নারায়ণগঞ্জ ০৭:২৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
অপরাধি যেই হোক ছাড় পাবেনা : ওসি গোলাম মোস্তফা মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত আদমজী ইপিজেডকে অশান্ত করছে জনপ্রতিনিধিরা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে মহিলা লীগ নেত্রীর শুভেচ্ছা বিনিময় না’গঞ্জ কারাগারে হাজতীর মৃত্যু ফতুল্লায় চোরাইকৃত ট্যাংকলড়ী উদ্ধার আড়াইহাজারের মিথিলা টেক্সটাইল ঘুরে গেলেন ৮ দেশের রাষ্ট্রদূতসহ ১৮ দেশের প্রতিনিধি সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে কাউন্সিলর ইকবাল হোসেনের মতবিনিময় ফতুল্লা ব্লাড ডোনার্সের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ শিক্ষা সিলেবাস বাতিলের দাবিতে খেলাফত মজলিসের বিক্ষোভ মিছিল

আড়াইহাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড প্রায় ৫ কোটি টাকার ক্ষতি

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:২১:১২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • ৪৮ বার পড়া হয়েছে

আড়াইহাজার(নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি:

আড়াইহাজারে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে সৃষ্ট ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে চোখের সামনে পুড়ে গেল ৪ টি টেক্সটাইল ২টি ওয়ার্কসপ,১টি ফার্নিচার, ১টি রিক্সার গ্যারেজ, ২টি সুতার কুনিং কারখানা ও ১ টি স্টেশনারী দোকান। এ ঘটনা শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর ) দুপুর ১টায় উপজেলার গোপালদীবাজার পৌর এলাকা সংলগ্ন উলুকান্দি পশ্চিমপাড়া এলাকায় ঘটেছে। খবর পেয়ে আড়াইহাজার ফায়ার সার্ভিসের ২টি ও মাধবদী স্টেশনের ২টি সহ মোট ৪টি ইউনিট ২ ঘন্টা চেষ্টার পর বিকেল তিনটায় আগুণ নিয়ন্ত্রণে আসে।

আড়াইহাজারের ইউএনও মো: রফিকুল ইসলাম দূর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে বলেছেন, এটা নিছক দূর্ঘটনা নাকি নাশকতা তা খতিয়ে দেখা হবে। এ ব্যাপারে গঠন করা হবে তদন্ত কমিটি। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সহায়তা করা হবে। এদিকে, ভয়াবহ এই অগ্নিকান্ডে ক্ষতির পরিমাণ ৪/৫ কোটি টাকা হবে বলে ধারনা করছেন গোপালদী তদন্ত কেন্দ্রের (ভারপ্রাপ্ত) ইনচার্জ আশরাফুল ইসলাম।

আড়াইহাজার ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক তানহারুল হক জানান, আপাতত ক্ষয়ক্ষতি নিরূপন করা সম্ভব হয়নি। তবে প্রাথমিকভাবে জানাগেছে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত। দুপুর ১টায় উলুকান্দি পশ্চিমপাড়ার শাহজালাল টেক্সটাইলে প্রথম আগুণ লাগে। এ সময় সকলেই ছিলেন মসজিদে। খবর পেয়ে অনেকে নামাজ ছেড়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে কাজ করেন। এই সময় স্থানীয় এক লোক আগুণ দেখতে পেয়েছেন এদের মধ্যে একজন ত্রিপল নাইনে (৯৯৯) কল করেন। ত্রিপল নাইন থেকে খবর পান আড়াইহাজার ও মাধবদী ফায়ার সার্ভিস স্টেশন। ৪টি ইউনিট দুই ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুণ নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

স্থানীয়রা জানান, ঠিক নামাজের সময় শাহজালাল টেক্সটাইল মিল থেকে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুণ লাগে। মিলের ও আশপাশের লোকজন সকলেই ছিলেন মসজিদে। ফলে আগুণের লেলিহান শিখা একে একে গ্রাস করে পাশ্ববর্তী হাবিবুল্লাহ টেক্সটাইল, সুবল টেক্সটাইল, হারিছুল হক টেক্সটাইল, আরিফের ওয়ার্কশপ, শহীদজামানের ওয়ার্কশপ, লোকনাথ বিশ্বাসের ফার্ণিচার, আলমের রিক্সার ও স্টেশনারী, আজগর আলীর সুতার কারখানা ও ইউসুফের কুলিং এর দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। সরেজমিনে দেখা গেছে, স্থানীয় শত শত যুবক আগুন নিভানোর কাজে অংশ নেন। ক্ষতিগ্রস্থদের আহাজারিতে ভারী হয়ে উঠেছে আকাশ।

