নারায়ণগঞ্জ ০২:৫৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় গরিব মানুষের বেঁচে থাকা আরও কঠিন হয়ে গেল –আবু হাসান টিপু

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:২৫:৩৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৬ অগাস্ট ২০২২
  • ১৩ বার পড়া হয়েছে

প্রেস বিজ্ঞপ্তি ঃ সরকার সীমাহীন লুটপাট ও দুর্নীতির আর্থিক দায় জনগণের কাধে চাপাতেই জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য আবু হাসান টিপু।শনিবার (৬আগষ্ট)বিকালে নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সদস্য বিপ্লবী ওয়াকার্স পার্টি মোক্তার হোসেনের প্রেরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি থেকে পাওয়া । তিনি বলেছেন, গণদুশমন সরকার আরো একটি গণবিরোধী সিদ্ধান্ত দেশের মানুষের ওপর চাপিয়ে দিল। দেশের মানুষ দ্রব্যমূল্যের চরম ঊর্ধ্বগতির কষাঘাতে এমনিতেই দিশেহারা। উপরন্ত জ্বালানী তেলের এই দাম বাড়ানো পরিবহন খরচ থেকে শুরুকরে সর্বত্র দ্রব্য মূল্যের ভয়ঙ্কর উর্ধ্বগতি সৃষ্টি করবে। ফলে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় গরিব মানুষের বেঁচে থাকা আরও কঠিন হয়ে গেল।

আবু হাসান টিপু বলেছেন, জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির কারণে রপ্তানী উপযোগী দেশীয় পণ্যের উৎপাদন ব্যয়ও বাড়বে, দামও বাড়বে। এতে রপ্তানি শিল্পেও বিপর্যয় সৃষ্টি হবে। ভয়াবহ পরিণতির দিকে অগ্রসর হবে দেশের অর্থনীতি। হাহাকার উঠবে সাধারণ মানুষের মধ্যে।

তিনি বলেছেন অবিলম্বে সরবকার যদি জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির এই গণবিরোধী সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না করেন তবে সরকারের পতন আন্দোলন বেগবান করা ছাড়া জনগণের সামনে বিকল্প কোন পথ থাকবেনা। কেননা মানুষের পক্ষে দিনের পর দিন এই জুলুম আর মুখবুজে সহ্য করা সম্ভব নয়।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় গরিব মানুষের বেঁচে থাকা আরও কঠিন হয়ে গেল –আবু হাসান টিপু

আপডেট সময় : ১১:২৫:৩৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৬ অগাস্ট ২০২২

প্রেস বিজ্ঞপ্তি ঃ সরকার সীমাহীন লুটপাট ও দুর্নীতির আর্থিক দায় জনগণের কাধে চাপাতেই জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য আবু হাসান টিপু।শনিবার (৬আগষ্ট)বিকালে নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সদস্য বিপ্লবী ওয়াকার্স পার্টি মোক্তার হোসেনের প্রেরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি থেকে পাওয়া । তিনি বলেছেন, গণদুশমন সরকার আরো একটি গণবিরোধী সিদ্ধান্ত দেশের মানুষের ওপর চাপিয়ে দিল। দেশের মানুষ দ্রব্যমূল্যের চরম ঊর্ধ্বগতির কষাঘাতে এমনিতেই দিশেহারা। উপরন্ত জ্বালানী তেলের এই দাম বাড়ানো পরিবহন খরচ থেকে শুরুকরে সর্বত্র দ্রব্য মূল্যের ভয়ঙ্কর উর্ধ্বগতি সৃষ্টি করবে। ফলে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় গরিব মানুষের বেঁচে থাকা আরও কঠিন হয়ে গেল।

আবু হাসান টিপু বলেছেন, জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির কারণে রপ্তানী উপযোগী দেশীয় পণ্যের উৎপাদন ব্যয়ও বাড়বে, দামও বাড়বে। এতে রপ্তানি শিল্পেও বিপর্যয় সৃষ্টি হবে। ভয়াবহ পরিণতির দিকে অগ্রসর হবে দেশের অর্থনীতি। হাহাকার উঠবে সাধারণ মানুষের মধ্যে।

তিনি বলেছেন অবিলম্বে সরবকার যদি জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির এই গণবিরোধী সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না করেন তবে সরকারের পতন আন্দোলন বেগবান করা ছাড়া জনগণের সামনে বিকল্প কোন পথ থাকবেনা। কেননা মানুষের পক্ষে দিনের পর দিন এই জুলুম আর মুখবুজে সহ্য করা সম্ভব নয়।