সহযোগীরা র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ করে গুলি ছোড়ে। আতœরক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলি করে। এসময় তুহিন গুলিবিদ্ধ হয়। তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে শহরের জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্মরত ডাক্তার মৃত ঘোষনা করেন।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

কিশোর গ্যাং প্রধান তুহিন বন্দুক যুদ্ধে নিহত

আপডেট সময় : ০৯:০০:৩৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জে কিশোর গ্যাং প্রধান হত্যাসহ একাধিক মামলার আসামী শীর্ষ সন্ত্রাসী সাইফুল ইসলাম তুহিন(২০) র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছে। বুধবার ভোর রাতে শহরের সৈয়দপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশী পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

নিগত তুমিন দেওভোগ শন্তিনগর এলাকার কাওসার হোসেনের ছেলে। সে চাপাতি তুহিন হিসেবে পরিচিত। তার বিরুদ্ধে হত্যা,চাঁদাবাজিসহ ৪ টি মামলা রয়েছে বলে র‌্যাব জানায়।

র‌্যাব-১১ সিপিসি ইনচার্জ এএসপি মোস্তাফিজুর রহমান জানান,মঙ্গলবার রাতে কুমিল্লার দেবিদ্বার থানা এলাকা থেকে তুহিনকে আটক করা হয়। পরে তার দেয়া তথ্যমতে বুধবার গভীর রাতে সৈয়দপুর এলাকায় অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার করতে যায় র‌্যাব। তখন আগে থেকেই ওৎপেতে থাকা তুহিনের সহযোগীরা র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ করে গুলি ছোড়ে। আতœরক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলি করে। এসময় তুহিন গুলিবিদ্ধ হয়। তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে শহরের জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্মরত ডাক্তার মৃত ঘোষনা করেন।