নারায়ণগঞ্জ ০৪:২২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
নাসিকের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় গর্ভবতীর পোশাক শ্রমিক নিহত সোনারগাঁয়ের ১টি হত্যা মামলার প্রধান আসামিসহ দুজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১ নারায়ণগঞ্জে ৩টি উপজেলায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন যারা গুণী জনদের পদচারণায়  উদযাপিত  দৈনিক আজকের নীর বাংলা পত্রিকা’র ১৫ তম  বর্ষপূর্তি সিদ্ধিরগঞ্জে রাজউকের অভিযানে ক্ষুব্ধ ভবন মালিকরা রেকমত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের মজিবুর রহমান সভাপতির দায়িত্ব নিয়েই শিক্ষার মান উন্নয়নের তাগিদ অস্ত্রের লাইসেন্সের আবেদন না করেও অপপ্রচারের শিকার মহিউদ্দিন মোল্লা ! সাংবাদিক শাওনের বাবা ফিরোজ আহমেদ আর নেই রিয়াদে জমকালো আয়োজনে মাই টিভির ১৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন রিয়াদে প্রিমিয়াম ফুটবল লীগের ফাইনাল অনুষ্ঠিত

নাসিক ৮ নং ওয়ার্ড পশ্চিম এনায়েতনগর বাইতুল আমান জামে মসজিদ নিয়ে এ-কি কান্ড!

নিজস্ব প্রতিবেদক : গতশুক্রবার পশ্চিম এনায়েতনগর বাইতুল আমান জামে মসজিদ এর নতুন কমিটি প্রত্যাখান করে মৃত দিল মোহাম্মদ এর পক্ষ ও সাধারণ জনগন বিক্ষোভ করেন।

তথ্য নিয়ে জানা যায়, দিল মোহাম্মদ ও তার ওয়ারিশগন ৫ শতাংশ জমি দান করেন মসজিদ এর জন্য। দিল মোহাম্মদ মসজিদ এর মোতয়াল্লী থেকে পশ্চিম এনায়েতনগরের গন্যমান্য ব্যক্তি নিয়ে মসজিদের কমিটি করে চালিয়ে আসছিলেন।মোতয়াল্লী দিল মোহাম্মদ মারা যাওয়ার পরও এভাবেই মসজিদের কাজকর্ম চলছিল।

কিন্তু গত শুক্রবার কুচক্রিমহল জুমার নামাজের বয়ানের সময় নতুন কমিটি ঘোষনা দেওয়ার সময় দিল মোহাম্মদ এর ওয়ারিশরা বিক্ষোভ করে প্রতিবাদ করেন । তারা বলেন আমরা এই কমিটি মানি না। কারন তারা আমাদের সাথে আলাপ আলোচনা না করেই যুবলীগ নামধারী মোঃ অহিদ আলম সভাপতি ও সাংবাদিক নামধারী আজিজুল মেম্বারের ছেলে মোঃ এমরান হোসেন কে মোতয়াল্লী সাধারন সম্পাদক করে কমিটি কি করে ঘোষনা দেয়। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

কারন মসজিদের যদি মোতয়াল্লী হতে হয় তাহলে দিল মোহাম্মদ এর পরিবার থেকে বা বয়োজ্যেষ্ঠ কোন ব্যক্তি হবেন, এটাই নিয়ম । যদি তার পরিবার থেকে কেউ হতে না চায় তাহলে অন্যপরিবার থেকে হতে পারেন। তারা আমাদের সাথে কোন আলাপ আলোচনা না করেই নিজেরা কমিটি ঘোষনা করতে চান, এটা কি মগের মুল্লুক? এ সম্পূর্ণ অযুক্তিক ক্ষমতা ও গায়ের জোরে করা হয়েছে।

মৃত দিল মোহাম্মদ এর ওয়ারিশরা আরও বলেন এমরান কিভাবে মোতয়াল্লী হয়? আমরা জানতে পারি মসজিদের টাকা দিয়ে আজিজুল মেম্বার তার নিজের নামে ৩ শতংশ জমি ক্রয় করেন যা মসজিদের খাতে দেওয়া হয়। সেই সুত্রে এমরান নিজেকে মোতয়াল্লী দাবী করেন। এটা সম্পূর্ণ বেআাইনী যা ইসলামী নিয়মতান্ত্রিক হিসেবে মসজিদের মোতয়াল্লী হতে পারে না, তাছাড়া আজিজুল মেম্বার তার নিজের অর্জিত টাকা দিয়ে এই জমি নিষ্কন্টক ভাবে ক্রয় করা হয়নি। এটা আমরা মানি না।

