নারায়ণগঞ্জ ০২:২৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
নারায়ণগঞ্জে ৩টি উপজেলায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন যারা গুণী জনদের পদচারণায়  উদযাপিত  দৈনিক আজকের নীর বাংলা পত্রিকা’র ১৫ তম  বর্ষপূর্তি সিদ্ধিরগঞ্জে রাজউকের অভিযানে ক্ষুব্ধ ভবন মালিকরা রেকমত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের মজিবুর রহমান সভাপতির দায়িত্ব নিয়েই শিক্ষার মান উন্নয়নের তাগিদ অস্ত্রের লাইসেন্সের আবেদন না করেও অপপ্রচারের শিকার মহিউদ্দিন মোল্লা ! সাংবাদিক শাওনের বাবা ফিরোজ আহমেদ আর নেই রিয়াদে জমকালো আয়োজনে মাই টিভির ১৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন রিয়াদে প্রিমিয়াম ফুটবল লীগের ফাইনাল অনুষ্ঠিত জুন মাসের ১৭ তারিখ কোরবানির ঈদ পালিত হওয়ার সম্ভবনা রিয়াদে নোভ আল আম্মার ইষ্টাবলিস্ট এর আয়োজনে দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

বিএনপি’র রুহুল আমিন সহ ফতুল্লার ৩৩ নেতা কর্মীর জামিন

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:২৪:৩৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৯
  • ১৩০ বার পড়া হয়েছে

২০১৮ সালের ফতুল্লা মডেল থানার পুলিশের দায়েরকৃত নাশকতার মামলায় নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন শিকদারসহ ৩৩ নেতাকর্মীর জামিন পেয়েছে ।

রোববার ( ২৪ নভেম্বর ) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ আনিসুর রহমানের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের জন্য আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করেন । মামলা নং ৯৪(৯)১৮ । আসামি পক্ষের আইনজীবী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এড. সাখাওয়াত হোসেন খান ।

হাজিরা শেষে জেলা বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন শিকদার বলেন, আওয়ামীলীগ গত নিবার্চনের আগে ফাকা মাঠে গোল দেওয়ার জন্য বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন । সারাদেশের ন্যায় ফতুল্লা থানার বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে একাধিক গায়েবি মামলা দায়ের করেছে বর্তমান রাতের ভোটের নিবার্চিত আওয়ামী তাবেদার সরকার। আওয়ামীলীগ ভোট ও জনগনকে ভয় পায় তাই বিএনপির নেতাকর্মীদের ভোটের মাঠ থেকে দুরে রাখার জন্য বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে একের পর এক মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দাখিল করেছিল।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন থেকে নেতাকর্মীদের দুরে রাখতে মিথ্যা মামলার চার্জশিট দাখিল করছে । বিএনপির নেতাকর্মীদের মিথ্যা রায় দিয়ে কারাগারে রাখার ব্যবস্থা করছে । কারাগার ও মামলা ভয় দেখিয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন থেকে নেতাকর্মীদের দুরে রাখা যাবেনা। আওয়ামীলীগ হামলা মামলার ভয় দেখিয়ে বিএনপির নেতৃত্ব শূন্য করতে চেয়েছিল কিন্তু আজ তারা নিজেরাই জনবিচ্ছিন হয়ে পরেছে ।

আসামি হলেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি এড. আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. মাহবুবুর রহমান খান, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক লুৎফর রহমান খোকা, সহ যুব বিষয়ক সম্পাদক একরামুল করিম মামুন, সহ দপ্তর সম্পাদক বোরহানউদ্দিন, ফতুল্লা ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আবুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার হুমায়ূন কবির, ফতুল্লা থানা তাঁতী দলের আহ্বায়ক অলিউল্লাহ খোকন, জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি স্বপন চৌধুরী, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলনেতা আবু হোসেন পায়েল, যুবদল নেতা আমিনুল হক জুয়েল, ছাত্রদল নেতা সাগর সিদ্দিকী, শরীফ হোসেন মানিক,কাজী আরিফ জুবায়ের জাবেদ প্রমুখ ।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

নারায়ণগঞ্জে ৩টি উপজেলায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন যারা

বিএনপি’র রুহুল আমিন সহ ফতুল্লার ৩৩ নেতা কর্মীর জামিন

আপডেট সময় : ০২:২৪:৩৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৯

২০১৮ সালের ফতুল্লা মডেল থানার পুলিশের দায়েরকৃত নাশকতার মামলায় নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন শিকদারসহ ৩৩ নেতাকর্মীর জামিন পেয়েছে ।

রোববার ( ২৪ নভেম্বর ) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ আনিসুর রহমানের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের জন্য আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করেন । মামলা নং ৯৪(৯)১৮ । আসামি পক্ষের আইনজীবী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এড. সাখাওয়াত হোসেন খান ।

হাজিরা শেষে জেলা বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন শিকদার বলেন, আওয়ামীলীগ গত নিবার্চনের আগে ফাকা মাঠে গোল দেওয়ার জন্য বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন । সারাদেশের ন্যায় ফতুল্লা থানার বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে একাধিক গায়েবি মামলা দায়ের করেছে বর্তমান রাতের ভোটের নিবার্চিত আওয়ামী তাবেদার সরকার। আওয়ামীলীগ ভোট ও জনগনকে ভয় পায় তাই বিএনপির নেতাকর্মীদের ভোটের মাঠ থেকে দুরে রাখার জন্য বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে একের পর এক মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দাখিল করেছিল।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন থেকে নেতাকর্মীদের দুরে রাখতে মিথ্যা মামলার চার্জশিট দাখিল করছে । বিএনপির নেতাকর্মীদের মিথ্যা রায় দিয়ে কারাগারে রাখার ব্যবস্থা করছে । কারাগার ও মামলা ভয় দেখিয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন থেকে নেতাকর্মীদের দুরে রাখা যাবেনা। আওয়ামীলীগ হামলা মামলার ভয় দেখিয়ে বিএনপির নেতৃত্ব শূন্য করতে চেয়েছিল কিন্তু আজ তারা নিজেরাই জনবিচ্ছিন হয়ে পরেছে ।

আসামি হলেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি এড. আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. মাহবুবুর রহমান খান, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক লুৎফর রহমান খোকা, সহ যুব বিষয়ক সম্পাদক একরামুল করিম মামুন, সহ দপ্তর সম্পাদক বোরহানউদ্দিন, ফতুল্লা ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আবুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার হুমায়ূন কবির, ফতুল্লা থানা তাঁতী দলের আহ্বায়ক অলিউল্লাহ খোকন, জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি স্বপন চৌধুরী, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলনেতা আবু হোসেন পায়েল, যুবদল নেতা আমিনুল হক জুয়েল, ছাত্রদল নেতা সাগর সিদ্দিকী, শরীফ হোসেন মানিক,কাজী আরিফ জুবায়ের জাবেদ প্রমুখ ।