শিমরাইল মোড়ে বেপরোয়া চাঁদাবাজ সালাউদ্দিন

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল মোড় রেন্ট-এ কার স্ট্যান্ডের সাধারণ সম্পাদক চাঁদাবাজ সালাউদ্দিন বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তুচ্ছ ঘটনার বিরোধ মিমাংসা করার কথা বলে টিটু নামে এক গাড়ির মালিককে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে বিএনপি নেতা সালাউদ্দিনের বিরুদ্ধে। থানা পুলিশের সঙ্গে সালাউদ্দিনের গভীর সখ্যতা থাকায় লিখিত অভিযোগ করেও আইনী সহায়তা পচ্ছেন না ভোক্তভূগী পরিবার।

জানা গেছে, অভিযুক্ত সালাউদ্দিনের গাড়ি চালক মোহাম্মদ আলির সঙ্গে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে বাকবিতন্ডা হয় টিটুর। এতে তাদের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। বিষয়টি মিমাংসা করার কথা বলে গত ৭ ফেব্রুয়ারি রাত ৮ টার দিকে টিটুকে রেন্ট-এ কার স্ট্যান্ডে ডেকে নেয় সালাউদ্দিন। সরল বিশ্বাসে টিটু স্ট্যান্ডে গেলে বিরোধের কারণ বা মিমাংসার কোন কথা না বলে সালাউদ্দিন টিটুকে বেধরক মারপিট করে। এতে সে গুরুতর আহত হয়। রাতে তাকে উদ্ধার করে শহরের ভিক্টোরিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করা হয়। এ ঘটনায় আহত টিটুর পিতা আব্দুল বাতেন বাদী হয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগককারী আব্দুল বাতেন জানান, রেন্ট-এ কার স্ট্যান্ডে চাঁদাবাজি করার সুবাধে থানা পুলিশের সাথে সালাউদ্দিনের সখ্যতা গড়ে উঠেছে। পুলিশ ম্যানেজ করার জন্য সালাউদ্দিন প্রত্যেক গাড়ি মালিকদের কাছ থেকে চাঁদা নিচ্ছে। পুলিশের সাথে সখ্যতায় থাকায় মারধরের অভিযোগ করার পরও সালাউদ্দিনের বিরুদ্ধে কোন আইনগত ব্যবস্থা নিচ্ছেন না পুলিশ। উল্টো আমার ছেলে টিটুকে মিথ্যা মালায় জড়ানোর ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।

এদিকে রেন্ড-এ কার স্ট্যান্ডের বিভিন্ন গাড়ি মালিকরা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানায়, একজন বিএনপি নেতা হয়েও সালাউদ্দিন দাপটের সাথে জনবহুল শিমরাইল মোড়ে চাঁদাবাজি করছে। তার চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ বিক্ষোভ করেও কোন লাভ হচ্ছেনা। ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় কয়েকজন নেতাকে ম্যানেজ করে সালাউদ্দিন মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড থেকে মাসে কমপক্ষে চার লাখ টাকা চাঁদা আদায় করছে। তাছাড়াও বদলি চালক দিয়ে এই রেন্ড-এ কারের গাড়ি দিয়ে মাদক পাচার হচ্ছে। সালাউদ্দিনের পরোক্ষ মদদে কিছু চালক আর্থিক লোভে মাদকের চালান আনা নেওয়া করছে। এই স্ট্যান্ডের একাধিক গাড়ি দেশের বিভিন্ন থানা এলাকায় মাদকসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ধরা পড়ার বহু অভিযোগ রয়েছে। এমনকি সালাউদ্দিনের নিজের গাড়িও বরিশাল জেলায় মাদকসহ ধরা পরেছিল কয়েক বছর আগে। একসময়ের সন্ত্রাসী সালাউদ্দিনের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন ভোক্তভূগী পরিবার ও বিভিন্ন গাড়ির মালিকরা।