জুমার নামাজের সময় যখন কোলাহল ও হাতাহাতি চলছিল তখন জুমার নামাজ আদায় করতে মুসুল্লিরা অন্য মসজিদে চলে যায়। এভাবে যখন চলতে থাকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পুলিশ এসে ব্যাপারটা এলাকার মুরুব্বিদের দায়িত্ব দেন। তারপর বলে যান এটা বড় ন্যাক্কারজনক ঘটনা। কমিটি স্থগিত রাখতে বলেন। আছরের নামাজের সময়ও আবার এমরান ও অহিদুল আলম গ্যাং-রা গায়ের জোরে মসজিদ দখল করতে চান। তখনও দিল মোহাম্মদ পক্ষ আবার বিক্ষোভ করেন।

আবারও সিদ্ধিরগঞ্জ থানার হস্তক্ষেপ এর কারনে এবং কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা এসে দায়িত্ব নেন। সবাইকে বলেন আমি দুদিনের মধ্যে ব্যাপারটা সুরাহা করে দিবো। আপনারা কেউ মসজিদ নিয়ে কোলাহল করবেন না। বাংলাদেশের প্রতিটি মসজিদ নিয়ে রাজনীতি শুরু হয়েছে। কারন এরা মুসলমান নামধারী কলংক। সব কিছু খেয়ে তারা এখন মসজিদ কে খেতে চায়।

এনায়েতনগর এলাকাবাসী কথিত সাংবাদিক এমরান ও অহিদ আলম এর কাছ থেকে মুক্তি চায়। কারন এদের হাতে মসজিদ চলে গেলে এলাকায় অশান্তি বিরাজ করবে। মসজিদ শান্তির জায়গা এখানে এমরান ও অহিদ গ্যাং-রা অশান্তি সৃষ্টি করছে। পশ্চিম এনায়েতনগর এলাকাবাসী এর বিচার চায়। এরা কারা? সমাজে এরা কি করে ? এর সুষ্ঠু তদন্ত করে আসল মোতোয়ালি দিল মোহাম্মদ এর ওয়ারিশদের প্রাধান্য দিয়ে ব্যাপারটা সুরাহা করবেন বলে আশা রাখেন পশ্চিম এনায়েতনগর বাসী।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

নাসিকের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় গর্ভবতীর পোশাক শ্রমিক নিহত

নাসিক ৮ নং ওয়ার্ড পশ্চিম এনায়েতনগর বাইতুল আমান জামে মসজিদ নিয়ে এ-কি কান্ড!

আপডেট সময় : ১২:৫৩:২৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ মে ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক : গতশুক্রবার পশ্চিম এনায়েতনগর বাইতুল আমান জামে মসজিদ এর নতুন কমিটি প্রত্যাখান করে মৃত দিল মোহাম্মদ এর পক্ষ ও সাধারণ জনগন বিক্ষোভ করেন।

তথ্য নিয়ে জানা যায়, দিল মোহাম্মদ ও তার ওয়ারিশগন ৫ শতাংশ জমি দান করেন মসজিদ এর জন্য। দিল মোহাম্মদ মসজিদ এর মোতয়াল্লী থেকে পশ্চিম এনায়েতনগরের গন্যমান্য ব্যক্তি নিয়ে মসজিদের কমিটি করে চালিয়ে আসছিলেন।মোতয়াল্লী দিল মোহাম্মদ মারা যাওয়ার পরও এভাবেই মসজিদের কাজকর্ম চলছিল।

