নারায়ণগঞ্জ ০১:৪৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ফতুল্লায় শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যা

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:১৪:২০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৫ জানুয়ারী ২০১৮
  • ২৫ বার পড়া হয়েছে

ফতুল্লার বক্তাবলি লক্ষিনগর গ্রামে দেলোয়ার হোসেন (৩৫) নামে এক ইটভাটার শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহতের শরীরে একাধিক ছুরিকাঘাত রয়েছে। শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে স্থানীয় লোকজন ওই গ্রামের আশিক ব্রিকফিল্ডে লাশটি পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়।

এরই মধ্যে নিহতের ভাই জসিম উদ্দিন ঘটনাস্থলে লাশটি তার ভাই দেলোয়ার বলে শনাক্ত করেন। খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। নিহত দেলোয়ার হোসেনের বক্তাবলী ইউনিয়নের গোপালনগর গ্রামের মৃত আলম মিয়ার ছেলে।

নিহতের ছোট ভাই জসিম উদ্দিন বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে স্থানীয় পুলিশ সোর্স আলমগীর হোসেন ও সফি দেলোয়ারকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। নিহত দেলোয়ারের দুই মেয়ে ও স্ত্রী আছে। তিনি ইটভাটার ট্রলার চালক ছিলেন।

ফতুল্লা মডেল থানার এসআই ফজলুল হক জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি একটি খুন। লাশের পাশে ইয়াবা মাদক সেবনের সরঞ্জাম পাওয়া গেছে। ইটভাটার মালিক অলিউল্লাহ, কর্মকর্তা ও শ্রমিকদের কাউকে পাওয়া যায়নি।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

ফতুল্লায় শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যা

আপডেট সময় : ০২:১৪:২০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৫ জানুয়ারী ২০১৮

ফতুল্লার বক্তাবলি লক্ষিনগর গ্রামে দেলোয়ার হোসেন (৩৫) নামে এক ইটভাটার শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহতের শরীরে একাধিক ছুরিকাঘাত রয়েছে। শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে স্থানীয় লোকজন ওই গ্রামের আশিক ব্রিকফিল্ডে লাশটি পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়।

এরই মধ্যে নিহতের ভাই জসিম উদ্দিন ঘটনাস্থলে লাশটি তার ভাই দেলোয়ার বলে শনাক্ত করেন। খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। নিহত দেলোয়ার হোসেনের বক্তাবলী ইউনিয়নের গোপালনগর গ্রামের মৃত আলম মিয়ার ছেলে।

নিহতের ছোট ভাই জসিম উদ্দিন বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে স্থানীয় পুলিশ সোর্স আলমগীর হোসেন ও সফি দেলোয়ারকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। নিহত দেলোয়ারের দুই মেয়ে ও স্ত্রী আছে। তিনি ইটভাটার ট্রলার চালক ছিলেন।

ফতুল্লা মডেল থানার এসআই ফজলুল হক জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি একটি খুন। লাশের পাশে ইয়াবা মাদক সেবনের সরঞ্জাম পাওয়া গেছে। ইটভাটার মালিক অলিউল্লাহ, কর্মকর্তা ও শ্রমিকদের কাউকে পাওয়া যায়নি।