নারায়ণগঞ্জ ০২:৪৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বন্দর ফরাজীকান্দাবাসী জীবন দিবো, তবুও রাস্তা দিবোনা’

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:২৪:০২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ মার্চ ২০২১
  • ২১ বার পড়া হয়েছে

 

বন্দর প্রতিনিধি :  সৈয়দপুর-মদনগঞ্জ ৩য় শীতলক্ষ্যা সেতু তৈরী হলে প্রায় ২শত বছরের পুরনো ফরাজীকান্দা কলাগাছিয়া সড়কটি বন্ধ হয়ে যাবে। তাই বন্দরের দক্ষিণের এ রাস্তাটি বাঁচানোর জন্য সেতুর নিচ দিয়ে ট্যানেল সড়ক তৈরি করতে মানববন্ধন করেছে স্থানীয় সকল দলের রাজনীতিবিদ ও এলাকাবাসী।

শুক্রবার (১২মার্চ) বাদ জুম্মার নামাজের পরে নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানা কলাগাছিয়া ইউনিয়নে ফরাজীকান্দা চৌরাস্তায় এই মানববন্ধন টি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ঐতিহ্যবাহী বন্দর উপজেলা-কলাগাছিয়ার সুদূর মোহনপুরসহ প্রায় ৪০ টি গ্রামের সকল শ্রেণি পেশার ৮ লক্ষ জনগন এ পথে দিয়ে প্রতিদিন জেলা শহরে চলাচল করে।

৩য় শীতলক্ষ্যা সেতুটি হওয়ার কারনে বর্তমান সড়কটি বন্ধ হয়ে গেলে ৪০ টি গ্রামের জনগণের সমস্যায় পরতে হবে। তাই সকল জনসাধারণের ভোগান্তি থেকে রক্ষায়, এলাকার সকল শপিংমল, দোকানপাট ব্যবসা বন্ধ করে মানববন্ধনে অংশ নেন। সব দলের নেতা কমীরা তাদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন।

মানববন্ধনে অংশ নেয়া বক্তাগন আরো বলেন, আমাদের ৪০টি গ্রামের জনগণ এ রাস্তাটি চালু রাখার জোড় দাবি জানাচ্ছি. যদি তা মানা না হয়. তবে কঠোর থেকে কঠোর আন্দোলন করবো, রাস্তায় শুয়ে মৃত্যুবরন করবো, তবু এই রাস্তাটা দিবোনা সরকারের ইচ্ছে থাকলে খুবই অল্প খরচে একটি ট্যানেল সড়ক তৈরি করে দিতে পারেন. এতে মুল সেতুর কোন ক্ষতি হবেনা বরং জনসাধারণের উপকার হবে।

বন্দর থেকে ফরাজীকান্দা, কলাগাছিয়া মোহনপুর সোনারগাঁ উপজেলার কয়েকটি গ্রামের প্রায় ৮ লক্ষ লোকের যাতায়াত করতে হয় এ রাস্তাটি দিয়ে, যদি এ রাস্তাটি বন্ধ হয়ে যায় তবে স্কুল-কলেজ. মাদ্রাসার পড়ুয়া ছোট ছোট ছেলে মেয়েদের অনেক পথ ঘুরে যেতে হবে. এখন পায়ে হেটে যেতে পারে তখন রিক্সা বা ভ্যান দিয়ে যেতে হবে। অনেকেরই ব্যবসা বন্ধ হয়ে যাবে. তখন ব্যবসায়ীদের পথে বসতে হবে। মাল আনা-নেয়ার জন্য সহজ এ রাস্তাটি বন্ধ হয়ে গেলে তাদের ব্যবসা করা সহজ হবে না।

সরকারের কাছে আমাদের দাবী সরকার সব সময় জনগণের কথা বলে, জনগণ নিয়ে চিন্তা করে, সরকারের উন্নয়নের কাজের আমরা বাধা দিবোনা,একমত পোষন করি। আপনাদের কাছে আমাদের একটিই দাবি, আপনারা এ সড়কটি বন্ধ করবেন না, সেতুর নিচ দিয়ে একটি ট্যানেল তৈরীর ব্যবস্থা করেন, বন্দর উপজেলা সহ দক্ষিনাঞ্চলের ব্যবসা গুলো চালু রাখুন।

এই সময় আরো বক্তব্য রাখেন,, বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব কাজিম উদ্দিন প্রধান,, জাতীয় পার্টি নেতা , বাচ্চু মিয়া,, আওয়ামী লীগের নেতা, ইব্রাহিম কাশেম, গোলাপ হাজী, বিএনপি নেতা,,রিপন, মুকুল, মানব বন্ধনের আহ্বায়ক –মোঃ খালেদ বিন আনিস। সহ সব স্থারের মুসল্লী গন।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