কিন্তু গত শুক্রবার কুচক্রিমহল জুমার নামাজের বয়ানের সময় নতুন কমিটি ঘোষনা দেওয়ার সময় দিল মোহাম্মদ এর ওয়ারিশরা বিক্ষোভ করে প্রতিবাদ করেন । তারা বলেন আমরা এই কমিটি মানি না। কারন তারা আমাদের সাথে আলাপ আলোচনা না করেই যুবলীগ নামধারী মোঃ অহিদ আলম সভাপতি ও সাংবাদিক নামধারী আজিজুল মেম্বারের ছেলে মোঃ এমরান হোসেন কে মোতয়াল্লী সাধারন সম্পাদক করে কমিটি কি করে ঘোষনা দেয়। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

কারন মসজিদের যদি মোতয়াল্লী হতে হয় তাহলে দিল মোহাম্মদ এর পরিবার থেকে বা বয়োজ্যেষ্ঠ কোন ব্যক্তি হবেন, এটাই নিয়ম । যদি তার পরিবার থেকে কেউ হতে না চায় তাহলে অন্যপরিবার থেকে হতে পারেন। তারা আমাদের সাথে কোন আলাপ আলোচনা না করেই নিজেরা কমিটি ঘোষনা করতে চান, এটা কি মগের মুল্লুক? এ সম্পূর্ণ অযুক্তিক ক্ষমতা ও গায়ের জোরে করা হয়েছে।

মৃত দিল মোহাম্মদ এর ওয়ারিশরা আরও বলেন এমরান কিভাবে মোতয়াল্লী হয়? আমরা জানতে পারি মসজিদের টাকা দিয়ে আজিজুল মেম্বার তার নিজের নামে ৩ শতংশ জমি ক্রয় করেন যা মসজিদের খাতে দেওয়া হয়। সেই সুত্রে এমরান নিজেকে মোতয়াল্লী দাবী করেন। এটা সম্পূর্ণ বেআাইনী যা ইসলামী নিয়মতান্ত্রিক হিসেবে মসজিদের মোতয়াল্লী হতে পারে না, তাছাড়া আজিজুল মেম্বার তার নিজের অর্জিত টাকা দিয়ে এই জমি নিষ্কন্টক ভাবে ক্রয় করা হয়নি। এটা আমরা মানি না।

জুমার নামাজের সময় যখন কোলাহল ও হাতাহাতি চলছিল তখন জুমার নামাজ আদায় করতে মুসুল্লিরা অন্য মসজিদে চলে যায়। এভাবে যখন চলতে থাকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পুলিশ এসে ব্যাপারটা এলাকার মুরুব্বিদের দায়িত্ব দেন। তারপর বলে যান এটা বড় ন্যাক্কারজনক ঘটনা। কমিটি স্থগিত রাখতে বলেন। আছরের নামাজের সময়ও আবার এমরান ও অহিদুল আলম গ্যাং-রা গায়ের জোরে মসজিদ দখল করতে চান। তখনও দিল মোহাম্মদ পক্ষ আবার বিক্ষোভ করেন।

আবারও সিদ্ধিরগঞ্জ থানার হস্তক্ষেপ এর কারনে এবং কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা এসে দায়িত্ব নেন। সবাইকে বলেন আমি দুদিনের মধ্যে ব্যাপারটা সুরাহা করে দিবো। আপনারা কেউ মসজিদ নিয়ে কোলাহল করবেন না। বাংলাদেশের প্রতিটি মসজিদ নিয়ে রাজনীতি শুরু হয়েছে। কারন এরা মুসলমান নামধারী কলংক। সব কিছু খেয়ে তারা এখন মসজিদ কে খেতে চায়।

এনায়েতনগর এলাকাবাসী কথিত সাংবাদিক এমরান ও অহিদ আলম এর কাছ থেকে মুক্তি চায়। কারন এদের হাতে মসজিদ চলে গেলে এলাকায় অশান্তি বিরাজ করবে। মসজিদ শান্তির জায়গা এখানে এমরান ও অহিদ গ্যাং-রা অশান্তি সৃষ্টি করছে। পশ্চিম এনায়েতনগর এলাকাবাসী এর বিচার চায়। এরা কারা? সমাজে এরা কি করে ? এর সুষ্ঠু তদন্ত করে আসল মোতোয়ালি দিল মোহাম্মদ এর ওয়ারিশদের প্রাধান্য দিয়ে ব্যাপারটা সুরাহা করবেন বলে আশা রাখেন পশ্চিম এনায়েতনগর বাসী।