নারায়ণগঞ্জ ০৮:৫১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
সোনারগাঁওয়ে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত সিদ্ধিরগঞ্জে ৪টি কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হারামের পয়সা ব্যারামে খায় ,আমি হারাম খাই না খেতেও দেই না-সেলিম ওসমান ভূমি সম্পর্কিত সমস্যা থাকলে গণশুনানিতে আসার আহবান- না.গঞ্জে জেলা  প্রশাসক সিদ্ধিরগঞ্জে গ্যাসের দাবিতে ঢাকা-চটগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ সোনারগাঁওয়ে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২৪ অনুষ্ঠিত র‌্যাব পরিচয়ে ৫২ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় গ্রেফতার-৪ সিদ্ধিরগঞ্জে কাতার প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতি চিকিৎসার নামে কোনো প্রকার হয়রানি মেনে নেওয়া হবে না ঃ স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিকের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় গর্ভবতীর পোশাক শ্রমিক নিহত

আড়াইহাজারে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেয়ে মহা খুশি মিনারা বেগম

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৫৭:১৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২
  • ১৩৭ বার পড়া হয়েছে

রফিক রানা, ষ্টাফ রিপোর্টার:

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেয়ে বেজায় খুশি মিনারা বেগম। তিনি আড়াইহাজার উপজেলার  হাইজাদী ইউনিয়নের মাধবদী গ্রামের বাসিন্দা মৃত রুহুলআমিনের স্ত্রী। তার নিজের কোন বসতবাড়ী ও ভুমি না থাকায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আবেদন করে তিনি তার নামে দুই শতাংশ জায়গাসহ ঘরটি বরাদ্দ পান বলে জানান ।

মিনারা বেগম জানান, ভুমিহীন হিসেবে তিনি তার নামে জায়গাসহ একটি ঘর বরাদ্দ দেয়ার জন্য প্রধানন্ত্রীর দপ্তরে তার নাম টি যেন তালিকা ভুক্ত হয় সেই জন্য হাইজাদী ইউনিয়ন পরিষদে ছবি ও জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি জমা দেন। এরপর সরকারী প্রকৃয়া অনুযায়ি ঘরটি তিনি বরাদ্দ পান। তিনি আরও জানান,স্বামীর মৃত্যুর পর চার ছেলে সহ তিনি একবোরেই ভুমি ও বিত্তহীন হয়ে পড়েন। ছেলেরা বসত বাড়ী না থাকায় বিভিন্ন স্থানে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করছেন এবং তিনি নিজেও তার গ্রাম মাধবদীতেই একটি বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করছিলেন। তিনি জানান, ”আমার ওয়ার্ড মেম্বার আঃ খালেক এবং হাইজাদী ইউনিয়ন ভুমি অফিসের কর্মকর্তার সহকারী আঃ বাতেন আমাকে জানান যে, প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে আমার নামটি তালিকাভুক্ত হলে আমি দুই শতাংশ জায়গাসহ একটি ঘর বরাদ্দ পেতে পারি।তখন তাদের পরামর্শ মত আমি দুই কপি ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটো কপি তাদের মাধ্যমেই হাইজাদী ইউনিয়ন পরিষদে জমা দেই। হাইজাদী ইউনিয়ন পষিদের চেয়ারম্যান আলী হোসেন ভূঁইয়ার চেষ্টায় এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দয়ায় আমি দুই শতাংশ জায়গাসহ ঘরটি বরাদ্দ পাই। আমি প্রধানমন্ত্রী এবং আমার ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের জন্য মন থেকে দোয়া করি”। তিনি ১৮ দিন আগে এ ঘরে উঠেছেন বলে জানান।

এ ব্যাপারে হাইজাদী ইউনয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ আলী হোসেন ভূঁইয়া বলেন, এখানে কামালদী মৌজায় আর এস ৬৫ নং দাগে ৩০ শতাংশ সরকারী জায়গার উপর ঘর গুলো নির্মিত হচ্ছে। এর মধ্যে ৮টি ঘর নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ ভাবে শেষ হয়েছে এবং বাকী ঘর গুলো নির্মাণাধীন আছে।

আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রফিকুল ইসলাম জানান, এক জন ভুমিহীনের নামে একটি করে ঘর এবং দুই শতাংশ করে জায়গা বরাদ্দ হয়েছে। ঘরগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ হলে তালিকা অনুযায়ি দলিলসহ পত্যেককে বুঝিয়ে দেয়া হবে।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সোনারগাঁওয়ে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

আড়াইহাজারে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেয়ে মহা খুশি মিনারা বেগম

আপডেট সময় : ০৬:৫৭:১৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ অগাস্ট ২০২২

রফিক রানা, ষ্টাফ রিপোর্টার:

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেয়ে বেজায় খুশি মিনারা বেগম। তিনি আড়াইহাজার উপজেলার  হাইজাদী ইউনিয়নের মাধবদী গ্রামের বাসিন্দা মৃত রুহুলআমিনের স্ত্রী। তার নিজের কোন বসতবাড়ী ও ভুমি না থাকায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আবেদন করে তিনি তার নামে দুই শতাংশ জায়গাসহ ঘরটি বরাদ্দ পান বলে জানান ।

মিনারা বেগম জানান, ভুমিহীন হিসেবে তিনি তার নামে জায়গাসহ একটি ঘর বরাদ্দ দেয়ার জন্য প্রধানন্ত্রীর দপ্তরে তার নাম টি যেন তালিকা ভুক্ত হয় সেই জন্য হাইজাদী ইউনিয়ন পরিষদে ছবি ও জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি জমা দেন। এরপর সরকারী প্রকৃয়া অনুযায়ি ঘরটি তিনি বরাদ্দ পান। তিনি আরও জানান,স্বামীর মৃত্যুর পর চার ছেলে সহ তিনি একবোরেই ভুমি ও বিত্তহীন হয়ে পড়েন। ছেলেরা বসত বাড়ী না থাকায় বিভিন্ন স্থানে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করছেন এবং তিনি নিজেও তার গ্রাম মাধবদীতেই একটি বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করছিলেন। তিনি জানান, ”আমার ওয়ার্ড মেম্বার আঃ খালেক এবং হাইজাদী ইউনিয়ন ভুমি অফিসের কর্মকর্তার সহকারী আঃ বাতেন আমাকে জানান যে, প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে আমার নামটি তালিকাভুক্ত হলে আমি দুই শতাংশ জায়গাসহ একটি ঘর বরাদ্দ পেতে পারি।তখন তাদের পরামর্শ মত আমি দুই কপি ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটো কপি তাদের মাধ্যমেই হাইজাদী ইউনিয়ন পরিষদে জমা দেই। হাইজাদী ইউনিয়ন পষিদের চেয়ারম্যান আলী হোসেন ভূঁইয়ার চেষ্টায় এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দয়ায় আমি দুই শতাংশ জায়গাসহ ঘরটি বরাদ্দ পাই। আমি প্রধানমন্ত্রী এবং আমার ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের জন্য মন থেকে দোয়া করি”। তিনি ১৮ দিন আগে এ ঘরে উঠেছেন বলে জানান।

এ ব্যাপারে হাইজাদী ইউনয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ আলী হোসেন ভূঁইয়া বলেন, এখানে কামালদী মৌজায় আর এস ৬৫ নং দাগে ৩০ শতাংশ সরকারী জায়গার উপর ঘর গুলো নির্মিত হচ্ছে। এর মধ্যে ৮টি ঘর নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ ভাবে শেষ হয়েছে এবং বাকী ঘর গুলো নির্মাণাধীন আছে।

আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রফিকুল ইসলাম জানান, এক জন ভুমিহীনের নামে একটি করে ঘর এবং দুই শতাংশ করে জায়গা বরাদ্দ হয়েছে। ঘরগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ হলে তালিকা অনুযায়ি দলিলসহ পত্যেককে বুঝিয়ে দেয়া হবে।