নারায়ণগঞ্জ ১১:০৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঘুষখোর সৃষ্টি কারীদের ক্ষমতায় থাকার অধিকার নাই : টিপু

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:০৭:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০১৭
  • ৫০ বার পড়া হয়েছে

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য জননেতা কমরেড আবু হাসান টিপু বলেছেন, মন্ত্রী পরিষদের আত্মস্বীকৃত চোর ও ‘সহনীয় মাত্রায়’ ঘুষখোর সৃষ্টি কারীদের স্বীকারোক্তি মূলক উন্মুক্ত জবানবন্ধির পর এই সরকারের নিশ্চয় রাষ্ট্র ক্ষমতাতে থাকার আর কোন নৈতিক অধিকার থাকে না।
বুধবার (২৭ ডিসেম্বর) সকালে কালির বাজার পুরাতন কোর্ট চত্তরের পার্টি কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, সম্প্রতি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শন ও নিরিক্ষা অধিদপ্তরে ডিজিটাল মনিটরিং ব্যবস্থার উপর এক প্রশিক্ষণ-এর সমাপনী অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী তার বক্তব্যে এবার অর্থমন্ত্রীর মত থলের বিড়াল বের করে দিয়েছেন, সত্য বলেছেন।

প্রধানমন্ত্রী তার মন্ত্রী পরিষদের এইসব ‘মান্যবর’ আত্মস্বীকৃত ‘চোরদের’ ব্যাপারে আদৌ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন নাকি সরকারের মেয়াদ পূর্তির সম্ভাব্য বাকী এক বছর এদেরকে নিয়েই তার ‘উন্নয়নের রাজনীতি’ অব্যাহত রাখবেন। এ ব্যাপারে ইতিমধ্যে জনমনে উৎকন্ঠা দেখা দিয়েছে। আর তাই এই সকল আত্মস্বীকৃত চোর ও ‘সহনীয় মাত্রায়’ ঘুষখোর সৃষ্টি কারীদের ক্ষমতায় থাকার নৈতিক অধিকার নাই।

বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি জননেতা কমরেড মাহমুদ হোসেনের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন, রাশিদা বেগম, হাবিবুর রহমান আঙ্গুর, সাইফুল ইসলাম, নাজমুল হাসান নান্নসহ আরো অনেকে।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

ঘুষখোর সৃষ্টি কারীদের ক্ষমতায় থাকার অধিকার নাই : টিপু

আপডেট সময় : ০৫:০৭:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০১৭

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য জননেতা কমরেড আবু হাসান টিপু বলেছেন, মন্ত্রী পরিষদের আত্মস্বীকৃত চোর ও ‘সহনীয় মাত্রায়’ ঘুষখোর সৃষ্টি কারীদের স্বীকারোক্তি মূলক উন্মুক্ত জবানবন্ধির পর এই সরকারের নিশ্চয় রাষ্ট্র ক্ষমতাতে থাকার আর কোন নৈতিক অধিকার থাকে না।
বুধবার (২৭ ডিসেম্বর) সকালে কালির বাজার পুরাতন কোর্ট চত্তরের পার্টি কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, সম্প্রতি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শন ও নিরিক্ষা অধিদপ্তরে ডিজিটাল মনিটরিং ব্যবস্থার উপর এক প্রশিক্ষণ-এর সমাপনী অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী তার বক্তব্যে এবার অর্থমন্ত্রীর মত থলের বিড়াল বের করে দিয়েছেন, সত্য বলেছেন।

প্রধানমন্ত্রী তার মন্ত্রী পরিষদের এইসব ‘মান্যবর’ আত্মস্বীকৃত ‘চোরদের’ ব্যাপারে আদৌ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন নাকি সরকারের মেয়াদ পূর্তির সম্ভাব্য বাকী এক বছর এদেরকে নিয়েই তার ‘উন্নয়নের রাজনীতি’ অব্যাহত রাখবেন। এ ব্যাপারে ইতিমধ্যে জনমনে উৎকন্ঠা দেখা দিয়েছে। আর তাই এই সকল আত্মস্বীকৃত চোর ও ‘সহনীয় মাত্রায়’ ঘুষখোর সৃষ্টি কারীদের ক্ষমতায় থাকার নৈতিক অধিকার নাই।

বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি জননেতা কমরেড মাহমুদ হোসেনের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন, রাশিদা বেগম, হাবিবুর রহমান আঙ্গুর, সাইফুল ইসলাম, নাজমুল হাসান নান্নসহ আরো অনেকে।