নারায়ণগঞ্জ ১২:৫৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
সোনারগাঁয়ে টেক্সটাইল মিলে ও মিষ্টি কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ড ফতুল্লায় অপহরনকারী চক্রের নারী সদস্যসহ গ্রেপ্তার ৫, অপহৃত উদ্ধার ১৩৯ জন শহীদদের স্মরণে বক্তাবলী ইউনিয়ন ছাত্রদলের শ্রদ্ধাঞ্জলি আড়াইহাজারে ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে মাটি বিক্রি, নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত অভিযোগ আড়াইহাজারে পরীক্ষার হল থেকে ছাত্রীকে নিয়ে উধাও ছাত্রলীগ নেতা দুই মাসের মধ্যে হাইড্রোলিক হর্ন বন্ধের সিদ্ধান্ত জাপান, সৌদি আরবের পর এবার গ্যালারি পরিষ্কার করল মরক্কোর দর্শকরা শিমু হত্যায় স্বামীসহ দুই জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন ২৬ শর্তে বিএনপিকে ঢাকায় সমাবেশের অনুমতি সোনারগাঁয়ে মহাসড়ক বর্ধিতকরণকাজে জনদুর্ভোগ চরমে

নাসিক ৮ নং ওয়ার্ড পশ্চিম এনায়েতনগর বাইতুল আমান জামে মসজিদ নিয়ে এ-কি কান্ড!

নিজস্ব প্রতিবেদক : গতশুক্রবার পশ্চিম এনায়েতনগর বাইতুল আমান জামে মসজিদ এর নতুন কমিটি প্রত্যাখান করে মৃত দিল মোহাম্মদ এর পক্ষ ও সাধারণ জনগন বিক্ষোভ করেন।

তথ্য নিয়ে জানা যায়, দিল মোহাম্মদ ও তার ওয়ারিশগন ৫ শতাংশ জমি দান করেন মসজিদ এর জন্য। দিল মোহাম্মদ মসজিদ এর মোতয়াল্লী থেকে পশ্চিম এনায়েতনগরের গন্যমান্য ব্যক্তি নিয়ে মসজিদের কমিটি করে চালিয়ে আসছিলেন।মোতয়াল্লী দিল মোহাম্মদ মারা যাওয়ার পরও এভাবেই মসজিদের কাজকর্ম চলছিল।

কিন্তু গত শুক্রবার কুচক্রিমহল জুমার নামাজের বয়ানের সময় নতুন কমিটি ঘোষনা দেওয়ার সময় দিল মোহাম্মদ এর ওয়ারিশরা বিক্ষোভ করে প্রতিবাদ করেন । তারা বলেন আমরা এই কমিটি মানি না। কারন তারা আমাদের সাথে আলাপ আলোচনা না করেই যুবলীগ নামধারী মোঃ অহিদ আলম সভাপতি ও সাংবাদিক নামধারী আজিজুল মেম্বারের ছেলে মোঃ এমরান হোসেন কে মোতয়াল্লী সাধারন সম্পাদক করে কমিটি কি করে ঘোষনা দেয়। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

কারন মসজিদের যদি মোতয়াল্লী হতে হয় তাহলে দিল মোহাম্মদ এর পরিবার থেকে বা বয়োজ্যেষ্ঠ কোন ব্যক্তি হবেন, এটাই নিয়ম । যদি তার পরিবার থেকে কেউ হতে না চায় তাহলে অন্যপরিবার থেকে হতে পারেন। তারা আমাদের সাথে কোন আলাপ আলোচনা না করেই নিজেরা কমিটি ঘোষনা করতে চান, এটা কি মগের মুল্লুক? এ সম্পূর্ণ অযুক্তিক ক্ষমতা ও গায়ের জোরে করা হয়েছে।

মৃত দিল মোহাম্মদ এর ওয়ারিশরা আরও বলেন এমরান কিভাবে মোতয়াল্লী হয়? আমরা জানতে পারি মসজিদের টাকা দিয়ে আজিজুল মেম্বার তার নিজের নামে ৩ শতংশ জমি ক্রয় করেন যা মসজিদের খাতে দেওয়া হয়। সেই সুত্রে এমরান নিজেকে মোতয়াল্লী দাবী করেন। এটা সম্পূর্ণ বেআাইনী যা ইসলামী নিয়মতান্ত্রিক হিসেবে মসজিদের মোতয়াল্লী হতে পারে না, তাছাড়া আজিজুল মেম্বার তার নিজের অর্জিত টাকা দিয়ে এই জমি নিষ্কন্টক ভাবে ক্রয় করা হয়নি। এটা আমরা মানি না।

