নারায়ণগঞ্জ ০৩:৪১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
নারায়ণগঞ্জে ৩টি উপজেলায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন যারা গুণী জনদের পদচারণায়  উদযাপিত  দৈনিক আজকের নীর বাংলা পত্রিকা’র ১৫ তম  বর্ষপূর্তি সিদ্ধিরগঞ্জে রাজউকের অভিযানে ক্ষুব্ধ ভবন মালিকরা রেকমত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের মজিবুর রহমান সভাপতির দায়িত্ব নিয়েই শিক্ষার মান উন্নয়নের তাগিদ অস্ত্রের লাইসেন্সের আবেদন না করেও অপপ্রচারের শিকার মহিউদ্দিন মোল্লা ! সাংবাদিক শাওনের বাবা ফিরোজ আহমেদ আর নেই রিয়াদে জমকালো আয়োজনে মাই টিভির ১৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন রিয়াদে প্রিমিয়াম ফুটবল লীগের ফাইনাল অনুষ্ঠিত জুন মাসের ১৭ তারিখ কোরবানির ঈদ পালিত হওয়ার সম্ভবনা রিয়াদে নোভ আল আম্মার ইষ্টাবলিস্ট এর আয়োজনে দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

বন্দরে পরকীয়া প্রেমিকের হাতে প্রবাসীর স্ত্রী খুন,

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:২৯:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৭
  • ২৮৬ বার পড়া হয়েছে

বন্দরে দাবীকৃত টাকা না দেয়ায় পরকীয়া প্রেমিকের হাতে খুন হয়েছেন সৌদি প্রবাসীর স্ত্রী তানিয়া বেগম (৩৫)। উপজেলার চৌধুরিবাড়ি কলাবাগ এলাকায় রোববার সকালে এ হত্যাকান্ড ঘটে।
ঘটনার দায়ে অভিযুক্ত প্রেমিক ইকবালকে তানিয়ার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনসহ পুলিশ আটক করেছে। নিহতের পরিবার পরিকল্পিত হত্যাকান্ড দাবী করে আসামীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন। তবে পুলিশ বলছে, বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, ২০০৫ সালে পুরান বন্দর এলাকার তাজুল ইসলামের কন্যা তানিয়া আক্তারের সাথে কলাবাগ এলাকার বাসিন্দা সৌদি প্রবাসী নূর হোসেনের সামাজিকভাবে বিয়ে হয়। তাদের দুইটি কন্যা সন্তানও রয়েছে। দেড় বছর আগে নূর হোসেনের বাড়ির নির্মান কাজের সময় তার স্ত্রী তানিয়ার সাথে টাইলস মিস্ত্রী ইকবাল মিয়ার মধ্যে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। ইকবাল মিয়ার স্ত্রী জর্ডান প্রবাসী। দুই ছেলে মেয়ে নিয়ে সে একই এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকে।

পরকীয়া প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে ইকবাল মিয়া তানিয়াকে জিম্মি করে বিভিন্ন সময়ে নগদ টাকা আদায় করে আসছে। তানিয়ার শ্বশুর বাড়ির অন্যান্য সদস্যরাও বিষয়টি জানতো। শনিবার রাতে ইকবাল মিয়া একই উদ্দেশ্যে মোবাইল ফোনে কল দিয়ে আবারো টাকা চাইলে তানিয়া টাকা নেই বলে জানায়। ওই ক্ষোভের কারনে রাতের যে কোন সময় ইকবাল মিয়া বাড়িতে ঢুকে তানিয়াকে শারীরিক নির্যাতনসহ গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।

এ সময় তানিয়ার গোঙানির শব্দে তার ঘুমন্ত কন্যা নুসরাত জেগে উঠে ইকবালকে পালিয়ে যেতে দেখে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ তানিয়ার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। পরে পুলিশ ঘাতক ইকবাল মিয়াকে আটক করে। নিহত তানিয়ার পরিবার হত্যাকান্ডের সুষ্ঠু তদন্তসহ ঘাতক ইকবালের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: আবুল কালাম জানান, আটককৃত ইকবালের কাছ থেকে তানিয়ার মোবাইল ফোন উদ্ধারের বিষয়টি ও প্রাথমিক তদন্তে হত্যাকান্ডের সাথে তার জড়িত থাকার প্রমান পাওয়া গেছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। তদন্তের পর যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এ ব্যাপারে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

নারায়ণগঞ্জে ৩টি উপজেলায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন যারা

বন্দরে পরকীয়া প্রেমিকের হাতে প্রবাসীর স্ত্রী খুন,

আপডেট সময় : ০১:২৯:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৭

বন্দরে দাবীকৃত টাকা না দেয়ায় পরকীয়া প্রেমিকের হাতে খুন হয়েছেন সৌদি প্রবাসীর স্ত্রী তানিয়া বেগম (৩৫)। উপজেলার চৌধুরিবাড়ি কলাবাগ এলাকায় রোববার সকালে এ হত্যাকান্ড ঘটে।
ঘটনার দায়ে অভিযুক্ত প্রেমিক ইকবালকে তানিয়ার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনসহ পুলিশ আটক করেছে। নিহতের পরিবার পরিকল্পিত হত্যাকান্ড দাবী করে আসামীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন। তবে পুলিশ বলছে, বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, ২০০৫ সালে পুরান বন্দর এলাকার তাজুল ইসলামের কন্যা তানিয়া আক্তারের সাথে কলাবাগ এলাকার বাসিন্দা সৌদি প্রবাসী নূর হোসেনের সামাজিকভাবে বিয়ে হয়। তাদের দুইটি কন্যা সন্তানও রয়েছে। দেড় বছর আগে নূর হোসেনের বাড়ির নির্মান কাজের সময় তার স্ত্রী তানিয়ার সাথে টাইলস মিস্ত্রী ইকবাল মিয়ার মধ্যে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। ইকবাল মিয়ার স্ত্রী জর্ডান প্রবাসী। দুই ছেলে মেয়ে নিয়ে সে একই এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকে।

পরকীয়া প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে ইকবাল মিয়া তানিয়াকে জিম্মি করে বিভিন্ন সময়ে নগদ টাকা আদায় করে আসছে। তানিয়ার শ্বশুর বাড়ির অন্যান্য সদস্যরাও বিষয়টি জানতো। শনিবার রাতে ইকবাল মিয়া একই উদ্দেশ্যে মোবাইল ফোনে কল দিয়ে আবারো টাকা চাইলে তানিয়া টাকা নেই বলে জানায়। ওই ক্ষোভের কারনে রাতের যে কোন সময় ইকবাল মিয়া বাড়িতে ঢুকে তানিয়াকে শারীরিক নির্যাতনসহ গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।

এ সময় তানিয়ার গোঙানির শব্দে তার ঘুমন্ত কন্যা নুসরাত জেগে উঠে ইকবালকে পালিয়ে যেতে দেখে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ তানিয়ার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। পরে পুলিশ ঘাতক ইকবাল মিয়াকে আটক করে। নিহত তানিয়ার পরিবার হত্যাকান্ডের সুষ্ঠু তদন্তসহ ঘাতক ইকবালের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: আবুল কালাম জানান, আটককৃত ইকবালের কাছ থেকে তানিয়ার মোবাইল ফোন উদ্ধারের বিষয়টি ও প্রাথমিক তদন্তে হত্যাকান্ডের সাথে তার জড়িত থাকার প্রমান পাওয়া গেছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। তদন্তের পর যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এ ব্যাপারে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।