নারায়ণগঞ্জ ০৩:১৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ১৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
সিদ্ধিরগঞ্জে মসজিদের বিরোধ নিস্পত্তি করায় হাজী ইয়াসিন মিয়ার বিরুদ্ধে অপবাদ সিদ্ধিরগঞ্জে ব্যবসায়ীর উপর হামলার ঘটনায় সন্ত্রাসী পানি আক্তারের বিরুদ্ধে মামলা সিদ্ধিরগঞ্জে অটোরিকশার ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নাঈম নিহত সিদ্ধিরগঞ্জে জমি দখল করতে সজু বাহিনীর হামলা আদমজী ইপিজেডের ব্যবসা ছিনিয়ে নিতে আক্তার বাহিনীর হামলায় আহত-২ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সম্পাদক হওয়ায় সিদ্ধিরগঞ্জে দেলোয়ারকে সংবর্ধনা ডিসিদের প্রতি ২৫ নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রী আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি পবিত্র শবে মেরাজ সিদ্ধিরগঞ্জে ডিবি পরিচয়ে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে গ্রেফতার ৬ সিদ্ধিরগঞ্জে অভিযানে  ৩ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা ভোক্তা অধিকার

সানারপাড়ে হাইব্রিডের রাজত্ব সওজের জায়গায় দোকান বসিয়ে চাঁদাবাজি

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:১৪:১৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১০ অগাস্ট ২০২১
  • ৯৮ বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি :সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড়ে সওজের জায়গা দখল করে অবৈধ ভাবে নির্মাণ করা হয়েছে বিভিন্ন দোকানপাট। তার মধ্যে পাঁচটি রয়েছে বাঁশের দোকান। বিএনপি ছেড়ে আওয়ামীলীগে অনুপ্রবেশকারী স্থানীয় বিতর্কিত এক নেতাকে ম্যানেজ করে এসব দোকান গড়ে তুলা হয়েছে। রহস্যজনক কারণে দেখেও না দেখার ভান করছে নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তারা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের উত্তরপাশে সানারপাড় ফুটওভার ব্রিজের পশ্চিমে সড়ক ও জনপদ বিভাগের সরকারি জলাশয় ভরাট করে অবৈধভাবে দোকানপাট নির্মাণ করা হয়েছে। এসব দোকানের মধ্যে পাঁচটি বাশেঁর ও বাকীগুলো হোটেল, চা পানের দোকান। এসব দোকান গড়ে তুলায় পানি চলাচলে বিঘœ ঘটছে। ফলে আশপাশ এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে বলে এলাকবাসীর অভিযোগ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন বাশেঁর দোকান মালিক জানান, অগ্রিম ২ লাখ ও দৈনিক তিনশ টাকায় ভাড়া দিয়ে দোকান চালাচ্ছেন। স্থানীয় মহিউদ্দিন আহমেদ মোল্লা, তোফায়েল হোসেন ও জসিম ওরফে কিলার জসিম এসব দোকান বসার অনুমতি দিয়ে একটি কাবের নামে ভাড়া আদায় করছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মহিউদ্দিন আহমেদ মোল্লা ছিলেন নাসিক ৩ নং ওয়ার্ড বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক। তার বিরুদ্ধে কয়েকটি নাশকতার মামলা হয়। তখন পুলিশী হয়রানী থেকে নিজের পিঠ বাঁচাতে গত ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে দল থেকে পদত্যাগ করে নিজের বাসায় সাংবাদিক সম্মেলন করে বিএনপি ছাড়ার ঘোষণা দেন। পরে নারায়ণগঞ্জ মহানগর শ্রমিকলীগে যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক হিসেবে প্রবেশ করে বনে যায় আওয়ামীলীগ নেতা। তোফায়েল আহমেদ যুবলীগ নেতা পরিচয় দিলেও তার দলীয় কোন পদনেই। পরিবহন চাঁদাবাজ হিসেবে এলাকায় পরিচিত। আর জসিম একজন বিতর্কিত লোক। তার বিরুদ্ধে হত্যাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। সে এলাকায় সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত।

এবিষয়ে মহিউদ্দিন মোল্লার সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি এসব দোকানপাট বসানো ও ভাড়া আদায়ের কথা অস্বীকার করেন। যারা এসব অভিযোগ করছে তাদের উপর আল্লাহর গজব পরবে বলে দু:খ প্রকাশ করেন। তবে তোফায়েল ও কিলার জসিম এসব দোকান বসিয়েছে বলে জানান।

তোফায়েল এর কাছে জানতে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও সম্ভব হয়নি। তার ব্যবহৃত নাম্বারে একাধিক বার ফোন করা হলে রিং হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহজালাল বাদল বলেন, আমি এসব বিষয়ে কিছু জানি না। কে বা কারা এসব দোকানপাট বসিয়ে ভাড়া আদায় করছে তা আমার জানা নেই। সরকারি জায়গায় অবৈধ ভাবে কেহ দখল করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব।

নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মেহেদী ইকবাল বলেন, কিছু দিন আগে আমরা উচ্ছেদ অভিযান করেছি। আমরা তাদেরকে নোটিশ দিয়েছি দোকানপাট সরিয়ে নিতে। না নিলে কিছুদিনের মধ্যেই আবার উচ্ছেদ অভিযান করা হবে।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

সিদ্ধিরগঞ্জে মসজিদের বিরোধ নিস্পত্তি করায় হাজী ইয়াসিন মিয়ার বিরুদ্ধে অপবাদ

সানারপাড়ে হাইব্রিডের রাজত্ব সওজের জায়গায় দোকান বসিয়ে চাঁদাবাজি

আপডেট সময় : ০২:১৪:১৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১০ অগাস্ট ২০২১

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি :সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড়ে সওজের জায়গা দখল করে অবৈধ ভাবে নির্মাণ করা হয়েছে বিভিন্ন দোকানপাট। তার মধ্যে পাঁচটি রয়েছে বাঁশের দোকান। বিএনপি ছেড়ে আওয়ামীলীগে অনুপ্রবেশকারী স্থানীয় বিতর্কিত এক নেতাকে ম্যানেজ করে এসব দোকান গড়ে তুলা হয়েছে। রহস্যজনক কারণে দেখেও না দেখার ভান করছে নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তারা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের উত্তরপাশে সানারপাড় ফুটওভার ব্রিজের পশ্চিমে সড়ক ও জনপদ বিভাগের সরকারি জলাশয় ভরাট করে অবৈধভাবে দোকানপাট নির্মাণ করা হয়েছে। এসব দোকানের মধ্যে পাঁচটি বাশেঁর ও বাকীগুলো হোটেল, চা পানের দোকান। এসব দোকান গড়ে তুলায় পানি চলাচলে বিঘœ ঘটছে। ফলে আশপাশ এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে বলে এলাকবাসীর অভিযোগ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন বাশেঁর দোকান মালিক জানান, অগ্রিম ২ লাখ ও দৈনিক তিনশ টাকায় ভাড়া দিয়ে দোকান চালাচ্ছেন। স্থানীয় মহিউদ্দিন আহমেদ মোল্লা, তোফায়েল হোসেন ও জসিম ওরফে কিলার জসিম এসব দোকান বসার অনুমতি দিয়ে একটি কাবের নামে ভাড়া আদায় করছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মহিউদ্দিন আহমেদ মোল্লা ছিলেন নাসিক ৩ নং ওয়ার্ড বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক। তার বিরুদ্ধে কয়েকটি নাশকতার মামলা হয়। তখন পুলিশী হয়রানী থেকে নিজের পিঠ বাঁচাতে গত ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে দল থেকে পদত্যাগ করে নিজের বাসায় সাংবাদিক সম্মেলন করে বিএনপি ছাড়ার ঘোষণা দেন। পরে নারায়ণগঞ্জ মহানগর শ্রমিকলীগে যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক হিসেবে প্রবেশ করে বনে যায় আওয়ামীলীগ নেতা। তোফায়েল আহমেদ যুবলীগ নেতা পরিচয় দিলেও তার দলীয় কোন পদনেই। পরিবহন চাঁদাবাজ হিসেবে এলাকায় পরিচিত। আর জসিম একজন বিতর্কিত লোক। তার বিরুদ্ধে হত্যাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। সে এলাকায় সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত।

এবিষয়ে মহিউদ্দিন মোল্লার সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি এসব দোকানপাট বসানো ও ভাড়া আদায়ের কথা অস্বীকার করেন। যারা এসব অভিযোগ করছে তাদের উপর আল্লাহর গজব পরবে বলে দু:খ প্রকাশ করেন। তবে তোফায়েল ও কিলার জসিম এসব দোকান বসিয়েছে বলে জানান।

তোফায়েল এর কাছে জানতে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও সম্ভব হয়নি। তার ব্যবহৃত নাম্বারে একাধিক বার ফোন করা হলে রিং হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহজালাল বাদল বলেন, আমি এসব বিষয়ে কিছু জানি না। কে বা কারা এসব দোকানপাট বসিয়ে ভাড়া আদায় করছে তা আমার জানা নেই। সরকারি জায়গায় অবৈধ ভাবে কেহ দখল করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব।

নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মেহেদী ইকবাল বলেন, কিছু দিন আগে আমরা উচ্ছেদ অভিযান করেছি। আমরা তাদেরকে নোটিশ দিয়েছি দোকানপাট সরিয়ে নিতে। না নিলে কিছুদিনের মধ্যেই আবার উচ্ছেদ অভিযান করা হবে।