নারায়ণগঞ্জ ০২:২৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

 মুসিলম মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে হিন্দু ছেলে  কর্তৃক ধর্ষনের শিকার

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:০৯:৩৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০১৮
  • ৬২ বার পড়া হয়েছে

ফতুল্লা প্রতিনিধি : ফতুল্লার জামতলা এলাকায় ২২ বছর বয়েসী এক মুসলিম যুবতী মেয়েকে হিন্দু সম্প্রদায়ের শংকর দাস নামের এক লম্পট যুবক বিয়ের প্রলোভন দিয়ে বেশ কয়েক বার ধর্ষনে দুই মাসের অন্ত:সত্ত¡া করেছে। এ ঘটনা ঘটনায় ঐ ধর্ষিতা বাদী হয়ে লম্পট শংকরের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছে। মামলা নং- ১(৯)১৮ ।
এই মামলর অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ফতুল্লার জামতলা হীরা কমিউনিটি সেন্টারের পাশে ীপরোজ মিয়া। তার মেয়ে আসমা (ছদ্মনাম)। তার সাথে এনায়েত নগর ধর্মগঞ্জ এলাকার গোবিন্দ দাসের ছেলে শঙকর দাসের সাথে ফোনে রং নম্বওে ফোনে পরিচয় হয়। এক পর্যায় শংকর দাস ফিরোজ মিয়ার মেয়েকে ফুসলিয়ে ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে তুলে । শংকর দাস (২৫) সনাতন ধর্ম ছেঢ়ে মুসলমান হবে এমন প্রতিশ্রæতি দিয়ে আসমার সাথে ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে। ভালোবাসার টানে আসমা তাকে তার বাসায় বেড়াতে আসতে বলে । সে চলে আসে এসময় তার বাসায় কেহ না থাকায় শংকর দাস বিয়ের প্রলোভন দিয়ে গত ২৫ মে ২০১৮ বিকেল সাড়ে ৫টায় শাররিক মেলামেশা করে। গত ২৫ আগষ্ট ২০১৮ইং রাত সাড়ে ৮টায় আসমা তাকে ধর্ম পরিবর্তন করে বিয়ের কথা বললে সে রাজি হয়ে আবার তার সাথে শাররিক মেলামেশা করে। এসময় আসমা (ছদ্মনাম) তাকে জানায় সে দুই মাসের অন্ত:সত্ত¡া। এই কথা শুনার পরে সে বিয়ে না করার জন্য নানা অজুহাত দিয়ে পালিয়ে যায়।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

 মুসিলম মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে হিন্দু ছেলে  কর্তৃক ধর্ষনের শিকার

আপডেট সময় : ০৬:০৯:৩৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ফতুল্লা প্রতিনিধি : ফতুল্লার জামতলা এলাকায় ২২ বছর বয়েসী এক মুসলিম যুবতী মেয়েকে হিন্দু সম্প্রদায়ের শংকর দাস নামের এক লম্পট যুবক বিয়ের প্রলোভন দিয়ে বেশ কয়েক বার ধর্ষনে দুই মাসের অন্ত:সত্ত¡া করেছে। এ ঘটনা ঘটনায় ঐ ধর্ষিতা বাদী হয়ে লম্পট শংকরের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছে। মামলা নং- ১(৯)১৮ ।
এই মামলর অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ফতুল্লার জামতলা হীরা কমিউনিটি সেন্টারের পাশে ীপরোজ মিয়া। তার মেয়ে আসমা (ছদ্মনাম)। তার সাথে এনায়েত নগর ধর্মগঞ্জ এলাকার গোবিন্দ দাসের ছেলে শঙকর দাসের সাথে ফোনে রং নম্বওে ফোনে পরিচয় হয়। এক পর্যায় শংকর দাস ফিরোজ মিয়ার মেয়েকে ফুসলিয়ে ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে তুলে । শংকর দাস (২৫) সনাতন ধর্ম ছেঢ়ে মুসলমান হবে এমন প্রতিশ্রæতি দিয়ে আসমার সাথে ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে। ভালোবাসার টানে আসমা তাকে তার বাসায় বেড়াতে আসতে বলে । সে চলে আসে এসময় তার বাসায় কেহ না থাকায় শংকর দাস বিয়ের প্রলোভন দিয়ে গত ২৫ মে ২০১৮ বিকেল সাড়ে ৫টায় শাররিক মেলামেশা করে। গত ২৫ আগষ্ট ২০১৮ইং রাত সাড়ে ৮টায় আসমা তাকে ধর্ম পরিবর্তন করে বিয়ের কথা বললে সে রাজি হয়ে আবার তার সাথে শাররিক মেলামেশা করে। এসময় আসমা (ছদ্মনাম) তাকে জানায় সে দুই মাসের অন্ত:সত্ত¡া। এই কথা শুনার পরে সে বিয়ে না করার জন্য নানা অজুহাত দিয়ে পালিয়ে যায়।