শাহজালাল টেক্সটাইল মিলের মালিক শাহজাহালের সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। সে জানায়, তার মিলের দেড় কোটির টাকার সম্পদ পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

আড়াইহাজার থানার ওসি (তদন্ত) জোবায়ের আহমেদ জানান, মালিক পক্ষ ৫ কোটি টাকা দাবী করলেও তদন্ত সাপেক্ষ প্রকৃত ক্ষতির পরিমান নিরুপন করা হবে।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

অপরাধি যেই হোক ছাড় পাবেনা : ওসি গোলাম মোস্তফা

আড়াইহাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড প্রায় ৫ কোটি টাকার ক্ষতি

আপডেট সময় : ০৮:২১:১২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

আড়াইহাজার(নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি:

আড়াইহাজারে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে সৃষ্ট ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে চোখের সামনে পুড়ে গেল ৪ টি টেক্সটাইল ২টি ওয়ার্কসপ,১টি ফার্নিচার, ১টি রিক্সার গ্যারেজ, ২টি সুতার কুনিং কারখানা ও ১ টি স্টেশনারী দোকান। এ ঘটনা শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর ) দুপুর ১টায় উপজেলার গোপালদীবাজার পৌর এলাকা সংলগ্ন উলুকান্দি পশ্চিমপাড়া এলাকায় ঘটেছে। খবর পেয়ে আড়াইহাজার ফায়ার সার্ভিসের ২টি ও মাধবদী স্টেশনের ২টি সহ মোট ৪টি ইউনিট ২ ঘন্টা চেষ্টার পর বিকেল তিনটায় আগুণ নিয়ন্ত্রণে আসে।

আড়াইহাজারের ইউএনও মো: রফিকুল ইসলাম দূর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে বলেছেন, এটা নিছক দূর্ঘটনা নাকি নাশকতা তা খতিয়ে দেখা হবে। এ ব্যাপারে গঠন করা হবে তদন্ত কমিটি। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সহায়তা করা হবে। এদিকে, ভয়াবহ এই অগ্নিকান্ডে ক্ষতির পরিমাণ ৪/৫ কোটি টাকা হবে বলে ধারনা করছেন গোপালদী তদন্ত কেন্দ্রের (ভারপ্রাপ্ত) ইনচার্জ আশরাফুল ইসলাম।

আড়াইহাজার ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক তানহারুল হক জানান, আপাতত ক্ষয়ক্ষতি নিরূপন করা সম্ভব হয়নি। তবে প্রাথমিকভাবে জানাগেছে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত। দুপুর ১টায় উলুকান্দি পশ্চিমপাড়ার শাহজালাল টেক্সটাইলে প্রথম আগুণ লাগে। এ সময় সকলেই ছিলেন মসজিদে। খবর পেয়ে অনেকে নামাজ ছেড়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে কাজ করেন। এই সময় স্থানীয় এক লোক আগুণ দেখতে পেয়েছেন এদের মধ্যে একজন ত্রিপল নাইনে (৯৯৯) কল করেন। ত্রিপল নাইন থেকে খবর পান আড়াইহাজার ও মাধবদী ফায়ার সার্ভিস স্টেশন। ৪টি ইউনিট দুই ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুণ নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

স্থানীয়রা জানান, ঠিক নামাজের সময় শাহজালাল টেক্সটাইল মিল থেকে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুণ লাগে। মিলের ও আশপাশের লোকজন সকলেই ছিলেন মসজিদে। ফলে আগুণের লেলিহান শিখা একে একে গ্রাস করে পাশ্ববর্তী হাবিবুল্লাহ টেক্সটাইল, সুবল টেক্সটাইল, হারিছুল হক টেক্সটাইল, আরিফের ওয়ার্কশপ, শহীদজামানের ওয়ার্কশপ, লোকনাথ বিশ্বাসের ফার্ণিচার, আলমের রিক্সার ও স্টেশনারী, আজগর আলীর সুতার কারখানা ও ইউসুফের কুলিং এর দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। সরেজমিনে দেখা গেছে, স্থানীয় শত শত যুবক আগুন নিভানোর কাজে অংশ নেন। ক্ষতিগ্রস্থদের আহাজারিতে ভারী হয়ে উঠেছে আকাশ।

শাহজালাল টেক্সটাইল মিলের মালিক শাহজাহালের সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। সে জানায়, তার মিলের দেড় কোটির টাকার সম্পদ পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

আড়াইহাজার থানার ওসি (তদন্ত) জোবায়ের আহমেদ জানান, মালিক পক্ষ ৫ কোটি টাকা দাবী করলেও তদন্ত সাপেক্ষ প্রকৃত ক্ষতির পরিমান নিরুপন করা হবে।