নারায়ণগঞ্জ ১০:০৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত আদমজী ইপিজেডকে অশান্ত করছে জনপ্রতিনিধিরা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে মহিলা লীগ নেত্রীর শুভেচ্ছা বিনিময় না’গঞ্জ কারাগারে হাজতীর মৃত্যু ফতুল্লায় চোরাইকৃত ট্যাংকলড়ী উদ্ধার আড়াইহাজারের মিথিলা টেক্সটাইল ঘুরে গেলেন ৮ দেশের রাষ্ট্রদূতসহ ১৮ দেশের প্রতিনিধি সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে কাউন্সিলর ইকবাল হোসেনের মতবিনিময় ফতুল্লা ব্লাড ডোনার্সের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ শিক্ষা সিলেবাস বাতিলের দাবিতে খেলাফত মজলিসের বিক্ষোভ মিছিল সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শহরে নারী সমাবেশ ও মিছিল

হাজীগঞ্জে জমির সীমানাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় মা ছেলে গুরুতর আহত

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৪৫:৩৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ জানুয়ারী ২০১৯
  • ৪৮ বার পড়া হয়েছে
নিজস্ব প্রতিনিধীঃ ফতুল্লা থানাধীন হাজীগঞ্জ এলাকায় মৃতঃ ইকরাম হোসেন দেওয়ান এর বাড়ীর পার্শবর্তী সীমানার মোহাম্মদ আলী ড্রেনের পাইপ বসানোকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি থেকে এক পর্যায়ে মারামারি ঘটনার সৃষ্টি হয়।মোহাম্মদ আলীর পরিবারের আঘাতে ইকরাম হোসেনের পরিবারের ৩ জন গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
ছোট ছেলে শফিকুল ইসলাম বুলবুল জানান,  মোহাম্মদ আলী আজ সকালে জোরপূর্বক ড্রেনের পাইপ বসাতে গেলে ইকরাম হোসেন দেওয়ানের স্ত্রী কাজে বাধা দিতে গেলে মোহাম্মদ আলীসহ তার স্ত্রী ইকমার হোসেন দেওয়ানের স্ত্রী ছালমা বেগম(৫০)কে মারতে থাকে তাকে বাঁচাতে গেলে মেয়ে ইসরাত জাহান মাহমুদা(৩০)কে কিল গুসি মারে খবরপেয়ে ছোট ছেলে শফিকুল ইসলাম বুলবুল(২৫) উপস্থিত হয়ে এলাকার লোকদের সহযোগিতায় মাওবোনকে হাসপাতালে নিয়ে আসার পথে মোহাম্মদ আলীর ছেলে সবুজ রাস্তার গতিরোধ করে বুলবুল ও মাহমুদাকে প্রকাশ্যে মারধরকরে। অনেকে এ ঘটনা দেখে এগিয়ে আসলে সবুজ দৌড়ে পালিয়ে যায়। ইকরামের পরিবার চিকিৎসার জন্য খানপুর ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আসলে জরুরী বিভাগের কর্মরত চিকিৎসক অমিতকুমার রায় প্রাথমিক চিকিৎসা করে রুগীদের অবস্থা ঘুরুতর দেখে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন।বর্তমানে একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে যানা যায়।মোহাম্মদ আলীর সাথে সীমানানিয়ে দীর্ঘ দিন মৃত ইকরাম হোসেন দেওয়ানের পরিবারের সাথে দীমত। এ বিষয়ে একাধিক বার সীমানা মাপামাপি করে ইকরামের সীমানা সঠিক আছে বলে জানা তাদের দাবী।
ঘটনার বিষয়ে ইকরাম হোসেন দেওয়ানের মেয়ে বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় মোহাম্মদ আলী, তার স্ত্রীসালামা আক্তার, ছেলে সবুজ ও সিফাতকে আসামী করে একটি অভিযোগ করেন।
ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত

হাজীগঞ্জে জমির সীমানাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় মা ছেলে গুরুতর আহত

আপডেট সময় : ০৬:৪৫:৩৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ জানুয়ারী ২০১৯
নিজস্ব প্রতিনিধীঃ ফতুল্লা থানাধীন হাজীগঞ্জ এলাকায় মৃতঃ ইকরাম হোসেন দেওয়ান এর বাড়ীর পার্শবর্তী সীমানার মোহাম্মদ আলী ড্রেনের পাইপ বসানোকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি থেকে এক পর্যায়ে মারামারি ঘটনার সৃষ্টি হয়।মোহাম্মদ আলীর পরিবারের আঘাতে ইকরাম হোসেনের পরিবারের ৩ জন গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
ছোট ছেলে শফিকুল ইসলাম বুলবুল জানান,  মোহাম্মদ আলী আজ সকালে জোরপূর্বক ড্রেনের পাইপ বসাতে গেলে ইকরাম হোসেন দেওয়ানের স্ত্রী কাজে বাধা দিতে গেলে মোহাম্মদ আলীসহ তার স্ত্রী ইকমার হোসেন দেওয়ানের স্ত্রী ছালমা বেগম(৫০)কে মারতে থাকে তাকে বাঁচাতে গেলে মেয়ে ইসরাত জাহান মাহমুদা(৩০)কে কিল গুসি মারে খবরপেয়ে ছোট ছেলে শফিকুল ইসলাম বুলবুল(২৫) উপস্থিত হয়ে এলাকার লোকদের সহযোগিতায় মাওবোনকে হাসপাতালে নিয়ে আসার পথে মোহাম্মদ আলীর ছেলে সবুজ রাস্তার গতিরোধ করে বুলবুল ও মাহমুদাকে প্রকাশ্যে মারধরকরে। অনেকে এ ঘটনা দেখে এগিয়ে আসলে সবুজ দৌড়ে পালিয়ে যায়। ইকরামের পরিবার চিকিৎসার জন্য খানপুর ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য আসলে জরুরী বিভাগের কর্মরত চিকিৎসক অমিতকুমার রায় প্রাথমিক চিকিৎসা করে রুগীদের অবস্থা ঘুরুতর দেখে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন।বর্তমানে একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে যানা যায়।মোহাম্মদ আলীর সাথে সীমানানিয়ে দীর্ঘ দিন মৃত ইকরাম হোসেন দেওয়ানের পরিবারের সাথে দীমত। এ বিষয়ে একাধিক বার সীমানা মাপামাপি করে ইকরামের সীমানা সঠিক আছে বলে জানা তাদের দাবী।
ঘটনার বিষয়ে ইকরাম হোসেন দেওয়ানের মেয়ে বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় মোহাম্মদ আলী, তার স্ত্রীসালামা আক্তার, ছেলে সবুজ ও সিফাতকে আসামী করে একটি অভিযোগ করেন।