নারায়ণগঞ্জ ০৯:০৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
সোনারগাঁওয়ে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত সিদ্ধিরগঞ্জে ৪টি কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হারামের পয়সা ব্যারামে খায় ,আমি হারাম খাই না খেতেও দেই না-সেলিম ওসমান ভূমি সম্পর্কিত সমস্যা থাকলে গণশুনানিতে আসার আহবান- না.গঞ্জে জেলা  প্রশাসক সিদ্ধিরগঞ্জে গ্যাসের দাবিতে ঢাকা-চটগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ সোনারগাঁওয়ে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২৪ অনুষ্ঠিত র‌্যাব পরিচয়ে ৫২ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় গ্রেফতার-৪ সিদ্ধিরগঞ্জে কাতার প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতি চিকিৎসার নামে কোনো প্রকার হয়রানি মেনে নেওয়া হবে না ঃ স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিকের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় গর্ভবতীর পোশাক শ্রমিক নিহত

নগরীর ফাঁকা ফুটপাথে স্বস্তি, অবৈধ পার্কিংয়ে বিড়ম্বনা

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৪৯:১৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৭
  • ১৫৯ বার পড়া হয়েছে

প্রশাসনের সক্রীয় ভূমিকায় হকার বিহীন শহরের ফুটপাথ। ফাঁকা ফুটপাথে স্বাচ্ছন্দে চলাচল করছে পথচারীরা। কোন প্রকার ভীড় কিংবা ধাক্কাধাক্কি নেই। এ যেন ভিন্ন এক শহর। এ নিয়ে স্বস্তি প্রকাশ করছে পথচারীরা। তবে ফাকাঁ ফুটপাথেও বিড়ম্ভবনা সৃষ্টি করছে অবৈধ পার্কিং।

সরেজমিনে দেখা যায় সোমবার দুপুর থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত নগরীর বঙ্গবন্ধু সড়কসহ প্রধান সড়কের ফুটপাথ ছিল একেবারেই ফাঁকা। কোন হকারের ডাকহাঁক নেই। নেই কোন ভীড়। পথচারীদের চেহারায়ও নেই বিরক্তির ছাপ। স্বাচ্ছন্দে নিজ নিজ গন্তব্যে ছুটে চলছে সকলেই।

তবে হকারবিহীন ফুটপাথেও অবৈধ পার্কিং সৃষ্টি করছে বিড়ম্বনা। শহরজুড়েই ফুটপাথও মূল সড়ক ছিল মোটর সাইকেল ও ব্যাক্তিগত গাড়ীর দখলে। বড় বড় সব বিপনীবিতান, ডায়গনষ্টিক সেন্টারসহ গুরত্বপূর্ণ ভবনগুলোর নিজস্ব পার্কিং না সেগুলোর সামনের সড়ক দখলে নিয়েছে এসব অবৈধ যানবাহন। ফলে হকার না থাকলেও পথচারীদের চলাচলে কিছুটা বাধার সৃষ্টি করছে ফুটাপাথে থাকা মোটর সাইকেল আর মূল সড়কে সৃষ্টি করছে যানজট।

চাষাড়া পপুলার ডায়গনষ্টি সেন্টারের সামনে অবৈধ পার্কিং করা এক সিএনজি চালক হোসেন মিয়া বলেন, জরুরী এক রোগী নিয়া আইছি এক ঘন্টা আগে। বইসা আছি ডাক্তার দেখাইয়া রোগী নামলে নিয়া যামু। যেহেতু ওনাদের নিজস্ব পার্কিং এর জায়গা নাই বাধ্য হইয়াই আমরা রাস্তায় গাড়ি নিয়া দাড়াইয়া থাকি।

নুসরাত সুপ্তি নামের এক কলেজ ছাত্রী যুগের চিন্তা ২৪ ডটকমকে বলেন, হকারদের যন্ত্রনায় বাসা থেকেই বেরহতে ইচ্ছে হয়না। ব্যস্ত ফুটপাথে একদিকে যেমন নারীদের বাজে মন্তব্য শুনতে হয় হকারদের কাছ থেকে তেমনি অনেক সময় শারীরিক লাঞ্চনার শিকারও হতে হয়।

তবে আজ শহরে প্রবেশ করেই বেশ ভাল লাগছে। একদিকে যেমন খালি ফুটপাথ অপরদিকে কোন প্রকার যানজট নেই। আমরা এমন সব সময়ই শহর প্রত্যাশা করি। সিটি কর্পোরেশন কিংবা পুলিশ প্রশাসন যারাই আমাদের স্বাচ্ছন্দে চলাচলের ব্যবস্থা করে দিয়েছে তাদের ধন্যবাদ জানাই। পাশাপাশি আশা করছি ভবিষ্যতেও ফুটপাথ পথচারীদেরই থাকবে।

