নারায়ণগঞ্জ ০৬:২২ অপরাহ্ন, শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২২ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত আদমজী ইপিজেডকে অশান্ত করছে জনপ্রতিনিধিরা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে মহিলা লীগ নেত্রীর শুভেচ্ছা বিনিময় না’গঞ্জ কারাগারে হাজতীর মৃত্যু ফতুল্লায় চোরাইকৃত ট্যাংকলড়ী উদ্ধার আড়াইহাজারের মিথিলা টেক্সটাইল ঘুরে গেলেন ৮ দেশের রাষ্ট্রদূতসহ ১৮ দেশের প্রতিনিধি সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে কাউন্সিলর ইকবাল হোসেনের মতবিনিময় ফতুল্লা ব্লাড ডোনার্সের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ শিক্ষা সিলেবাস বাতিলের দাবিতে খেলাফত মজলিসের বিক্ষোভ মিছিল সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শহরে নারী সমাবেশ ও মিছিল

বড়ভাইকে স্মরণ করতে গিয়ে কাঁদলেন সাজনু

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:২৩:২৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৭
  • ৬৭ বার পড়া হয়েছে

বড়ভাই গোলাম সারোয়ার’র কথা সর্ম্পকে বক্তব্যে রাখতে গিয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে গেলেন শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু। এসময় তাঁর চোখে কয়েক ফোঁটা জলও গড়িয়ে পড়ে। নারায়ণগঞ্জ শহর আওয়ামীলীগের প্রয়াত সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন গোলাম সারোয়ার ব্যক্তিজীবনে রাজনীতির পাশাপাশি মানুষের কল্যানে কাজ করেছেন যার কারনেই মানুষের অন্তুরে স্থান পান এই বর্ষিয়ান নেতা। বেশকিছুদিন যাবত নগরীর বিভিন্ন স্থানে সেই বর্ষিয়ান নেতার স্মরনে অরাজনৈকিক সংগঠন ‘ক্যান্টিন’ এর উদ্যোগে শীর্তাত্যদের কম্বল বিতরণ করা হয়।

তারাই ধারাবাহিকতায় সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) বিকালে নগরীর খানপুর এলাকায় পোলষ্টার ক্লাবের ব্যবস্থাপনায় শীতবস্ত্র বিতরণ কালে বক্তব্যে রাখতে গিয়ে আবেগে আপ্লুত হোন সাজনু। এ সময়ে এক হৃদয় বিদারক ঘটনার সৃষ্টি হয়।

শাহাদাৎ হোসেন সাজনু তার বক্তব্যে বলেন, রাজনীতিটা মানুষের জন্য। মানুষের পাশে না দাড়াতে পারলে রাজনীতি করার কোন মূল্য নেই। চেষ্টা করি মানুষের পাশে থেকে মানুষের সেবা করতে।

তিনি তার বড়ভাই প্রয়াত গোলাম সারোয়ারের কথা স্মরণ করে বলেন, আমি কবরস্থানে যাই না তার কারন আমি যখন কবরস্থানে গিয়ে ফিরে আসতে যাই আমার মনে হয় আমার ভাই আমাকে পিছন থেকে ডাকে। কোন পোষ্টার দেখলে মুখ গুড়িয়ে নেই, কারন পোষ্টার দেখলে আর ঠিক থাকতে পারি না।

খানপুর ব্যাংককলনী এলাকা এবং পোলস্টার ক্লাবে প্রায় ৫শতাধীক কম্বল বিতরণ করা হয়।

পোলষ্টার ক্লাবের সভাপতি লোকমান আহম্মেদের সভাপতিত্বে এ সময়ে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য সামসুজ্জামান ভাষানী, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন। সার্বিক সহযোগীতায় ছিলেন রিয়েল, রোমান, স্বপন, মনির হোসেন, দ্বীপ, বাবু, দূর্জয়, পরশ, নির্জন প্রমুখ।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত

বড়ভাইকে স্মরণ করতে গিয়ে কাঁদলেন সাজনু

আপডেট সময় : ০৫:২৩:২৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৭

বড়ভাই গোলাম সারোয়ার’র কথা সর্ম্পকে বক্তব্যে রাখতে গিয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে গেলেন শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু। এসময় তাঁর চোখে কয়েক ফোঁটা জলও গড়িয়ে পড়ে। নারায়ণগঞ্জ শহর আওয়ামীলীগের প্রয়াত সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন গোলাম সারোয়ার ব্যক্তিজীবনে রাজনীতির পাশাপাশি মানুষের কল্যানে কাজ করেছেন যার কারনেই মানুষের অন্তুরে স্থান পান এই বর্ষিয়ান নেতা। বেশকিছুদিন যাবত নগরীর বিভিন্ন স্থানে সেই বর্ষিয়ান নেতার স্মরনে অরাজনৈকিক সংগঠন ‘ক্যান্টিন’ এর উদ্যোগে শীর্তাত্যদের কম্বল বিতরণ করা হয়।

তারাই ধারাবাহিকতায় সোমবার (২৫ ডিসেম্বর) বিকালে নগরীর খানপুর এলাকায় পোলষ্টার ক্লাবের ব্যবস্থাপনায় শীতবস্ত্র বিতরণ কালে বক্তব্যে রাখতে গিয়ে আবেগে আপ্লুত হোন সাজনু। এ সময়ে এক হৃদয় বিদারক ঘটনার সৃষ্টি হয়।

শাহাদাৎ হোসেন সাজনু তার বক্তব্যে বলেন, রাজনীতিটা মানুষের জন্য। মানুষের পাশে না দাড়াতে পারলে রাজনীতি করার কোন মূল্য নেই। চেষ্টা করি মানুষের পাশে থেকে মানুষের সেবা করতে।

তিনি তার বড়ভাই প্রয়াত গোলাম সারোয়ারের কথা স্মরণ করে বলেন, আমি কবরস্থানে যাই না তার কারন আমি যখন কবরস্থানে গিয়ে ফিরে আসতে যাই আমার মনে হয় আমার ভাই আমাকে পিছন থেকে ডাকে। কোন পোষ্টার দেখলে মুখ গুড়িয়ে নেই, কারন পোষ্টার দেখলে আর ঠিক থাকতে পারি না।

খানপুর ব্যাংককলনী এলাকা এবং পোলস্টার ক্লাবে প্রায় ৫শতাধীক কম্বল বিতরণ করা হয়।

পোলষ্টার ক্লাবের সভাপতি লোকমান আহম্মেদের সভাপতিত্বে এ সময়ে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য সামসুজ্জামান ভাষানী, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন। সার্বিক সহযোগীতায় ছিলেন রিয়েল, রোমান, স্বপন, মনির হোসেন, দ্বীপ, বাবু, দূর্জয়, পরশ, নির্জন প্রমুখ।