কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশ লকডাউন কার্যকর করতে আরও কঠোর অবস্থান নিয়েছেন

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৪৫:২৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১
  • ৮৩ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার  :  করোনা ভাইরাস রোধকল্পে সারাদেশে লকডাউন চলছে। পন্যবাহী মালামালও জরুরী সেবাকাজে নিয়োজিত কোন যানবাহন ছাড়া কোন যানবাহন চলাচল নিষেধ করা হয়েছে। সরকারের সে আদেশ পালনে গাজীপুর রিজিয়ন পুলিশের কাঁচপুর হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ মনিরুজ্জামান, এর নেতৃত্বে ঢাকা চট্রগ্রাম মহাসড়কের কাঁচপুর থেকে মেঘনাঘাট পর্যন্ত কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশ লকডাউন কার্যকর করতে আর কঠোর অবস্থান নিয়েছেন।

ওসি মোঃ মনিরুজ্জামান ও টিআই মেহেদীসহ কাঁচপুর হাইওয়ে থানার সকল কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্যরা ওসি মনিরুজ্জামানের নির্দেশ মোতাবেক মহাসড়কের চাঁদমহল, মদনপুর ও মেঘনাঘাট এই তিনটি চেকপোষ্টে কঠোরভাবে দায়িত্ব পালন করছেন। ওসি মনিরুজ্জামান প্রতিদিনই ঘন্টার পর ঘন্টা নিজে উপস্থিত থেকে লকডাউন কার্যকরে অগ্রনী ভূমিকা পালন করছেন বলে স্থানীয়রা জানান। জরুরী প্রয়োজনে তথা মুভমেন্ট পাসসহ বিভিন্ন জরুরী কাজের প্রয়োজনে যারা প্রাইটেকার ও মাইক্রেবাসে চলাচল করছেন তাদের গাড়িও চেকপোষ্টে আটকে দিয়ে ওসি নিজেই এর সত্যতা যাচাই করে তাদের ছাড়ছেন। চলাচলে সন্তোষজনক জবাব উপযুক্ত কারণ ও তথ্যে গড়মিল পেলে পুলিশ সেসকল গাড়ি ঘুরিয়ে দিচ্ছেন। কয়েকটি পিকাপে যাত্রী নিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে চেকপোষ্টের কাছে এলে পুলিশ যাত্রীদের নামিয়ে দিয়ে পিকাপের বিরুদ্দে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করছেন।

কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ওসি মোঃ মনিরুজ্জামান বলেন, সরকারের দেওয়া লকডাউন কার্যকর করতে শতভাগ চেষ্টা করছি। কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশকে এ কাজে কমিউনিটি পুলিশ সদস্যরাও সহযোগিতা করছেন। কঠোর লকডাউনের মধ্যেও প্রতিদিন মহাসড়কে থ্রী হুইলার যানবাহন যাত্রীবহন করার অপরাধে গড়ে ৪০/৫০ টি থ্রীহুইলারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হচ্ছে। এবং মহাসড়কে কোনভাবেই থ্রী হুইলার যানবাহন চলাচল করতে পারবেনা এ গুলো পেলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করছি বলে ওসি মনিরুজ্জামান জানিয়েছেন।

প্রখররোদে এবং রোজা থাকা সত্বেও সোমবারও (১৯ এপ্রিল) দিনভর তিনটি চেপোষ্টে ও কাঁচপুর থেকে মেঘনাঘাট পর্যন্ত মহাসড়কে ঘন্টার পর ঘন্টা সরেজমিনে উপস্থিত হয়ে লকডাউন কার্যকর মনিটরিং করেন। যানবাহন যাতে চলাচল করতে না পারে সেজন্য মদপুরে মহাসড়কের মধ্যে ওসি মনিরুজ্জামান নিজেই বাঁশ ও অন্যান্য সরঞ্জামাদি ফেলে ব্যারিকেড সৃষ্টি করেছেন।

মদনপুর, মেঘনাঘাট ও চাঁদমহল এলাকাবাসী বলেন, মহাসড়কে লকডাউন পালনে কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ওসি মোঃ মনিরুজ্জামানই সেরা। কারণ দিন/ রাত দফায় দফায় তিনি ৩ টি চেকপোষ্টে এবং মহাসড়কে টহল দিচ্ছেন লকডাউন যাতে কঠোর থাকে সেজন্য তিনি মনিটরিং করছেন।জেলার অন্যান্য স্থানে ঢিলেঢালাভাবে লকডাউন চললেও কাঁচপুর থেকে মেঘনাঘাট পর্যন্ত লকডাউন কঠোরভাবে চলছে কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশের কঠোর অবস্থানের কারণে।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশ লকডাউন কার্যকর করতে আরও কঠোর অবস্থান নিয়েছেন

