নারায়ণগঞ্জ ১২:১৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
সোনারগাঁয়ে টেক্সটাইল মিলে ও মিষ্টি কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ড ফতুল্লায় অপহরনকারী চক্রের নারী সদস্যসহ গ্রেপ্তার ৫, অপহৃত উদ্ধার ১৩৯ জন শহীদদের স্মরণে বক্তাবলী ইউনিয়ন ছাত্রদলের শ্রদ্ধাঞ্জলি আড়াইহাজারে ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে মাটি বিক্রি, নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত অভিযোগ আড়াইহাজারে পরীক্ষার হল থেকে ছাত্রীকে নিয়ে উধাও ছাত্রলীগ নেতা দুই মাসের মধ্যে হাইড্রোলিক হর্ন বন্ধের সিদ্ধান্ত জাপান, সৌদি আরবের পর এবার গ্যালারি পরিষ্কার করল মরক্কোর দর্শকরা শিমু হত্যায় স্বামীসহ দুই জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন ২৬ শর্তে বিএনপিকে ঢাকায় সমাবেশের অনুমতি সোনারগাঁয়ে মহাসড়ক বর্ধিতকরণকাজে জনদুর্ভোগ চরমে

স্বপ্ন দেখা ভাল তবে দিনে নয়

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:২৮:১৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ জুন ২০১৮
  • ৩৭৭ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার : সবপ্ন দেখা ভাল, তবে দিনে নয়। কারণ দিনের সবপ্ন সত্যি হয়না। ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের বিভিন্ন প্রবিণ ও নবীন নেতারা এমন মন্তব্য করছেন ফতুল্লার বিতর্কিত শ্রমিকলীগ নেতা কাউসার আহমেদ পলাশ ও তার অনুসারীদের নিয়ে।আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে শ্রমিকলীগ নেতা কাউসার আহমেদ পলাশ এমপি নির্বাচন করার গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়া আর পলাশকে ট্রামকার্ড হিসেবে উপস্থাপন করার চেষ্টায় লিপ্ত হওয়ায় নেতারা এমন মন্তব্য করছেন।
তথ্য মতে, একাদশ সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে শ্রমিকলীগ নেতা কাউসার আহমেদ পলাশ নির্বাচন করবেন এমন খবর ছড়াচ্ছে একটি মহল। পলাশ দলীয় মনোনয়ন পাবেন এমনটাই আশাবাদী ওই মহলটি। অনেকের মতে পলাশ কেন, নির্বাচন যে কেউ করতে পারে। পলাশ নির্বান করবে এটা অবাস্তব কিছু নয়। কিন্তু পশ্ন হলো বিজয়ী হওয়া। জনগণের ভোটে নির্বাচিত হওয়ার মত যোগ্যতা পলাশের কতটুকু আছে। আর যদি দলীয় মনোনয়ন পেয়ে বিশেষ ভোটে বিজয়ী হয়ে যায় তা হলে সবপ্ন দেখতেই পারে। তবে আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা এতটা বোকা নয় যে মুখে দাঁড়ি,মাথায় টুপি আর গায়ে জুব্বা লাগালেই হাক্কানী আলেম মনে করে ইমামতি করতে বলবেন। তবে তা হতেও পারে যদি আওয়ামীলীগের কোন বড় দরবেশের মুরিদ হয়ে থাকে। অপর দিকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা এলাকাও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের অধিনে। সিদ্ধিরগঞ্জের কয়জন ভোটার পলাশকে চিনে। ফতুল্লার কিছু পরিবহন শ্রমিকদের নিয়ে মিছিল আর শোডাউন করলেই জনপ্রিয়তার প্রমাণ হয়না। টাকা খরচ করলে চোরের সরদার রাও পলাশের চেয়ে বড় মিছিল বা শোডাউন করতে পারবে। তাই বলে চোরের সরদার বড় নেতা বা জনপ্রিয় ব্যক্তি বলে বিবেচিত হবে না।
একাধিক আওয়ামীলীগ নেতা জানায়, আসছে নির্বাচনে কিছু চাটুকাররা পলাশকে ট্রামকার্ড হিসেবে উপস্থাপন করার চেষ্টা করছে। তাদের মতে পলাশ ট্রামকার্ড হওয়ার মত কোন ব্যক্তি নয়। রিকশা, ইজিবাইক, ট্রাক চালক, হেলপার আর ভাড়া করে আনা গার্মেন্টস শ্রমিক দিয়ে মিছিল করলেই ট্রামকার্ড হওয়া যায়না। নিজেকে ট্রামকার্ড বানিয়ে একাদশ নির্বাচনে ফায়দা লোটার ফন্দি করছেন পলাশ। আর তার কিছু অনুসারী খুশিতে পন্ডিত্য শুরু করেছেন বলে মনে করছেন নেতারা। সুত্র জানায়, পলাশের মুখে নির্বাচন করার কোন আওয়াজ শোনা জায়নি। আওয়াজ তুলছে তার পন্ডিত অনুসারীরা। তাদের এই লাফা লাফি আর পন্ডিত্যকে দিনে স্বপ্ন দেখার সাথে তুলানা করছেন প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতারা। কিন্তু এই সব পন্ডিতদের জানা দরকার, যে সবপ্ন দেখা ভাল, তবে দিনে নয়।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সোনারগাঁয়ে টেক্সটাইল মিলে ও মিষ্টি কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ড

