নারায়ণগঞ্জ ০৬:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২২ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত আদমজী ইপিজেডকে অশান্ত করছে জনপ্রতিনিধিরা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে মহিলা লীগ নেত্রীর শুভেচ্ছা বিনিময় না’গঞ্জ কারাগারে হাজতীর মৃত্যু ফতুল্লায় চোরাইকৃত ট্যাংকলড়ী উদ্ধার আড়াইহাজারের মিথিলা টেক্সটাইল ঘুরে গেলেন ৮ দেশের রাষ্ট্রদূতসহ ১৮ দেশের প্রতিনিধি সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে কাউন্সিলর ইকবাল হোসেনের মতবিনিময় ফতুল্লা ব্লাড ডোনার্সের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ শিক্ষা সিলেবাস বাতিলের দাবিতে খেলাফত মজলিসের বিক্ষোভ মিছিল সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শহরে নারী সমাবেশ ও মিছিল

প্রতারক লাকী’র হাত থেকে মুক্তি পেতে জেলা প্রশাসকের কাছে প্রবাসী গাজী সুজনের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও থানাধিন পিরোজপুর ইউনিয়ণের চর ভবনাথপুর এলাকার আবুল বাশারের মেয়ে চিহ্নিত প্রতারক লাকী আক্তারের হাত থেকে মুক্তি পেতে সূদুর কুমিল্লা জেলার দেবিদ্ধার থানার প্রবাসী গাজী সুজন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। লিখিত অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন,তার সাথে কয়েক বছর আগে ৫ লাখ টাকা কাবিননামায় লাকী আক্তারের বিয়ে হয়।

পরবর্তিতে দেশে ছুটিতে এসে এবং সৌদি আরবে নিয়ে ঘর সংসার করেন।এসময় স্বামী ও স্ত্রীর বিভিন্ন অন্তরঙ্গ মুহূর্তের কিছু ছবি ও ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে রাখে প্রতারক লাকী আক্তার।সংসার করার সময় লাকী আক্তারের বাবার ৮ শতাংশ জমি ২০ লাখ টাকায় গাজী সুজনের কাছে বিক্রয়ের কথা বলে নগদ ২০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়।তাছাড়া বিভিন্ন সময়ে কারণে অকারণে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয় লাকী আক্তার। পরে লাকী আক্তার তার স্বামীকে না জানিয়ে বাংলাদেশে চলে আসার পর গাজী সুজনের সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়।

গত ১৩-১১-২০১৯ ইং তারিখে গাজী সুজন তার স্ত্রীর সাথে দেখা করতে বাংলাদেশে লাকীর বাবার বাড়ীতে আসলে লাকী আক্তার ও তার পরিবার মিলে আরেকটি নতুন ১২ লাখ টাকার কাবিন নামায় জোরপূর্বক স্বাক্ষর নেয় এবং আবার নতুন করে তাকে ১২ লাখ টাকা দিয়ে মিমাংশা করার কথা বলে।পরবর্তিতে গাজী সুজন এলাকার গণ্যমান্য ব্যাক্তি ও স্থানীয় মোশারাফ মেম্বারের মাধ্যমে বিষয়টি মিমাংশার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে সে আবার বিদেশ চলে যায়।বর্তমানে গাজী সুজন লাকী আক্তারকে নিয়ে সংসার করতে চাইলেও সে সংসার না করে কাবিনের ১২ লাখ টাকা দাবি করে এবং সংসার জীবনের স্বামী স্ত্রীর অন্তরঙ মুহুর্তের সময় তোলা কিছু উলঙ্গ ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করে গাজী সুজনের সম্মান হানী করছে।

এ বিষয়ে লাকী আক্তারের স্থানীয় এলাকাবাসী ও ইউনিয়ণ পরিষদের মোশারফ মেম্বার মিমাংশা করতে চেষ্টা করেও লাকী আক্তারের প্রতারণার কাছে ব্যর্থ হয়।এলাকাবাসী জানায় লাকী আক্তার একজন খারাপ প্রকৃতির মেয়ে।ইতিপূর্বে তার ৭টি বিয়ে হয়েছে। বিয়ের নামে মোটা অংকের দেনমোহর আদায় করাই তার পরিবারের পেশা।

