নারায়ণগঞ্জ ০২:২৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

যেই কথা সেই কাজ কাউন্সিলর বাবুর

শহর প্রতিনিধি ঃ   নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৭নং ওয়ার্ডের ভূঁইয়া পাড়া এলাকায় ড্রেনে ময়লা আর্বজনার স্তুপে ড্রেন জ্যাম হয়েছিলো। পানি নিষ্কাশন না হবার ফলে ড্রেনের পানি রাস্তায় উঠে জনসাধারণের চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে রাতে ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবুকে মুঠোফোনে বিষয়টি জানান হুমায়েন ভূইয়া নামের এক ব্যক্তি। আশ্বস্থ করে কাউন্সিলর বাবু বলেন সকালে লোক পাঠিয়ে পরিস্কারের ব্যবস্থা করবো। যেই কথা সেই কাজ, নিজ অর্থায়নে সকালেই লোক পাঠিয়ে দেন ড্রেন পরিস্কারের জন্য।

কাউন্সিলর বাবু ড্রেন পরিস্কারের কাজটি সরজমিনে দেখতে আসলে, মুঠোফোনে ছবি তুলে তা ফেসবুকে আপলোড দেন হুমায়েন ভূইয়া। ক্যাপশন দেন ডিজিটাল যুগের ডিজিটাল কাউন্সিলর। বর্ষা মৌসুমে বিভিন্ন এলাকা জলাবদ্ধতা থাকলেও অনেক জনপ্রতিনিধি কর্নপাত করেন না। সেখানে ১৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবুর এমন উদ্যোগকে মহতি উদ্যোগ বলে প্রশংসা করেছেন এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু বলেন, জনগনের ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি আমি। জনসেবা করাই আমার কাজ। আমি যদি জনসেবা না করি তাহলে জনগনের ভোট বৃথা যাবে। এলাকাবাসীর কাছে দোয়া কামনা করছি, যতদিন বেচে থাকবো ততদিন যেনো মানুষের সেবা করতে পারি।

হুমায়েন ভূইয়া তার ফেসবুক আইডির পোস্টে লিখেছেন, ডিজিটাল যুগের ডিজিটাল কাউন্সিলর। নারায়ণগঞ্জ ১৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু ভাই, যাকে ফোন করলেই আমরা সবসময় কাছে পাই। তিনি নিজ অর্থায়নে জনগণের উন্নয়ন কাজ করে দেন। ১৭ নং ওয়ার্ডের ভূইঁয়া পাড়া এলাকায়, রাস্তার ড্রেনের ময়লা আবর্জনায় ড্রেন জ্যাম হয়ে গিয়ে, ড্রেনের পানি রাস্তায় উঠে গিয়েছিল। তখন এলাকার জনগণের মুখে শুধু একটা-ই বাক্যে ছিল, হায়- হায় এখন আমরা কিভাবে রাস্তায় বের হবো। কিভাবে মসজিদে নামাজ পড়তে যাবো।

তিনি আরও উলেখ্য করেন, সিটি কর্পোরেশনের লোক দিয়ে ড্রেন পরিস্কার করাতে হলে, প্রথমে দরখাস্ত দিতে হয় তারপরে টেন্ডার পাশ হতে অনেক সময় লেগে যায়। এতো দিন সময় ড্রেন বন্ধ হয়ে থাকলে, জনগণের ভোগান্তির শেষ থাকবে না। তাই এই বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য জনগণের পক্ষ হইতে, আমি রাত ১২ টার সময় কাউন্সিল বাবু ভাইকে ফোন করে বিষয়টি জানাই। বাবু ভাই আমাকে আশ্বাস দেন সকালেই লোক পাঠিয়ে দিবেন ড্রেন পরিস্কার করার জন্য। যেমন কথা তেমনই কাজ সকালে ঘুম থেকে ওঠেই দেখি, কাউন্সিলর বাবু ভাইয়ের নিজ অর্থায়নে ড্রেন পরিস্কার করার কাজ শুরু করিয়ে দিয়েছেন। এতে এলাকাবাসী আনন্দিত হয়ে কাউন্সিলর বাবু ভাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন এবং তার নামের সাথে যোগ করে দিয়েছেন, ডিজিটাল যুগের ডিজিটাল কাউন্সিলর।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

