নারায়ণগঞ্জ ১১:৩৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
সিদ্ধিরগঞ্জে নূর হাবিবের চাঁদাবাজিতে অতিষ্ট ব্যবসায়ীরা পোশাক রপ্তানিতে ভিয়েতনামকে ছাড়াল বাংলাদেশ ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ট্রেন চলাচল বন্ধ ৪ ডিসেম্বর থেকে হিন্দি সিনেমায় জয়া আহসান, নায়ক পঙ্কজ ত্রিপাঠি গ্রুপ সেরা আর্জেন্টিনা, শেষ ষোলয় প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া সিদ্ধিরগঞ্জে জয়নাল বাহিনীর ৪ জনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় স্কুলে অনৈতিক আর্থিক সুবিধায় ক্ষমতার চেয়ারে শিক্ষিকা দিলরুবা রূপগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় ৭ বছরের মাদ্রাসা পরুয়া শিশুর মৃত্যু ফতুল্লা ওসি’র কন্যা রাইসা জিপিএ ফাইভ পেয়েছেন সোনারগাঁয়ে টেক্সটাইল মিলে ও মিষ্টি কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ড

হাই-বাদলের বিরুদ্ধে কেন্দ্রে নীলার চিঠি

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৪৯:১৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২
  • ১২ বার পড়া হয়েছে

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারন সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মোহাম্মদ বাদলের নেয়া সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে চিঠি দিয়েছেন রূপগঞ্জের আলোচিত সৈয়দা ফেরদৌসী আলম নীলা।

গত ৬ আগস্ট আওয়ামী লীগের সভাপতি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর এ চিঠি প্রেরণ করেন তিনি। ওই চিঠিতে নিজের বিরুদ্ধে নেয়া বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবিও জানান নীলা।

চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেন, আমি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর আদর্শ বুকে ধারণ করে বিগত ৩০ বৎসর যাবত মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার একজন বিশ্বস্তকর্মী হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর সকল লড়াই সংগ্রামে একজন প্রত্যক্ষ যোদ্ধা হিসেবে রাজপথে সর্বদা সক্রিয় ছিলাম। দীর্ঘদিন ধরে জনগনের প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করে আসছি। একই সাথে আমি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রূপগঞ্জ ইউনিয়নের মহিলা সম্পাদিকা এবং নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলাম।

গত ২ আগস্ট স্থানীয় বিএনপি-জামাত ও কিছু কুচক্রীমহলের ইন্ধনে আমার সম্মানহানি করার জন্য দৈনিক সমকাল পত্রিকায় আমাকে জড়িয়ে একটি মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ করা হয়। ওই সংবাদকে ভিত্তি ধরে কোন প্রকার তদন্ত ছাড়া ও আমার সাথে কোন প্রকার আলোচনা ব্যতিত গত ৪ আগস্ট নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ এর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কর্তৃক স্বাক্ষরিত পত্রের মাধ্যমে আমাকে জেলা আওয়ামী লীগ এর পদ হতে অব্যাহতি প্রদান করা হয়। একই সাথে নিন্মস্তরের সকল পদ থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়।

তিনি আরও বলেন, আমি ৩০ বছর ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। সবদিক বিবেচনা করে আমার বিরুদ্ধে নেয়া জেলা আওয়ামী লীগের এমন সিদ্ধান্ত পুণর্বিবেচনা করার অনুরোধ করছি।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সিদ্ধিরগঞ্জে নূর হাবিবের চাঁদাবাজিতে অতিষ্ট ব্যবসায়ীরা

হাই-বাদলের বিরুদ্ধে কেন্দ্রে নীলার চিঠি

আপডেট সময় : ১০:৪৯:১৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারন সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মোহাম্মদ বাদলের নেয়া সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে চিঠি দিয়েছেন রূপগঞ্জের আলোচিত সৈয়দা ফেরদৌসী আলম নীলা।

গত ৬ আগস্ট আওয়ামী লীগের সভাপতি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর এ চিঠি প্রেরণ করেন তিনি। ওই চিঠিতে নিজের বিরুদ্ধে নেয়া বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবিও জানান নীলা।

চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেন, আমি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর আদর্শ বুকে ধারণ করে বিগত ৩০ বৎসর যাবত মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার একজন বিশ্বস্তকর্মী হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর সকল লড়াই সংগ্রামে একজন প্রত্যক্ষ যোদ্ধা হিসেবে রাজপথে সর্বদা সক্রিয় ছিলাম। দীর্ঘদিন ধরে জনগনের প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করে আসছি। একই সাথে আমি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রূপগঞ্জ ইউনিয়নের মহিলা সম্পাদিকা এবং নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলাম।

গত ২ আগস্ট স্থানীয় বিএনপি-জামাত ও কিছু কুচক্রীমহলের ইন্ধনে আমার সম্মানহানি করার জন্য দৈনিক সমকাল পত্রিকায় আমাকে জড়িয়ে একটি মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ করা হয়। ওই সংবাদকে ভিত্তি ধরে কোন প্রকার তদন্ত ছাড়া ও আমার সাথে কোন প্রকার আলোচনা ব্যতিত গত ৪ আগস্ট নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ এর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কর্তৃক স্বাক্ষরিত পত্রের মাধ্যমে আমাকে জেলা আওয়ামী লীগ এর পদ হতে অব্যাহতি প্রদান করা হয়। একই সাথে নিন্মস্তরের সকল পদ থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়।

তিনি আরও বলেন, আমি ৩০ বছর ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। সবদিক বিবেচনা করে আমার বিরুদ্ধে নেয়া জেলা আওয়ামী লীগের এমন সিদ্ধান্ত পুণর্বিবেচনা করার অনুরোধ করছি।