নারায়ণগঞ্জ ০২:৫৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
সোনারগাঁয়ের শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ মিছিলে মহাসড়ক অবরোধ পাইনাদী নতুন মহল্লা সমাজকল্যাণ সংস্থার কার্যালয় উদ্বোধন সিদ্ধিরগঞ্জে ছাত্র বলাৎকারের অভিযোগে মাদ্রাসার শিক্ষক গ্রেপ্তার সিদ্ধিরগঞ্জের মহাসড়ক যেন ময়লার ভাগাড়,দূষিত পরিবেশে বাড়ছে স্বাস্থ্যঝুঁকি আড়াইহাজারে ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় ৮ জন গ্রেপ্তার সিদ্ধিরগঞ্জে মিতালী মার্কেটের অর্থ আত্নসাত করেও অপপ্রচারে লিপ্ত জামান সোনারগাঁ জামপুরে খোকার সন্ত্রাসী হামলায় দলিল লেখক রতন আহত র্যাবের হাতে চাদাঁবাজির টাকাসহ ৬ চাদাঁবাজ গ্রেফতার হাজিরা মিস হওয়ায় মামুনুল হকের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রূপগঞ্জের কাঞ্চন পৌরসভায় নির্বাচন কাল

রংপুরে সাংবাদিক নেতা আফরোজা সরকারসহ ৫ জনের ওপর হামলার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:১৪:২৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • ১৩৪ বার পড়া হয়েছে

রংপুরে সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির জেলা সম্পাদক আফরোজা সরকারসহ ৫ সাংবাদিকের ওপর বহিরাগত সন্ত্রাসীদের হামলার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ও সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি বাংলাদেশ’র কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

সোমবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ও সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সমন্বয়কারী আহমেদ আবু জাফর বলেন, সাংবাদিকদের ওপর এ ধরনের হামলা দেশের গণমাধ্যম কমর্মীদের জন্য হুমকিস্বপরুপ। বিশেষ করে গ্রামীন জনপদে এভাবে একজন নারী সাংবাদিকের ওপর হামলা, লাঞ্ছনা, শ্লীলতাহানী কোন ভাবেই মেনে নেবার নয়। হামলাকারী যেই হোক; তাদেরকে আইনের কাঠগড়ায় দাঁড় করাোনা উচিত। গ্রামীন পর্যায়ে কর্মরত গণমাধ্যম-কর্মী বিশেষ করে নারীরা এমনিতেই নানা বৈষম্য ও অবহেলার শিকার। বৈষম্য নিরসন এবং সুবিচারের স্বার্থে প্রশাসনের কাছে এই ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানানো হয়।

বিএমএসএফ’র পক্ষ থেকে বলা হয়, সরকার জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক পরিসরে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও সাংবাদিকদের সুরক্ষা প্রদানের অঙ্গীকার করলেও বাস্তবতা কিন্তু বদলায়নি। বহু আগ থেকেই যেন বাংলাদেশে সাংবাদিক নির্যাতনের বিচারহীনতার একটি সংস্কৃতি চলছে। এতে একটি গোষ্ঠীর মাঝে ধারণা জন্মেছে যে, সাংবাদিক নির্যাতন করলে কিছু হয় না। এ প্রবণতা গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও গণমাধ্যম কর্মীদের সুরক্ষার বিষয়টিকে যথেষ্ট নাজুক করে দিয়েছে, যা অত্যন্ত উদ্বেগজনক।

সম্প্রতি রংপুরের হামলার ঘটনাসহ সাংবাদিকদের প্রতি সহিংসতার প্রত্যেকটি ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত বিচার নিশ্চিত করার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক মানদণ্ড অনুসরণ করে সাংবাদিক ও মতপ্রকাশ-কর্মীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির রংপুর শাখা সূত্রে প্রকাশ; ২৪ সেপ্টেম্বর বিকেলে রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে বহিরাগত সন্ত্রাসীরা এসে সভাস্থলে অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় তারা ক্লাবের সদস্যদের মারধর করতে শুরু করে। এতে ক্লাবের পাঁচ সদস্য আহত হন। আহতদের মধ্যে ক্লাবের নবনির্বাচিত যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজম পারভেজ ও সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক ও সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির জেলা সম্পাদক আফরোজা সরকারের অবস্থা গুরুতর। তারা বর্তমানে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সোনারগাঁয়ের শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ মিছিলে মহাসড়ক অবরোধ

রংপুরে সাংবাদিক নেতা আফরোজা সরকারসহ ৫ জনের ওপর হামলার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ

আপডেট সময় : ১১:১৪:২৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

রংপুরে সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির জেলা সম্পাদক আফরোজা সরকারসহ ৫ সাংবাদিকের ওপর বহিরাগত সন্ত্রাসীদের হামলার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ও সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি বাংলাদেশ’র কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

সোমবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ও সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সমন্বয়কারী আহমেদ আবু জাফর বলেন, সাংবাদিকদের ওপর এ ধরনের হামলা দেশের গণমাধ্যম কমর্মীদের জন্য হুমকিস্বপরুপ। বিশেষ করে গ্রামীন জনপদে এভাবে একজন নারী সাংবাদিকের ওপর হামলা, লাঞ্ছনা, শ্লীলতাহানী কোন ভাবেই মেনে নেবার নয়। হামলাকারী যেই হোক; তাদেরকে আইনের কাঠগড়ায় দাঁড় করাোনা উচিত। গ্রামীন পর্যায়ে কর্মরত গণমাধ্যম-কর্মী বিশেষ করে নারীরা এমনিতেই নানা বৈষম্য ও অবহেলার শিকার। বৈষম্য নিরসন এবং সুবিচারের স্বার্থে প্রশাসনের কাছে এই ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানানো হয়।

বিএমএসএফ’র পক্ষ থেকে বলা হয়, সরকার জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক পরিসরে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও সাংবাদিকদের সুরক্ষা প্রদানের অঙ্গীকার করলেও বাস্তবতা কিন্তু বদলায়নি। বহু আগ থেকেই যেন বাংলাদেশে সাংবাদিক নির্যাতনের বিচারহীনতার একটি সংস্কৃতি চলছে। এতে একটি গোষ্ঠীর মাঝে ধারণা জন্মেছে যে, সাংবাদিক নির্যাতন করলে কিছু হয় না। এ প্রবণতা গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও গণমাধ্যম কর্মীদের সুরক্ষার বিষয়টিকে যথেষ্ট নাজুক করে দিয়েছে, যা অত্যন্ত উদ্বেগজনক।

সম্প্রতি রংপুরের হামলার ঘটনাসহ সাংবাদিকদের প্রতি সহিংসতার প্রত্যেকটি ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত বিচার নিশ্চিত করার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক মানদণ্ড অনুসরণ করে সাংবাদিক ও মতপ্রকাশ-কর্মীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির রংপুর শাখা সূত্রে প্রকাশ; ২৪ সেপ্টেম্বর বিকেলে রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে বহিরাগত সন্ত্রাসীরা এসে সভাস্থলে অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় তারা ক্লাবের সদস্যদের মারধর করতে শুরু করে। এতে ক্লাবের পাঁচ সদস্য আহত হন। আহতদের মধ্যে ক্লাবের নবনির্বাচিত যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজম পারভেজ ও সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক ও সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির জেলা সম্পাদক আফরোজা সরকারের অবস্থা গুরুতর। তারা বর্তমানে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।