আড়াইহাজারে অর্থনৈতিক অঞ্চলের কাজ বন্ধ

মোঃ জিয়াউর রহমান: নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের (বিএসইজেড) ভূমি উন্নয়নের কাজ চারদিন ধরে বন্ধ হয়ে রয়েছে। চাঁদপুর বাল্কহেড বোট মালিক সমিতির অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের কারণে ওই কাজ বন্ধ থাকায় নির্ধারিত সময়ে কাজ শেষ করা নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। বেজা সূত্রে জানা গেছে, আড়াইহাজার উপজেলায় এক হাজার একর জায়গার ওপর গড়ে উঠছে জাপানি বিনিয়োগকারীদের জন্য বাংলাদেশের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে (বিএসইজেড) গাড়ি তৈরির কারখানা, গাড়ির যন্ত্রপাতি সংযোজন, মোটরসাইকেল, মোবাইল হ্যান্ডসেটসহ বিভিন্ন ধরনের ইলেকট্রনিক পণ্য ও যন্ত্রপাতি উৎপাদিত হবে। প্রথম পর্যায়ে অধিগ্রহণকৃত ৫০০ একর জমিতে জমি উন্নয়নের কাজ চলছে। ২০২০ সালের ৫ ডিসেম্বর থেকে এখানে বালু ফেলার কাজ করছেন ড্রেজ বাংলা লিমিটেড।

মঙ্গলবার সকালে সরেজমিনে উপজেলার ছনপাড়া এলাকায় জাপানি অর্থনেতিক অঞ্চলে গিয়ে দেখা গেছে, ‘বালু কাটার ভেকুগুলো সারিবদ্ধ ভাবে সাজিয়ে রাখা হয়েছে। আর এর সংশ্লিষ্ট শ্রমিকেরা গল্প করে, মোবাইলে গেমস খেলে ও আশে পাশে ঘুরে সময় অবসর সময় পার করছেন।’ ড্রেজ বাংলা লিমিটেডের পরিচালক এস এম ইফতেখারুল ইসলাম নোমান বলেন, ‘আমাদের এখানে যে বালু ফেলা হয় সেটা চাঁদপুর থেকে আসে। চাঁদপুরের চর ইজারাদাররা বালুর লোডিং চার্জ বৃদ্ধি করায় বাল্কহেড বোট মালিক সমিতি লোডিং চার্জ কমানো সহ ৯ দফা দাবিতে অনির্দিষ্ট কালের জন্য অবস্থান ধর্মঘটের ডাক দেয়। ২৬ জুন থেকে সকল বাল্কহেড বন্ধ রয়েছে। এজন্য আমাদের ভূমি উন্নয়ন কাজ আপাতত বন্ধ রয়েছে। এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ৪ শতাধিক শ্রমিক কাজ করে। বালু না আসায় সকল শ্রমিক বেকার অবস্থায় বসে আছে। আমাদের উন্নয়নমূলক কাজ স্থগিত হয়ে আছে। ড্রেজ বাংলা লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক (ইডি) আব্দুল্লাহ আল ফারুক বলেন, ‘প্রথম পর্যায়ে আগামী জুলাইয়ের মধ্যে আমাদের বাকি কাজ শেষ করতে হবে। কিন্তু ধর্মঘটের কারণে সব স্থগিত হয়ে আছে। বর্তমানে ভ‚মি উন্নয়নে বালু ফেলার কাজে ধীরগতি হলে পরবর্তী অন্যান্য কাজেও ধীরগতি হবে।’ নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোস্তাইন বিল্লাহ জানান, বেজা থেকে আমাদের কিছু বলা হয়নি। তারা যদি আমাদের বলে কিংবা ঠিকাধারী প্রতিষ্ঠান থেকে আমাদের কাছে সহায়তা চায় তাহলে অবশ্যই আমরা সহায়তা করবো।