নারায়ণগঞ্জ ০১:৪৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
সোনারগাঁওয়ে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত সিদ্ধিরগঞ্জে ৪টি কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হারামের পয়সা ব্যারামে খায় ,আমি হারাম খাই না খেতেও দেই না-সেলিম ওসমান ভূমি সম্পর্কিত সমস্যা থাকলে গণশুনানিতে আসার আহবান- না.গঞ্জে জেলা  প্রশাসক সিদ্ধিরগঞ্জে গ্যাসের দাবিতে ঢাকা-চটগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ সোনারগাঁওয়ে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২৪ অনুষ্ঠিত র‌্যাব পরিচয়ে ৫২ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় গ্রেফতার-৪ সিদ্ধিরগঞ্জে কাতার প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতি চিকিৎসার নামে কোনো প্রকার হয়রানি মেনে নেওয়া হবে না ঃ স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিকের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় গর্ভবতীর পোশাক শ্রমিক নিহত

বন্দরে শতশত মুসল্লীর চোখের পানিতে মসজিদের ঈমাম মুফতী সাইফুল্লাহকে বিদায়

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:০৭:১৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৯ এপ্রিল ২০২১
  • ১৫৬ বার পড়া হয়েছে

বন্দর প্রতিনিধি :  অবশেষে বন্দরের ঐতিহ্যবাহী সোনাকান্দা কিল্লা জামে মসজিদের ঈমাম মুফতী সাইফুল্লাহকে অদৃশ্য শক্তির ইশারায় অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার (৯ এপ্রিল) বাদ জুম্মা সোনাকান্দা এলাকার স্থানীয় শতশত মুসল্লী চোখের পানি জড়িয়ে তাকে বিদায় দেন।

এ সময় স্থানীয় মুসল্লীরা গনমাধ্যমকে বলেন,আমরা মসজিদকে পবিত্র জায়গা হিসেবে জানি। কারন এটা আমাদের ধর্মীয় স্থান,নামায আদায় করার শ্রেষ্ঠ জায়গা। অন্যান্য ধর্মের লোকেরাও তাদের ধর্মীয় স্থানকে পবিত্র বলে বিশ্বাস করে। মসজিদ সবসময় পবিত্রতার মর্যাদা বহন করে কেননা তাতে আমরা আল্লাহকে ডাকি। আর এই পবিত্র জায়গায় একজন শিক্ষক থাকে। সেই শিক্ষক হচ্ছে মসজিদের ঈমাম। সেই ঈমামকে মসজিদ কমিটির কিছু অর্থলোভী মানুষ ষড়যন্ত্র করে অদৃশ্য শক্তির শেল্টারে তার ইচ্ছার বিরোদ্ধে তাড়িয়ে দেয়া হল। ঈমামের দোষ একটাই তিনি কোন অন্যায়কে প্রশ্রয় দেন না। অনিয়ম দেখলে প্রতিবাদ মূখর হয়ে যান। আর এজন্যই সুমিষ্ট কন্ঠস্বরের অধিকারী মুফতী সাইফুল্লাহকে বিদায় হতে হল। আসলে এ সমাজে ভাল মানুষ টিকেনা।
তারা আরো বলেন,সম্প্রতি কালে জুম্মার বয়ানের সময় জাপানেতা উশৃঙ্খল আজিজুল বাহিনী মসজিদের ভিতরে প্রবেশ করে ঈমামকে লাঞ্চিত করার হীন উদ্দেশ্য নিয়ে স্থানীয় মুসল্লীদের সাথে তান্ডব সৃষ্টি করে।

