নারায়ণগঞ্জ ০৭:৪৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
অপরাধি যেই হোক ছাড় পাবেনা : ওসি গোলাম মোস্তফা মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত আদমজী ইপিজেডকে অশান্ত করছে জনপ্রতিনিধিরা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে মহিলা লীগ নেত্রীর শুভেচ্ছা বিনিময় না’গঞ্জ কারাগারে হাজতীর মৃত্যু ফতুল্লায় চোরাইকৃত ট্যাংকলড়ী উদ্ধার আড়াইহাজারের মিথিলা টেক্সটাইল ঘুরে গেলেন ৮ দেশের রাষ্ট্রদূতসহ ১৮ দেশের প্রতিনিধি সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে কাউন্সিলর ইকবাল হোসেনের মতবিনিময় ফতুল্লা ব্লাড ডোনার্সের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ শিক্ষা সিলেবাস বাতিলের দাবিতে খেলাফত মজলিসের বিক্ষোভ মিছিল

শনির দশা কাটালো, ছাড়পত্র পেলো ‘শনিবার বিকেল’

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৫৫:২০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২৩
  • ১৮ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক : গুলশানে হামলা নিয়ে মোস্তফা সরোয়ার ফারুকীর নির্মিত ‘শনিবার বিকেল’ চলচ্চিত্রটির ‘শনির দশা’ অবশেষে কাটলো। চার বছর ধরে আটকে থাকা ছবিটি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের আপিল কমিটি মুক্তির ছাড়পত্র দিয়েছে।

শনিবার (২১ জানুয়ারি) বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডে আটকে থাকা ফারুকীর ‘শনিবার বিকেল’ ছবিটি নিয়ে আপিল বোর্ডের শুনানি হয়। এদিন সিনেমার নির্মাতা–প্রযোজকের বক্তব্য শোনেন আপিল কমিটির সদস্যরা।

এদিন দুপুরে এ ব্যাপারে নির্মাতা ফারুকী সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘শনিবার বিকেল’ মুক্তিতে বাধা নেই বলে জানিয়েছে আপিল বিভাগ। আমরা এখনও চিঠি পাইনি। চিঠির অপেক্ষায় আছি।

এদিকে আপিল কমিটির সদস্য শ্যামল দত্ত বলেছেন, আপিল বোর্ডের শুনানি হয়েছে। সেন্সর বোর্ড যে সমস্যাগুলোর কথা বলেছে, আমরা তার সঙ্গে একমত হইনি। এখন আর কোনো বাধা নেই। আমরা রিলিজ করে দিয়েছি ছবিটা। খুব শিগগিরই মুক্তি পাবে।

তিনি বলেন, ‘আমরা ছবিটি ছেড়ে দিয়েছি মুক্তির জন্য। তবে একটি শর্ত আছে। সেটি হলো- ছবির শুরুতে একটি ডিসক্লেইমার দিতে হবে। যেখানে লেখা থাকবে- এই ছবিটি হোলি আর্টিজান সংশ্লিষ্ট কোনো ঘটনা অবলম্বনে নয়।

গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে ২০১৬ সালের ঝড় তোলা জঙ্গি হামলার প্রেক্ষাপটে ‘শনিবার বিকেল’ সিনেমাটি নির্মাণ করা হয়। এতে জাহিদ হাসান, পরমব্রত, তিশা, ইরেশ যাকেরের সঙ্গে ফিলিস্তিনি অভিনেতা ইয়াদ হুরানিও অভিনয় করেছেন।

২০১৯ সালে সেন্সর বোর্ডের সদস্যরা দুবার দেখার পর এটি আটকে দেন মূলত বোর্ডে থাকা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধির আপত্তিতে।

তখন বলা হয়েছিল, ‘স্পর্শকাতর’ বিষয়টি নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্রটি মুক্তি পেলে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হতে পারে। যদিও ফারুকী বরাবরই বলে আসছিলেন, চলচ্চিত্রটি হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার ঘটনা নিয়ে নয়, ওই ঘটনার ‘অনুপ্রেরণায়’ নির্মিত একটি কাহিনীচিত্র।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

অপরাধি যেই হোক ছাড় পাবেনা : ওসি গোলাম মোস্তফা

শনির দশা কাটালো, ছাড়পত্র পেলো ‘শনিবার বিকেল’

আপডেট সময় : ১২:৫৫:২০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২৩

অনলাইন ডেস্ক : গুলশানে হামলা নিয়ে মোস্তফা সরোয়ার ফারুকীর নির্মিত ‘শনিবার বিকেল’ চলচ্চিত্রটির ‘শনির দশা’ অবশেষে কাটলো। চার বছর ধরে আটকে থাকা ছবিটি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের আপিল কমিটি মুক্তির ছাড়পত্র দিয়েছে।

শনিবার (২১ জানুয়ারি) বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডে আটকে থাকা ফারুকীর ‘শনিবার বিকেল’ ছবিটি নিয়ে আপিল বোর্ডের শুনানি হয়। এদিন সিনেমার নির্মাতা–প্রযোজকের বক্তব্য শোনেন আপিল কমিটির সদস্যরা।

এদিন দুপুরে এ ব্যাপারে নির্মাতা ফারুকী সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘শনিবার বিকেল’ মুক্তিতে বাধা নেই বলে জানিয়েছে আপিল বিভাগ। আমরা এখনও চিঠি পাইনি। চিঠির অপেক্ষায় আছি।

এদিকে আপিল কমিটির সদস্য শ্যামল দত্ত বলেছেন, আপিল বোর্ডের শুনানি হয়েছে। সেন্সর বোর্ড যে সমস্যাগুলোর কথা বলেছে, আমরা তার সঙ্গে একমত হইনি। এখন আর কোনো বাধা নেই। আমরা রিলিজ করে দিয়েছি ছবিটা। খুব শিগগিরই মুক্তি পাবে।

তিনি বলেন, ‘আমরা ছবিটি ছেড়ে দিয়েছি মুক্তির জন্য। তবে একটি শর্ত আছে। সেটি হলো- ছবির শুরুতে একটি ডিসক্লেইমার দিতে হবে। যেখানে লেখা থাকবে- এই ছবিটি হোলি আর্টিজান সংশ্লিষ্ট কোনো ঘটনা অবলম্বনে নয়।

গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে ২০১৬ সালের ঝড় তোলা জঙ্গি হামলার প্রেক্ষাপটে ‘শনিবার বিকেল’ সিনেমাটি নির্মাণ করা হয়। এতে জাহিদ হাসান, পরমব্রত, তিশা, ইরেশ যাকেরের সঙ্গে ফিলিস্তিনি অভিনেতা ইয়াদ হুরানিও অভিনয় করেছেন।

২০১৯ সালে সেন্সর বোর্ডের সদস্যরা দুবার দেখার পর এটি আটকে দেন মূলত বোর্ডে থাকা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধির আপত্তিতে।

তখন বলা হয়েছিল, ‘স্পর্শকাতর’ বিষয়টি নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্রটি মুক্তি পেলে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হতে পারে। যদিও ফারুকী বরাবরই বলে আসছিলেন, চলচ্চিত্রটি হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার ঘটনা নিয়ে নয়, ওই ঘটনার ‘অনুপ্রেরণায়’ নির্মিত একটি কাহিনীচিত্র।