নারায়ণগঞ্জ ০৭:১১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
রিয়াদে Dxnএর আয়োজনে আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস পালন ও সেমিনার অনুষ্ঠিত ইসদাইরে অবৈধ ক্যাবল অপারেটর ব্যবসার বিরুদ্ধে অভিযান,অফিস সীলগালা চাষাড়ায় মাতৃভাষা দিবসে বইমেলার উদ্বোধন নারায়ণগঞ্জে কারাগারে সাংবাদিক হত্যাকারির আত্নহত্যা চৌধুরীগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন অস্ত্র মামলায় মিশনপাড়ার নাজমুলকে ১০ বছরের কারাদণ্ড বন্দরে এক রোহিঙ্গা যুবককে ৪হাজার ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে জামানত ১ লাখ টাকা ফতুল্লার ক্লু-লেস হত্যার রহস্য উদঘাটনসহ প্রধান আসামিকে গ্রেফতার র‌্যাব-১১ বানিজ্য মেলায় দর্শনার্থীদের সেবা দিতে ডিকেএমসি হাসপাতালের অধ্যাপক ডাক্তার এম এ কাশেম

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাধাগ্রস্থ করতেই মুহিবুল্লাহ হত্যা : বাংলাদেশ ন্যাপ

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৪২:৩৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১ অক্টোবর ২০২১
  • ৯০ বার পড়া হয়েছে

রোহিঙ্গাদের নিজ দেশ মিয়ানমারে ফিরে যাওয়া ও তাদের মানবাধিকার নিয়ে দেশে-বিদেশে বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর মুহিবুল্লাহ হত্যাকান্ডে গভীর উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা প্রকাশ এবং তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ‌দ্রুততম সময়ের মধ্যে হত্যাক ন্ডের সাথে জড়িতদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে।

শুক্রবার (১ অক্টোবর) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে পার্টির চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া এ দাবী জানান।

তারা বলেন, আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের চেয়ারম্যান মুহিবুল্লাহ – যিনি রোহিঙ্গাদেরকে স্বদেশে প্রত্যাবর্তনের জন্য অত্যন্ত সোচ্চার ছিলেন। সত্যিকার অর্থে তিনি ছিলেন সাধারণ রোহিঙ্গাদের ভরসার জায়গা। আর সে কারণেই রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবসন বাঁধাগ্রস্থ করতেই মুহিবুল্লাহ হত্যা করা হয়েছে বলেই দেশবাসী মনে করে।

নেতৃদ্বয় বলেন, একের পর এক রোহিঙ্গা নেতার হত্যাকান্ড ক্যাম্পের নিরাপত্তাকে যেমন প্রশ্নবিদ্ধ করছে, তেমনই এর পেছনে দেশ বিরোধী, রাষ্ট্র বিরোধী ষড়যন্ত্র রয়েছে কিনা তাও সরকারকে উদঘাটন করতে হবে। মনে রাখতে হবে, এভাবে চলতে থাকলে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিয়ন্ত্রণ সন্ত্রাসী গ্রুপের হাতে। প্রত্যাবাসন নিয়ে নতুন সংকট সৃষ্টি হবে। যা কোনভাবেই বাংলাদেশের জন্য কল্যাণকর হতে পারে না। মুহিবুল্লাহ হত্যাকান্ডের সাথে মিয়ানমারের কোনো ষড়যন্ত্র রয়েছে কিনা, তাও সরকারকে গুরুত্বের সাথে বিবেচনায় রাখতে হবে।

তারা বলেন, মুহিবুল্লাহ হত্যাকান্ড পুরো রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে দিয়েছে। এ হত্যার ঘটনা দ্রুততম সময়ের মধ্যে তদন্ত করে দোষীদের সবাইকে তাদের অপরাধের জন্য দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে সরকারকে। অন্যদিকে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের ইস্যুটি সরকারকে বারবার আন্তর্জাতিক ফোরামে তুলে ধরতে হবে। মুহিবুল্লাহ হত্যাকান্ড যাতে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে কোন বাধা না হয় সে বিষয়েও সরকারকে সচেতন থাকতে হবে।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

রিয়াদে Dxnএর আয়োজনে আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস পালন ও সেমিনার অনুষ্ঠিত

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাধাগ্রস্থ করতেই মুহিবুল্লাহ হত্যা : বাংলাদেশ ন্যাপ

আপডেট সময় : ০৪:৪২:৩৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১ অক্টোবর ২০২১

রোহিঙ্গাদের নিজ দেশ মিয়ানমারে ফিরে যাওয়া ও তাদের মানবাধিকার নিয়ে দেশে-বিদেশে বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর মুহিবুল্লাহ হত্যাকান্ডে গভীর উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা প্রকাশ এবং তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ‌দ্রুততম সময়ের মধ্যে হত্যাক ন্ডের সাথে জড়িতদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে।

শুক্রবার (১ অক্টোবর) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে পার্টির চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া এ দাবী জানান।

তারা বলেন, আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের চেয়ারম্যান মুহিবুল্লাহ – যিনি রোহিঙ্গাদেরকে স্বদেশে প্রত্যাবর্তনের জন্য অত্যন্ত সোচ্চার ছিলেন। সত্যিকার অর্থে তিনি ছিলেন সাধারণ রোহিঙ্গাদের ভরসার জায়গা। আর সে কারণেই রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে প্রত্যাবসন বাঁধাগ্রস্থ করতেই মুহিবুল্লাহ হত্যা করা হয়েছে বলেই দেশবাসী মনে করে।

নেতৃদ্বয় বলেন, একের পর এক রোহিঙ্গা নেতার হত্যাকান্ড ক্যাম্পের নিরাপত্তাকে যেমন প্রশ্নবিদ্ধ করছে, তেমনই এর পেছনে দেশ বিরোধী, রাষ্ট্র বিরোধী ষড়যন্ত্র রয়েছে কিনা তাও সরকারকে উদঘাটন করতে হবে। মনে রাখতে হবে, এভাবে চলতে থাকলে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিয়ন্ত্রণ সন্ত্রাসী গ্রুপের হাতে। প্রত্যাবাসন নিয়ে নতুন সংকট সৃষ্টি হবে। যা কোনভাবেই বাংলাদেশের জন্য কল্যাণকর হতে পারে না। মুহিবুল্লাহ হত্যাকান্ডের সাথে মিয়ানমারের কোনো ষড়যন্ত্র রয়েছে কিনা, তাও সরকারকে গুরুত্বের সাথে বিবেচনায় রাখতে হবে।

তারা বলেন, মুহিবুল্লাহ হত্যাকান্ড পুরো রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে দিয়েছে। এ হত্যার ঘটনা দ্রুততম সময়ের মধ্যে তদন্ত করে দোষীদের সবাইকে তাদের অপরাধের জন্য দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে সরকারকে। অন্যদিকে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের ইস্যুটি সরকারকে বারবার আন্তর্জাতিক ফোরামে তুলে ধরতে হবে। মুহিবুল্লাহ হত্যাকান্ড যাতে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে কোন বাধা না হয় সে বিষয়েও সরকারকে সচেতন থাকতে হবে।