জসিম মন্ডল নামের এক বৃদ্ধ বলছিলেন, ফাঁকা ফুটপাথ মানেই যেন জানজট বিহীন শহর। কিন্তু সেটাও হচ্ছেনা অবৈধ পার্কিংয়ের কারনে। মেয়র আইভীর সকল সফলতাও মুখ থুবড়ে পড়ছে হকার ও জানজট সমস্যার কাছে। নারায়ণগঞ্জবাসীকে স্বস্থিতে রাখতে হলে এই সমস্যাগুলোর স্থায়ী সমাধান জরুরী।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সোনারগাঁওয়ে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

নগরীর ফাঁকা ফুটপাথে স্বস্তি, অবৈধ পার্কিংয়ে বিড়ম্বনা

আপডেট সময় : ০৪:৪৯:১৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৭

প্রশাসনের সক্রীয় ভূমিকায় হকার বিহীন শহরের ফুটপাথ। ফাঁকা ফুটপাথে স্বাচ্ছন্দে চলাচল করছে পথচারীরা। কোন প্রকার ভীড় কিংবা ধাক্কাধাক্কি নেই। এ যেন ভিন্ন এক শহর। এ নিয়ে স্বস্তি প্রকাশ করছে পথচারীরা। তবে ফাকাঁ ফুটপাথেও বিড়ম্ভবনা সৃষ্টি করছে অবৈধ পার্কিং।

সরেজমিনে দেখা যায় সোমবার দুপুর থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত নগরীর বঙ্গবন্ধু সড়কসহ প্রধান সড়কের ফুটপাথ ছিল একেবারেই ফাঁকা। কোন হকারের ডাকহাঁক নেই। নেই কোন ভীড়। পথচারীদের চেহারায়ও নেই বিরক্তির ছাপ। স্বাচ্ছন্দে নিজ নিজ গন্তব্যে ছুটে চলছে সকলেই।

তবে হকারবিহীন ফুটপাথেও অবৈধ পার্কিং সৃষ্টি করছে বিড়ম্বনা। শহরজুড়েই ফুটপাথও মূল সড়ক ছিল মোটর সাইকেল ও ব্যাক্তিগত গাড়ীর দখলে। বড় বড় সব বিপনীবিতান, ডায়গনষ্টিক সেন্টারসহ গুরত্বপূর্ণ ভবনগুলোর নিজস্ব পার্কিং না সেগুলোর সামনের সড়ক দখলে নিয়েছে এসব অবৈধ যানবাহন। ফলে হকার না থাকলেও পথচারীদের চলাচলে কিছুটা বাধার সৃষ্টি করছে ফুটাপাথে থাকা মোটর সাইকেল আর মূল সড়কে সৃষ্টি করছে যানজট।

চাষাড়া পপুলার ডায়গনষ্টি সেন্টারের সামনে অবৈধ পার্কিং করা এক সিএনজি চালক হোসেন মিয়া বলেন, জরুরী এক রোগী নিয়া আইছি এক ঘন্টা আগে। বইসা আছি ডাক্তার দেখাইয়া রোগী নামলে নিয়া যামু। যেহেতু ওনাদের নিজস্ব পার্কিং এর জায়গা নাই বাধ্য হইয়াই আমরা রাস্তায় গাড়ি নিয়া দাড়াইয়া থাকি।

নুসরাত সুপ্তি নামের এক কলেজ ছাত্রী যুগের চিন্তা ২৪ ডটকমকে বলেন, হকারদের যন্ত্রনায় বাসা থেকেই বেরহতে ইচ্ছে হয়না। ব্যস্ত ফুটপাথে একদিকে যেমন নারীদের বাজে মন্তব্য শুনতে হয় হকারদের কাছ থেকে তেমনি অনেক সময় শারীরিক লাঞ্চনার শিকারও হতে হয়।

তবে আজ শহরে প্রবেশ করেই বেশ ভাল লাগছে। একদিকে যেমন খালি ফুটপাথ অপরদিকে কোন প্রকার যানজট নেই। আমরা এমন সব সময়ই শহর প্রত্যাশা করি। সিটি কর্পোরেশন কিংবা পুলিশ প্রশাসন যারাই আমাদের স্বাচ্ছন্দে চলাচলের ব্যবস্থা করে দিয়েছে তাদের ধন্যবাদ জানাই। পাশাপাশি আশা করছি ভবিষ্যতেও ফুটপাথ পথচারীদেরই থাকবে।

জসিম মন্ডল নামের এক বৃদ্ধ বলছিলেন, ফাঁকা ফুটপাথ মানেই যেন জানজট বিহীন শহর। কিন্তু সেটাও হচ্ছেনা অবৈধ পার্কিংয়ের কারনে। মেয়র আইভীর সকল সফলতাও মুখ থুবড়ে পড়ছে হকার ও জানজট সমস্যার কাছে। নারায়ণগঞ্জবাসীকে স্বস্থিতে রাখতে হলে এই সমস্যাগুলোর স্থায়ী সমাধান জরুরী।