স্বপ্ন দেখা ভাল তবে দিনে নয়

আপডেট সময় : ০৯:২৮:১৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ জুন ২০১৮

স্টাফ রিপোর্টার : সবপ্ন দেখা ভাল, তবে দিনে নয়। কারণ দিনের সবপ্ন সত্যি হয়না। ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের বিভিন্ন প্রবিণ ও নবীন নেতারা এমন মন্তব্য করছেন ফতুল্লার বিতর্কিত শ্রমিকলীগ নেতা কাউসার আহমেদ পলাশ ও তার অনুসারীদের নিয়ে।আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে শ্রমিকলীগ নেতা কাউসার আহমেদ পলাশ এমপি নির্বাচন করার গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়া আর পলাশকে ট্রামকার্ড হিসেবে উপস্থাপন করার চেষ্টায় লিপ্ত হওয়ায় নেতারা এমন মন্তব্য করছেন।
তথ্য মতে, একাদশ সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে শ্রমিকলীগ নেতা কাউসার আহমেদ পলাশ নির্বাচন করবেন এমন খবর ছড়াচ্ছে একটি মহল। পলাশ দলীয় মনোনয়ন পাবেন এমনটাই আশাবাদী ওই মহলটি। অনেকের মতে পলাশ কেন, নির্বাচন যে কেউ করতে পারে। পলাশ নির্বান করবে এটা অবাস্তব কিছু নয়। কিন্তু পশ্ন হলো বিজয়ী হওয়া। জনগণের ভোটে নির্বাচিত হওয়ার মত যোগ্যতা পলাশের কতটুকু আছে। আর যদি দলীয় মনোনয়ন পেয়ে বিশেষ ভোটে বিজয়ী হয়ে যায় তা হলে সবপ্ন দেখতেই পারে। তবে আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা এতটা বোকা নয় যে মুখে দাঁড়ি,মাথায় টুপি আর গায়ে জুব্বা লাগালেই হাক্কানী আলেম মনে করে ইমামতি করতে বলবেন। তবে তা হতেও পারে যদি আওয়ামীলীগের কোন বড় দরবেশের মুরিদ হয়ে থাকে। অপর দিকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা এলাকাও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের অধিনে। সিদ্ধিরগঞ্জের কয়জন ভোটার পলাশকে চিনে। ফতুল্লার কিছু পরিবহন শ্রমিকদের নিয়ে মিছিল আর শোডাউন করলেই জনপ্রিয়তার প্রমাণ হয়না। টাকা খরচ করলে চোরের সরদার রাও পলাশের চেয়ে বড় মিছিল বা শোডাউন করতে পারবে। তাই বলে চোরের সরদার বড় নেতা বা জনপ্রিয় ব্যক্তি বলে বিবেচিত হবে না।
একাধিক আওয়ামীলীগ নেতা জানায়, আসছে নির্বাচনে কিছু চাটুকাররা পলাশকে ট্রামকার্ড হিসেবে উপস্থাপন করার চেষ্টা করছে। তাদের মতে পলাশ ট্রামকার্ড হওয়ার মত কোন ব্যক্তি নয়। রিকশা, ইজিবাইক, ট্রাক চালক, হেলপার আর ভাড়া করে আনা গার্মেন্টস শ্রমিক দিয়ে মিছিল করলেই ট্রামকার্ড হওয়া যায়না। নিজেকে ট্রামকার্ড বানিয়ে একাদশ নির্বাচনে ফায়দা লোটার ফন্দি করছেন পলাশ। আর তার কিছু অনুসারী খুশিতে পন্ডিত্য শুরু করেছেন বলে মনে করছেন নেতারা। সুত্র জানায়, পলাশের মুখে নির্বাচন করার কোন আওয়াজ শোনা জায়নি। আওয়াজ তুলছে তার পন্ডিত অনুসারীরা। তাদের এই লাফা লাফি আর পন্ডিত্যকে দিনে স্বপ্ন দেখার সাথে তুলানা করছেন প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতারা। কিন্তু এই সব পন্ডিতদের জানা দরকার, যে সবপ্ন দেখা ভাল, তবে দিনে নয়।