যেই কথা সেই কাজ কাউন্সিলর বাবুর

আপডেট সময় : ০৫:৩২:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৭ জুন ২০২১

শহর প্রতিনিধি ঃ   নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৭নং ওয়ার্ডের ভূঁইয়া পাড়া এলাকায় ড্রেনে ময়লা আর্বজনার স্তুপে ড্রেন জ্যাম হয়েছিলো। পানি নিষ্কাশন না হবার ফলে ড্রেনের পানি রাস্তায় উঠে জনসাধারণের চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে রাতে ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবুকে মুঠোফোনে বিষয়টি জানান হুমায়েন ভূইয়া নামের এক ব্যক্তি। আশ্বস্থ করে কাউন্সিলর বাবু বলেন সকালে লোক পাঠিয়ে পরিস্কারের ব্যবস্থা করবো। যেই কথা সেই কাজ, নিজ অর্থায়নে সকালেই লোক পাঠিয়ে দেন ড্রেন পরিস্কারের জন্য।

কাউন্সিলর বাবু ড্রেন পরিস্কারের কাজটি সরজমিনে দেখতে আসলে, মুঠোফোনে ছবি তুলে তা ফেসবুকে আপলোড দেন হুমায়েন ভূইয়া। ক্যাপশন দেন ডিজিটাল যুগের ডিজিটাল কাউন্সিলর। বর্ষা মৌসুমে বিভিন্ন এলাকা জলাবদ্ধতা থাকলেও অনেক জনপ্রতিনিধি কর্নপাত করেন না। সেখানে ১৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবুর এমন উদ্যোগকে মহতি উদ্যোগ বলে প্রশংসা করেছেন এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু বলেন, জনগনের ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি আমি। জনসেবা করাই আমার কাজ। আমি যদি জনসেবা না করি তাহলে জনগনের ভোট বৃথা যাবে। এলাকাবাসীর কাছে দোয়া কামনা করছি, যতদিন বেচে থাকবো ততদিন যেনো মানুষের সেবা করতে পারি।

হুমায়েন ভূইয়া তার ফেসবুক আইডির পোস্টে লিখেছেন, ডিজিটাল যুগের ডিজিটাল কাউন্সিলর। নারায়ণগঞ্জ ১৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু ভাই, যাকে ফোন করলেই আমরা সবসময় কাছে পাই। তিনি নিজ অর্থায়নে জনগণের উন্নয়ন কাজ করে দেন। ১৭ নং ওয়ার্ডের ভূইঁয়া পাড়া এলাকায়, রাস্তার ড্রেনের ময়লা আবর্জনায় ড্রেন জ্যাম হয়ে গিয়ে, ড্রেনের পানি রাস্তায় উঠে গিয়েছিল। তখন এলাকার জনগণের মুখে শুধু একটা-ই বাক্যে ছিল, হায়- হায় এখন আমরা কিভাবে রাস্তায় বের হবো। কিভাবে মসজিদে নামাজ পড়তে যাবো।

তিনি আরও উলেখ্য করেন, সিটি কর্পোরেশনের লোক দিয়ে ড্রেন পরিস্কার করাতে হলে, প্রথমে দরখাস্ত দিতে হয় তারপরে টেন্ডার পাশ হতে অনেক সময় লেগে যায়। এতো দিন সময় ড্রেন বন্ধ হয়ে থাকলে, জনগণের ভোগান্তির শেষ থাকবে না। তাই এই বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য জনগণের পক্ষ হইতে, আমি রাত ১২ টার সময় কাউন্সিল বাবু ভাইকে ফোন করে বিষয়টি জানাই। বাবু ভাই আমাকে আশ্বাস দেন সকালেই লোক পাঠিয়ে দিবেন ড্রেন পরিস্কার করার জন্য। যেমন কথা তেমনই কাজ সকালে ঘুম থেকে ওঠেই দেখি, কাউন্সিলর বাবু ভাইয়ের নিজ অর্থায়নে ড্রেন পরিস্কার করার কাজ শুরু করিয়ে দিয়েছেন। এতে এলাকাবাসী আনন্দিত হয়ে কাউন্সিলর বাবু ভাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন এবং তার নামের সাথে যোগ করে দিয়েছেন, ডিজিটাল যুগের ডিজিটাল কাউন্সিলর।