বন্দর ফরাজীকান্দাবাসী জীবন দিবো, তবুও রাস্তা দিবোনা’

আপডেট সময় : ১২:২৪:০২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ মার্চ ২০২১

 

বন্দর প্রতিনিধি :  সৈয়দপুর-মদনগঞ্জ ৩য় শীতলক্ষ্যা সেতু তৈরী হলে প্রায় ২শত বছরের পুরনো ফরাজীকান্দা কলাগাছিয়া সড়কটি বন্ধ হয়ে যাবে। তাই বন্দরের দক্ষিণের এ রাস্তাটি বাঁচানোর জন্য সেতুর নিচ দিয়ে ট্যানেল সড়ক তৈরি করতে মানববন্ধন করেছে স্থানীয় সকল দলের রাজনীতিবিদ ও এলাকাবাসী।

শুক্রবার (১২মার্চ) বাদ জুম্মার নামাজের পরে নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানা কলাগাছিয়া ইউনিয়নে ফরাজীকান্দা চৌরাস্তায় এই মানববন্ধন টি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ঐতিহ্যবাহী বন্দর উপজেলা-কলাগাছিয়ার সুদূর মোহনপুরসহ প্রায় ৪০ টি গ্রামের সকল শ্রেণি পেশার ৮ লক্ষ জনগন এ পথে দিয়ে প্রতিদিন জেলা শহরে চলাচল করে।

৩য় শীতলক্ষ্যা সেতুটি হওয়ার কারনে বর্তমান সড়কটি বন্ধ হয়ে গেলে ৪০ টি গ্রামের জনগণের সমস্যায় পরতে হবে। তাই সকল জনসাধারণের ভোগান্তি থেকে রক্ষায়, এলাকার সকল শপিংমল, দোকানপাট ব্যবসা বন্ধ করে মানববন্ধনে অংশ নেন। সব দলের নেতা কমীরা তাদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন।

মানববন্ধনে অংশ নেয়া বক্তাগন আরো বলেন, আমাদের ৪০টি গ্রামের জনগণ এ রাস্তাটি চালু রাখার জোড় দাবি জানাচ্ছি. যদি তা মানা না হয়. তবে কঠোর থেকে কঠোর আন্দোলন করবো, রাস্তায় শুয়ে মৃত্যুবরন করবো, তবু এই রাস্তাটা দিবোনা সরকারের ইচ্ছে থাকলে খুবই অল্প খরচে একটি ট্যানেল সড়ক তৈরি করে দিতে পারেন. এতে মুল সেতুর কোন ক্ষতি হবেনা বরং জনসাধারণের উপকার হবে।

বন্দর থেকে ফরাজীকান্দা, কলাগাছিয়া মোহনপুর সোনারগাঁ উপজেলার কয়েকটি গ্রামের প্রায় ৮ লক্ষ লোকের যাতায়াত করতে হয় এ রাস্তাটি দিয়ে, যদি এ রাস্তাটি বন্ধ হয়ে যায় তবে স্কুল-কলেজ. মাদ্রাসার পড়ুয়া ছোট ছোট ছেলে মেয়েদের অনেক পথ ঘুরে যেতে হবে. এখন পায়ে হেটে যেতে পারে তখন রিক্সা বা ভ্যান দিয়ে যেতে হবে। অনেকেরই ব্যবসা বন্ধ হয়ে যাবে. তখন ব্যবসায়ীদের পথে বসতে হবে। মাল আনা-নেয়ার জন্য সহজ এ রাস্তাটি বন্ধ হয়ে গেলে তাদের ব্যবসা করা সহজ হবে না।

সরকারের কাছে আমাদের দাবী সরকার সব সময় জনগণের কথা বলে, জনগণ নিয়ে চিন্তা করে, সরকারের উন্নয়নের কাজের আমরা বাধা দিবোনা,একমত পোষন করি। আপনাদের কাছে আমাদের একটিই দাবি, আপনারা এ সড়কটি বন্ধ করবেন না, সেতুর নিচ দিয়ে একটি ট্যানেল তৈরীর ব্যবস্থা করেন, বন্দর উপজেলা সহ দক্ষিনাঞ্চলের ব্যবসা গুলো চালু রাখুন।

এই সময় আরো বক্তব্য রাখেন,, বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব কাজিম উদ্দিন প্রধান,, জাতীয় পার্টি নেতা , বাচ্চু মিয়া,, আওয়ামী লীগের নেতা, ইব্রাহিম কাশেম, গোলাপ হাজী, বিএনপি নেতা,,রিপন, মুকুল, মানব বন্ধনের আহ্বায়ক –মোঃ খালেদ বিন আনিস। সহ সব স্থারের মুসল্লী গন।