নারায়ণগঞ্জ ০১:৩৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন ২০ গ্রাহকের বিরুদ্ধে মামলা ডিপিডিসি’র

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:২৭:৪৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩০ জুলাই ২০১৯
  • ২০ বার পড়া হয়েছে

ষ্টার্ফ রির্পোটার ঃ
নারায়ণগঞ্জ এনওসিএস শিতলক্ষা ডিপিডিসির ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন ও ২০ গ্রাহকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।
সোমবার (২৯ জুলাই) সকাল ১০ টায় স্পেশাল মেট্রোপলিটন মেজিষ্ট্রেট সাবিনা ইয়াসমিনের নেতৃত্বে প্রধান প্রকৌশলি দেওয়ান আবুল কালম আজাদের নির্দেশনায় নিবার্হী প্রকৌশলি আব্দুল মজিদ ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করে। শহরের ১৬ নং ওয়ার্ডের নলুয়া পাড়া, সৈয়দপুর, চর সৈয়দপুর, কাশিপুর, পশ্চিম নগর, দেওভোগ মাদ্রাসা রোডে ৩টি অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন ও ৩৫ টি গ্রাহকের মধ্যে ২০ টি গ্রাহকের ৬২ লক্ষ ৩৫ হাজার টাকা বকেয়ার মামলা দায়েরসহ তার মালামাল জব্দ করে। অবৈধ সংযোগকারি সদর থানার সৈয়দপুর এলাকার আবুল খালেক সরদারের পুত্র হানিফ সরদার, ফতুল্লা থানার কাশিপুর এলাকার মনির হোসেনের পুত্র জাহাঙ্গীর হোসেন, একই থানার দেওভোগ পশ্চিম নগরের মৃত আব্দুল জলিলের পুত্র খোদা বক্স।
এব্যাপারে প্রধান নিবার্হী প্রকৌশলি দেওয়ান আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমরা চাই দেশের মানুষ এই বিদ্যুৎ যথাযথভাবে ব্যবহার করবেন। বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে অনেক টাকা খরচ হয় এবং যে পরিমান টাকা খরচ হয় সেই টাকা বিদ্যুতের দাম সরকার গ্রহণ করে না। এখানে সরকার ভর্তুকি দেয়। সেক্ষেত্রে বলতে চাই চোরাই বিদ্যুৎ ব্যাবহার না করে বৈধ বিদ্যুৎ ব্যাবহার করে দেশ উন্নয়নে শরিক হউন। তিনি আরো বলেন, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ডিপিডিসির নির্র্দেশনা পালন করতে গিয়ে আমরা সফলতা পেয়েছি। আগামী ২০১৯-২০ অর্র্থ বছরে দক্ষিনের দপ্তরকে জিরো ট্র্রলারে রাখার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। এজন্য তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন ২০ গ্রাহকের বিরুদ্ধে মামলা ডিপিডিসি’র

আপডেট সময় : ০৪:২৭:৪৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩০ জুলাই ২০১৯

ষ্টার্ফ রির্পোটার ঃ
নারায়ণগঞ্জ এনওসিএস শিতলক্ষা ডিপিডিসির ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন ও ২০ গ্রাহকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।
সোমবার (২৯ জুলাই) সকাল ১০ টায় স্পেশাল মেট্রোপলিটন মেজিষ্ট্রেট সাবিনা ইয়াসমিনের নেতৃত্বে প্রধান প্রকৌশলি দেওয়ান আবুল কালম আজাদের নির্দেশনায় নিবার্হী প্রকৌশলি আব্দুল মজিদ ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করে। শহরের ১৬ নং ওয়ার্ডের নলুয়া পাড়া, সৈয়দপুর, চর সৈয়দপুর, কাশিপুর, পশ্চিম নগর, দেওভোগ মাদ্রাসা রোডে ৩টি অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন ও ৩৫ টি গ্রাহকের মধ্যে ২০ টি গ্রাহকের ৬২ লক্ষ ৩৫ হাজার টাকা বকেয়ার মামলা দায়েরসহ তার মালামাল জব্দ করে। অবৈধ সংযোগকারি সদর থানার সৈয়দপুর এলাকার আবুল খালেক সরদারের পুত্র হানিফ সরদার, ফতুল্লা থানার কাশিপুর এলাকার মনির হোসেনের পুত্র জাহাঙ্গীর হোসেন, একই থানার দেওভোগ পশ্চিম নগরের মৃত আব্দুল জলিলের পুত্র খোদা বক্স।
এব্যাপারে প্রধান নিবার্হী প্রকৌশলি দেওয়ান আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমরা চাই দেশের মানুষ এই বিদ্যুৎ যথাযথভাবে ব্যবহার করবেন। বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে অনেক টাকা খরচ হয় এবং যে পরিমান টাকা খরচ হয় সেই টাকা বিদ্যুতের দাম সরকার গ্রহণ করে না। এখানে সরকার ভর্তুকি দেয়। সেক্ষেত্রে বলতে চাই চোরাই বিদ্যুৎ ব্যাবহার না করে বৈধ বিদ্যুৎ ব্যাবহার করে দেশ উন্নয়নে শরিক হউন। তিনি আরো বলেন, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ডিপিডিসির নির্র্দেশনা পালন করতে গিয়ে আমরা সফলতা পেয়েছি। আগামী ২০১৯-২০ অর্র্থ বছরে দক্ষিনের দপ্তরকে জিরো ট্র্রলারে রাখার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। এজন্য তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।