জুমার নামাজের সময় যখন কোলাহল ও হাতাহাতি চলছিল তখন জুমার নামাজ আদায় করতে মুসুল্লিরা অন্য মসজিদে চলে যায়। এভাবে যখন চলতে থাকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পুলিশ এসে ব্যাপারটা এলাকার মুরুব্বিদের দায়িত্ব দেন। তারপর বলে যান এটা বড় ন্যাক্কারজনক ঘটনা। কমিটি স্থগিত রাখতে বলেন। আছরের নামাজের সময়ও আবার এমরান ও অহিদুল আলম গ্যাং-রা গায়ের জোরে মসজিদ দখল করতে চান। তখনও দিল মোহাম্মদ পক্ষ আবার বিক্ষোভ করেন।

আবারও সিদ্ধিরগঞ্জ থানার হস্তক্ষেপ এর কারনে এবং কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা এসে দায়িত্ব নেন। সবাইকে বলেন আমি দুদিনের মধ্যে ব্যাপারটা সুরাহা করে দিবো। আপনারা কেউ মসজিদ নিয়ে কোলাহল করবেন না। বাংলাদেশের প্রতিটি মসজিদ নিয়ে রাজনীতি শুরু হয়েছে। কারন এরা মুসলমান নামধারী কলংক। সব কিছু খেয়ে তারা এখন মসজিদ কে খেতে চায়।

এনায়েতনগর এলাকাবাসী কথিত সাংবাদিক এমরান ও অহিদ আলম এর কাছ থেকে মুক্তি চায়। কারন এদের হাতে মসজিদ চলে গেলে এলাকায় অশান্তি বিরাজ করবে। মসজিদ শান্তির জায়গা এখানে এমরান ও অহিদ গ্যাং-রা অশান্তি সৃষ্টি করছে। পশ্চিম এনায়েতনগর এলাকাবাসী এর বিচার চায়। এরা কারা? সমাজে এরা কি করে ? এর সুষ্ঠু তদন্ত করে আসল মোতোয়ালি দিল মোহাম্মদ এর ওয়ারিশদের প্রাধান্য দিয়ে ব্যাপারটা সুরাহা করবেন বলে আশা রাখেন পশ্চিম এনায়েতনগর বাসী।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সোনারগাঁয়ে টেক্সটাইল মিলে ও মিষ্টি কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ড

নাসিক ৮ নং ওয়ার্ড পশ্চিম এনায়েতনগর বাইতুল আমান জামে মসজিদ নিয়ে এ-কি কান্ড!

আপডেট সময় : ১২:৫৩:২৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ মে ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক : গতশুক্রবার পশ্চিম এনায়েতনগর বাইতুল আমান জামে মসজিদ এর নতুন কমিটি প্রত্যাখান করে মৃত দিল মোহাম্মদ এর পক্ষ ও সাধারণ জনগন বিক্ষোভ করেন।

তথ্য নিয়ে জানা যায়, দিল মোহাম্মদ ও তার ওয়ারিশগন ৫ শতাংশ জমি দান করেন মসজিদ এর জন্য। দিল মোহাম্মদ মসজিদ এর মোতয়াল্লী থেকে পশ্চিম এনায়েতনগরের গন্যমান্য ব্যক্তি নিয়ে মসজিদের কমিটি করে চালিয়ে আসছিলেন।মোতয়াল্লী দিল মোহাম্মদ মারা যাওয়ার পরও এভাবেই মসজিদের কাজকর্ম চলছিল।