তাছাড়া তার বাবা আবুল বাশারের নামেও সোনারগাঁও থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। প্রবাসী গাজী সুজন আরও জানান কাবিননামার ১২ লাখ টাকা না দিলে গাজী সুজনকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে প্রতারক লাকী আক্তার।এবস্থায় প্রাণের ভয়ে এবং লাকী আক্তরের মিথ্যা মামলার ভয়ে দেশে আসতে পারছে না প্রবাসী গাজী সুজন।এমতাবস্থায় একজন চিহ্নিত প্রতারক লাকীর হাত থেকে মুক্তি পেতে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সহ নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন রেমিটেন্স যোদ্ধা প্রবাসী গাজী সুজন।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত

প্রতারক লাকী’র হাত থেকে মুক্তি পেতে জেলা প্রশাসকের কাছে প্রবাসী গাজী সুজনের অভিযোগ

আপডেট সময় : ০৭:২৯:০৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ মে ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক : নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও থানাধিন পিরোজপুর ইউনিয়ণের চর ভবনাথপুর এলাকার আবুল বাশারের মেয়ে চিহ্নিত প্রতারক লাকী আক্তারের হাত থেকে মুক্তি পেতে সূদুর কুমিল্লা জেলার দেবিদ্ধার থানার প্রবাসী গাজী সুজন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। লিখিত অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন,তার সাথে কয়েক বছর আগে ৫ লাখ টাকা কাবিননামায় লাকী আক্তারের বিয়ে হয়।

পরবর্তিতে দেশে ছুটিতে এসে এবং সৌদি আরবে নিয়ে ঘর সংসার করেন।এসময় স্বামী ও স্ত্রীর বিভিন্ন অন্তরঙ্গ মুহূর্তের কিছু ছবি ও ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে রাখে প্রতারক লাকী আক্তার।সংসার করার সময় লাকী আক্তারের বাবার ৮ শতাংশ জমি ২০ লাখ টাকায় গাজী সুজনের কাছে বিক্রয়ের কথা বলে নগদ ২০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়।তাছাড়া বিভিন্ন সময়ে কারণে অকারণে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয় লাকী আক্তার। পরে লাকী আক্তার তার স্বামীকে না জানিয়ে বাংলাদেশে চলে আসার পর গাজী সুজনের সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়।

গত ১৩-১১-২০১৯ ইং তারিখে গাজী সুজন তার স্ত্রীর সাথে দেখা করতে বাংলাদেশে লাকীর বাবার বাড়ীতে আসলে লাকী আক্তার ও তার পরিবার মিলে আরেকটি নতুন ১২ লাখ টাকার কাবিন নামায় জোরপূর্বক স্বাক্ষর নেয় এবং আবার নতুন করে তাকে ১২ লাখ টাকা দিয়ে মিমাংশা করার কথা বলে।পরবর্তিতে গাজী সুজন এলাকার গণ্যমান্য ব্যাক্তি ও স্থানীয় মোশারাফ মেম্বারের মাধ্যমে বিষয়টি মিমাংশার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে সে আবার বিদেশ চলে যায়।বর্তমানে গাজী সুজন লাকী আক্তারকে নিয়ে সংসার করতে চাইলেও সে সংসার না করে কাবিনের ১২ লাখ টাকা দাবি করে এবং সংসার জীবনের স্বামী স্ত্রীর অন্তরঙ মুহুর্তের সময় তোলা কিছু উলঙ্গ ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করে গাজী সুজনের সম্মান হানী করছে।

এ বিষয়ে লাকী আক্তারের স্থানীয় এলাকাবাসী ও ইউনিয়ণ পরিষদের মোশারফ মেম্বার মিমাংশা করতে চেষ্টা করেও লাকী আক্তারের প্রতারণার কাছে ব্যর্থ হয়।এলাকাবাসী জানায় লাকী আক্তার একজন খারাপ প্রকৃতির মেয়ে।ইতিপূর্বে তার ৭টি বিয়ে হয়েছে। বিয়ের নামে মোটা অংকের দেনমোহর আদায় করাই তার পরিবারের পেশা।

তাছাড়া তার বাবা আবুল বাশারের নামেও সোনারগাঁও থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। প্রবাসী গাজী সুজন আরও জানান কাবিননামার ১২ লাখ টাকা না দিলে গাজী সুজনকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে প্রতারক লাকী আক্তার।এবস্থায় প্রাণের ভয়ে এবং লাকী আক্তরের মিথ্যা মামলার ভয়ে দেশে আসতে পারছে না প্রবাসী গাজী সুজন।এমতাবস্থায় একজন চিহ্নিত প্রতারক লাকীর হাত থেকে মুক্তি পেতে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সহ নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন রেমিটেন্স যোদ্ধা প্রবাসী গাজী সুজন।