নারায়ণগঞ্জ ১২:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত আদমজী ইপিজেডকে অশান্ত করছে জনপ্রতিনিধিরা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে মহিলা লীগ নেত্রীর শুভেচ্ছা বিনিময় না’গঞ্জ কারাগারে হাজতীর মৃত্যু ফতুল্লায় চোরাইকৃত ট্যাংকলড়ী উদ্ধার আড়াইহাজারের মিথিলা টেক্সটাইল ঘুরে গেলেন ৮ দেশের রাষ্ট্রদূতসহ ১৮ দেশের প্রতিনিধি সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে কাউন্সিলর ইকবাল হোসেনের মতবিনিময় ফতুল্লা ব্লাড ডোনার্সের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ শিক্ষা সিলেবাস বাতিলের দাবিতে খেলাফত মজলিসের বিক্ষোভ মিছিল সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শহরে নারী সমাবেশ ও মিছিল

কাউন্সিলর প্রার্থী মাহমুদের পাশে ফারুকের গোয়েন্দা

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:১০:১৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ নভেম্বর ২০২১
  • ৮৬ বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জের একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: আলমগীর কবির সুমন। শিক্ষাব্যবসায়ী ও টাইট মাদবর হিসেবে তার বহু বদনাম রয়েছে। এখন তিনি নির্বাচনি ব্যবসায় নেমেছেন। নাসিক ১ নং ওয়ার্ডের সম্ভাব্য বিভিন্ন প্রার্থীদের কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চাই ব্যানার লাগিয়ে চরম বিতর্কিত হয়ে উঠেছেন টাউট মাদবর সুমন। মুখের দাঁড়ি নিয়েও করছেন মশকরা।
জানা গেছে, নাসিক ১ নং ওয়ার্ডের হাজী রহিমা মডেল স্কুলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: আলমগীর কবির সুমন দাঁড়ি ছাড়া একটি ছবি দিয়ে হাজী ওমর ফারুককে পুনরায় কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চাই ব্যানার লাগিয়েছে বিভিন্ন স্থানে। আবার এই টাউট সুমন মুখে দাঁড়ি ছবি দিয়ে হাজী মাহমুদুর রহমানকে কাউন্সিলর হিসেবে পেতে চাই ব্যানার লাগিয়েছে। গোপনে আবার আরেক প্রার্থী হাজী আনোয়ার ইসলামের পক্ষেও উঠান বৈঠকে যোগদেয়। এলাকার বহুল আলোচিত মাদকের ডিলার টাইগার ফারুকের সাথেও রয়েছে তার ঘনিষ্টতা। প্রার্থীদের কাছ থেকে অর্থিক সুবিধা পেতে সুমন কর্মী সাজার পন্থি করেছে। কেহ কেহ মনে করছে মাহমুদুর রহমানের সাথে থেকে তার নির্বাচনী পরিকল্পনা ও গোপন তথ্যতি প্রতিপক্ষ কাউন্সিলর প্রার্থী ফারুকের কাছে পাচার করার জন্য সুমন গোয়েন্দা হিসেবে কাছ করছে। কারণ অর্থ লোভীরা টাকার জন্য যে কোন লোকের সর্বনাশ করতে দ্বিদাবোধ করেনা। সুমন তারই একজন।
এবিষয়ে নাসিক ১ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর হাজী ওমর ফারুক বলেন, সুমন একসময় আমার কর্মী ছিল। সে আমার সাথে থেকে আমার বিরুদ্ধেই ষড়যন্ত্র করতো। বিভিন্ন চলচাতুরি করে টাকা হাতিয়ে নিত। তাই তাকে আমার কাছ থেকে তাড়িয়ে দিয়েছি। এমন দুই মুখী লোক আমার দরকার নাই।
জানতে চাইলে আলমগীর কবির সুমন বলেন, কাউন্সিলর ওমর ফারুক আমার বন্ধু মানুষ। আমি চাই সে আবার কাউন্সিলর হক। কিন্তু যথন থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি মজিবুর রহমানের ছেলে মাহমুদুর রহমান নির্বাচন করার ঘোষনা দিয়েছেন তখন বন্ধু ফারুকের সাথে আলাপ আলোচনা করেই মাহমুদুর রহমানের পক্ষে নির্বাচন করার জন্য মাঠে নেমেছি।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত

কাউন্সিলর প্রার্থী মাহমুদের পাশে ফারুকের গোয়েন্দা

আপডেট সময় : ০১:১০:১৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ নভেম্বর ২০২১

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জের একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: আলমগীর কবির সুমন। শিক্ষাব্যবসায়ী ও টাইট মাদবর হিসেবে তার বহু বদনাম রয়েছে। এখন তিনি নির্বাচনি ব্যবসায় নেমেছেন। নাসিক ১ নং ওয়ার্ডের সম্ভাব্য বিভিন্ন প্রার্থীদের কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চাই ব্যানার লাগিয়ে চরম বিতর্কিত হয়ে উঠেছেন টাউট মাদবর সুমন। মুখের দাঁড়ি নিয়েও করছেন মশকরা।
জানা গেছে, নাসিক ১ নং ওয়ার্ডের হাজী রহিমা মডেল স্কুলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: আলমগীর কবির সুমন দাঁড়ি ছাড়া একটি ছবি দিয়ে হাজী ওমর ফারুককে পুনরায় কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চাই ব্যানার লাগিয়েছে বিভিন্ন স্থানে। আবার এই টাউট সুমন মুখে দাঁড়ি ছবি দিয়ে হাজী মাহমুদুর রহমানকে কাউন্সিলর হিসেবে পেতে চাই ব্যানার লাগিয়েছে। গোপনে আবার আরেক প্রার্থী হাজী আনোয়ার ইসলামের পক্ষেও উঠান বৈঠকে যোগদেয়। এলাকার বহুল আলোচিত মাদকের ডিলার টাইগার ফারুকের সাথেও রয়েছে তার ঘনিষ্টতা। প্রার্থীদের কাছ থেকে অর্থিক সুবিধা পেতে সুমন কর্মী সাজার পন্থি করেছে। কেহ কেহ মনে করছে মাহমুদুর রহমানের সাথে থেকে তার নির্বাচনী পরিকল্পনা ও গোপন তথ্যতি প্রতিপক্ষ কাউন্সিলর প্রার্থী ফারুকের কাছে পাচার করার জন্য সুমন গোয়েন্দা হিসেবে কাছ করছে। কারণ অর্থ লোভীরা টাকার জন্য যে কোন লোকের সর্বনাশ করতে দ্বিদাবোধ করেনা। সুমন তারই একজন।
এবিষয়ে নাসিক ১ নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর হাজী ওমর ফারুক বলেন, সুমন একসময় আমার কর্মী ছিল। সে আমার সাথে থেকে আমার বিরুদ্ধেই ষড়যন্ত্র করতো। বিভিন্ন চলচাতুরি করে টাকা হাতিয়ে নিত। তাই তাকে আমার কাছ থেকে তাড়িয়ে দিয়েছি। এমন দুই মুখী লোক আমার দরকার নাই।
জানতে চাইলে আলমগীর কবির সুমন বলেন, কাউন্সিলর ওমর ফারুক আমার বন্ধু মানুষ। আমি চাই সে আবার কাউন্সিলর হক। কিন্তু যথন থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি মজিবুর রহমানের ছেলে মাহমুদুর রহমান নির্বাচন করার ঘোষনা দিয়েছেন তখন বন্ধু ফারুকের সাথে আলাপ আলোচনা করেই মাহমুদুর রহমানের পক্ষে নির্বাচন করার জন্য মাঠে নেমেছি।