কিন্তু গত শুক্রবার কুচক্রিমহল জুমার নামাজের বয়ানের সময় নতুন কমিটি ঘোষনা দেওয়ার সময় দিল মোহাম্মদ এর ওয়ারিশরা বিক্ষোভ করে প্রতিবাদ করেন । তারা বলেন আমরা এই কমিটি মানি না। কারন তারা আমাদের সাথে আলাপ আলোচনা না করেই যুবলীগ নামধারী মোঃ অহিদ আলম সভাপতি ও সাংবাদিক নামধারী আজিজুল মেম্বারের ছেলে মোঃ এমরান হোসেন কে মোতয়াল্লী সাধারন সম্পাদক করে কমিটি কি করে ঘোষনা দেয়। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

কারন মসজিদের যদি মোতয়াল্লী হতে হয় তাহলে দিল মোহাম্মদ এর পরিবার থেকে বা বয়োজ্যেষ্ঠ কোন ব্যক্তি হবেন, এটাই নিয়ম । যদি তার পরিবার থেকে কেউ হতে না চায় তাহলে অন্যপরিবার থেকে হতে পারেন। তারা আমাদের সাথে কোন আলাপ আলোচনা না করেই নিজেরা কমিটি ঘোষনা করতে চান, এটা কি মগের মুল্লুক? এ সম্পূর্ণ অযুক্তিক ক্ষমতা ও গায়ের জোরে করা হয়েছে।

মৃত দিল মোহাম্মদ এর ওয়ারিশরা আরও বলেন এমরান কিভাবে মোতয়াল্লী হয়? আমরা জানতে পারি মসজিদের টাকা দিয়ে আজিজুল মেম্বার তার নিজের নামে ৩ শতংশ জমি ক্রয় করেন যা মসজিদের খাতে দেওয়া হয়। সেই সুত্রে এমরান নিজেকে মোতয়াল্লী দাবী করেন। এটা সম্পূর্ণ বেআাইনী যা ইসলামী নিয়মতান্ত্রিক হিসেবে মসজিদের মোতয়াল্লী হতে পারে না, তাছাড়া আজিজুল মেম্বার তার নিজের অর্জিত টাকা দিয়ে এই জমি নিষ্কন্টক ভাবে ক্রয় করা হয়নি। এটা আমরা মানি না।

জুমার নামাজের সময় যখন কোলাহল ও হাতাহাতি চলছিল তখন জুমার নামাজ আদায় করতে মুসুল্লিরা অন্য মসজিদে চলে যায়। এভাবে যখন চলতে থাকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পুলিশ এসে ব্যাপারটা এলাকার মুরুব্বিদের দায়িত্ব দেন। তারপর বলে যান এটা বড় ন্যাক্কারজনক ঘটনা। কমিটি স্থগিত রাখতে বলেন। আছরের নামাজের সময়ও আবার এমরান ও অহিদুল আলম গ্যাং-রা গায়ের জোরে মসজিদ দখল করতে চান। তখনও দিল মোহাম্মদ পক্ষ আবার বিক্ষোভ করেন।

আবারও সিদ্ধিরগঞ্জ থানার হস্তক্ষেপ এর কারনে এবং কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা এসে দায়িত্ব নেন। সবাইকে বলেন আমি দুদিনের মধ্যে ব্যাপারটা সুরাহা করে দিবো। আপনারা কেউ মসজিদ নিয়ে কোলাহল করবেন না। বাংলাদেশের প্রতিটি মসজিদ নিয়ে রাজনীতি শুরু হয়েছে। কারন এরা মুসলমান নামধারী কলংক। সব কিছু খেয়ে তারা এখন মসজিদ কে খেতে চায়।

এনায়েতনগর এলাকাবাসী কথিত সাংবাদিক এমরান ও অহিদ আলম এর কাছ থেকে মুক্তি চায়। কারন এদের হাতে মসজিদ চলে গেলে এলাকায় অশান্তি বিরাজ করবে। মসজিদ শান্তির জায়গা এখানে এমরান ও অহিদ গ্যাং-রা অশান্তি সৃষ্টি করছে। পশ্চিম এনায়েতনগর এলাকাবাসী এর বিচার চায়। এরা কারা? সমাজে এরা কি করে ? এর সুষ্ঠু তদন্ত করে আসল মোতোয়ালি দিল মোহাম্মদ এর ওয়ারিশদের প্রাধান্য দিয়ে ব্যাপারটা সুরাহা করবেন বলে আশা রাখেন পশ্চিম এনায়েতনগর বাসী।