আপডেট সময় : ০৩:৪৫:২৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার  :  করোনা ভাইরাস রোধকল্পে সারাদেশে লকডাউন চলছে। পন্যবাহী মালামালও জরুরী সেবাকাজে নিয়োজিত কোন যানবাহন ছাড়া কোন যানবাহন চলাচল নিষেধ করা হয়েছে। সরকারের সে আদেশ পালনে গাজীপুর রিজিয়ন পুলিশের কাঁচপুর হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ মনিরুজ্জামান, এর নেতৃত্বে ঢাকা চট্রগ্রাম মহাসড়কের কাঁচপুর থেকে মেঘনাঘাট পর্যন্ত কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশ লকডাউন কার্যকর করতে আর কঠোর অবস্থান নিয়েছেন।

ওসি মোঃ মনিরুজ্জামান ও টিআই মেহেদীসহ কাঁচপুর হাইওয়ে থানার সকল কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্যরা ওসি মনিরুজ্জামানের নির্দেশ মোতাবেক মহাসড়কের চাঁদমহল, মদনপুর ও মেঘনাঘাট এই তিনটি চেকপোষ্টে কঠোরভাবে দায়িত্ব পালন করছেন। ওসি মনিরুজ্জামান প্রতিদিনই ঘন্টার পর ঘন্টা নিজে উপস্থিত থেকে লকডাউন কার্যকরে অগ্রনী ভূমিকা পালন করছেন বলে স্থানীয়রা জানান। জরুরী প্রয়োজনে তথা মুভমেন্ট পাসসহ বিভিন্ন জরুরী কাজের প্রয়োজনে যারা প্রাইটেকার ও মাইক্রেবাসে চলাচল করছেন তাদের গাড়িও চেকপোষ্টে আটকে দিয়ে ওসি নিজেই এর সত্যতা যাচাই করে তাদের ছাড়ছেন। চলাচলে সন্তোষজনক জবাব উপযুক্ত কারণ ও তথ্যে গড়মিল পেলে পুলিশ সেসকল গাড়ি ঘুরিয়ে দিচ্ছেন। কয়েকটি পিকাপে যাত্রী নিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে চেকপোষ্টের কাছে এলে পুলিশ যাত্রীদের নামিয়ে দিয়ে পিকাপের বিরুদ্দে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করছেন।

কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ওসি মোঃ মনিরুজ্জামান বলেন, সরকারের দেওয়া লকডাউন কার্যকর করতে শতভাগ চেষ্টা করছি। কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশকে এ কাজে কমিউনিটি পুলিশ সদস্যরাও সহযোগিতা করছেন। কঠোর লকডাউনের মধ্যেও প্রতিদিন মহাসড়কে থ্রী হুইলার যানবাহন যাত্রীবহন করার অপরাধে গড়ে ৪০/৫০ টি থ্রীহুইলারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হচ্ছে। এবং মহাসড়কে কোনভাবেই থ্রী হুইলার যানবাহন চলাচল করতে পারবেনা এ গুলো পেলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করছি বলে ওসি মনিরুজ্জামান জানিয়েছেন।

প্রখররোদে এবং রোজা থাকা সত্বেও সোমবারও (১৯ এপ্রিল) দিনভর তিনটি চেপোষ্টে ও কাঁচপুর থেকে মেঘনাঘাট পর্যন্ত মহাসড়কে ঘন্টার পর ঘন্টা সরেজমিনে উপস্থিত হয়ে লকডাউন কার্যকর মনিটরিং করেন। যানবাহন যাতে চলাচল করতে না পারে সেজন্য মদপুরে মহাসড়কের মধ্যে ওসি মনিরুজ্জামান নিজেই বাঁশ ও অন্যান্য সরঞ্জামাদি ফেলে ব্যারিকেড সৃষ্টি করেছেন।

মদনপুর, মেঘনাঘাট ও চাঁদমহল এলাকাবাসী বলেন, মহাসড়কে লকডাউন পালনে কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ওসি মোঃ মনিরুজ্জামানই সেরা। কারণ দিন/ রাত দফায় দফায় তিনি ৩ টি চেকপোষ্টে এবং মহাসড়কে টহল দিচ্ছেন লকডাউন যাতে কঠোর থাকে সেজন্য তিনি মনিটরিং করছেন।জেলার অন্যান্য স্থানে ঢিলেঢালাভাবে লকডাউন চললেও কাঁচপুর থেকে মেঘনাঘাট পর্যন্ত লকডাউন কঠোরভাবে চলছে কাঁচপুর হাইওয়ে পুলিশের কঠোর অবস্থানের কারণে।