পরে গত সোমবার বন্দর উপজেলা পরিষদে সোনাকান্দা কিল্লা জামে মসজিদের কমিটির লোকজন মিমাংসায় বসে। ঈমামের পক্ষে ৯০ভাগ লোক থাকলেও মসজিদ কমিটির একাংশের তদবীরে বন্দর উপজেলা কর্তৃপক্ষ বিতর্ক এড়াতে ঈমামকে অব্যাহতি দিয়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার পরামর্শ দিলে শুক্রবার সকলের কাছে বিদায় নিয়ে সোনাকান্দা কিল্লা জামে মসজিদের ঈমাম মুফতী সাইফুল্লাহ চলে যান। এ সময় স্থানীয় শতশত মুসল্লীরা তাকে কান্নার নোলা জলে বিদায় দেন।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সোনারগাঁওয়ে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

বন্দরে শতশত মুসল্লীর চোখের পানিতে মসজিদের ঈমাম মুফতী সাইফুল্লাহকে বিদায়

আপডেট সময় : ০৩:০৭:১৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৯ এপ্রিল ২০২১

বন্দর প্রতিনিধি :  অবশেষে বন্দরের ঐতিহ্যবাহী সোনাকান্দা কিল্লা জামে মসজিদের ঈমাম মুফতী সাইফুল্লাহকে অদৃশ্য শক্তির ইশারায় অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার (৯ এপ্রিল) বাদ জুম্মা সোনাকান্দা এলাকার স্থানীয় শতশত মুসল্লী চোখের পানি জড়িয়ে তাকে বিদায় দেন।

এ সময় স্থানীয় মুসল্লীরা গনমাধ্যমকে বলেন,আমরা মসজিদকে পবিত্র জায়গা হিসেবে জানি। কারন এটা আমাদের ধর্মীয় স্থান,নামায আদায় করার শ্রেষ্ঠ জায়গা। অন্যান্য ধর্মের লোকেরাও তাদের ধর্মীয় স্থানকে পবিত্র বলে বিশ্বাস করে। মসজিদ সবসময় পবিত্রতার মর্যাদা বহন করে কেননা তাতে আমরা আল্লাহকে ডাকি। আর এই পবিত্র জায়গায় একজন শিক্ষক থাকে। সেই শিক্ষক হচ্ছে মসজিদের ঈমাম। সেই ঈমামকে মসজিদ কমিটির কিছু অর্থলোভী মানুষ ষড়যন্ত্র করে অদৃশ্য শক্তির শেল্টারে তার ইচ্ছার বিরোদ্ধে তাড়িয়ে দেয়া হল। ঈমামের দোষ একটাই তিনি কোন অন্যায়কে প্রশ্রয় দেন না। অনিয়ম দেখলে প্রতিবাদ মূখর হয়ে যান। আর এজন্যই সুমিষ্ট কন্ঠস্বরের অধিকারী মুফতী সাইফুল্লাহকে বিদায় হতে হল। আসলে এ সমাজে ভাল মানুষ টিকেনা।
তারা আরো বলেন,সম্প্রতি কালে জুম্মার বয়ানের সময় জাপানেতা উশৃঙ্খল আজিজুল বাহিনী মসজিদের ভিতরে প্রবেশ করে ঈমামকে লাঞ্চিত করার হীন উদ্দেশ্য নিয়ে স্থানীয় মুসল্লীদের সাথে তান্ডব সৃষ্টি করে।

পরে গত সোমবার বন্দর উপজেলা পরিষদে সোনাকান্দা কিল্লা জামে মসজিদের কমিটির লোকজন মিমাংসায় বসে। ঈমামের পক্ষে ৯০ভাগ লোক থাকলেও মসজিদ কমিটির একাংশের তদবীরে বন্দর উপজেলা কর্তৃপক্ষ বিতর্ক এড়াতে ঈমামকে অব্যাহতি দিয়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার পরামর্শ দিলে শুক্রবার সকলের কাছে বিদায় নিয়ে সোনাকান্দা কিল্লা জামে মসজিদের ঈমাম মুফতী সাইফুল্লাহ চলে যান। এ সময় স্থানীয় শতশত মুসল্লীরা তাকে কান্নার নোলা জলে বিদায় দেন।