নারায়ণগঞ্জ ০১:০৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
গুণী জনদের পদচারণায়  উদযাপিত  দৈনিক আজকের নীর বাংলা পত্রিকা’র ১৫ তম  বর্ষপূর্তি সিদ্ধিরগঞ্জে রাজউকের অভিযানে ক্ষুব্ধ ভবন মালিকরা রেকমত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের মজিবুর রহমান সভাপতির দায়িত্ব নিয়েই শিক্ষার মান উন্নয়নের তাগিদ অস্ত্রের লাইসেন্সের আবেদন না করেও অপপ্রচারের শিকার মহিউদ্দিন মোল্লা ! সাংবাদিক শাওনের বাবা ফিরোজ আহমেদ আর নেই রিয়াদে জমকালো আয়োজনে মাই টিভির ১৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন রিয়াদে প্রিমিয়াম ফুটবল লীগের ফাইনাল অনুষ্ঠিত জুন মাসের ১৭ তারিখ কোরবানির ঈদ পালিত হওয়ার সম্ভবনা রিয়াদে নোভ আল আম্মার ইষ্টাবলিস্ট এর আয়োজনে দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত রিয়াদে বেগম খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

ডি মারিয়ার গোলে মেসিদের স্বপ্ন পূরণ, ২৮ বছর পর শিরোপা আর্জেন্টিনার

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:১৬:৪৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১১ জুলাই ২০২১
  • ১৬৪ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক : ব্রাজিলকে ১-০ গোলে হারিয়ে ২৮ বছর পর কোপা আমেরিকার স্বপ্নের ট্রফিটা এখন আর্জেন্টিনা। এর আগে ১৯৯৩ সালে কোপা তথা বড় কোনো টুর্নামেন্টের শিরোপা জেতার স্বাদ পেয়েছিল তারা।

তাইতো ডি মারিয়ার চোখ ধাঁধানো গোলে আজ জয়ী মেসিদের আনন্দ-উল্লাসও দেখা গেল মাঠে।

Copa America LIVE: Watch Argentina v Brazil in final plus score updates -  Live - BBC Sport

১৯৯৩ সালের পর ৭টি ফাইনালে হার। আর্জেন্টিনা জানে ক্ষতটা কতো বড়! একটা ট্রফির জন্য যার বিশ্বসেরার তকমায় ছেদ পড়ে, প্রশ্ন উঠে যায়, সেই লিওনেল মেসি জানেন এই ট্রফিটার মহাত্ম্য কত!

২৮ বছর পর প্রথম কোনো বড় টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতল তারা। সবশেষ ১৯৯৩ সালে কোপা আমেরিকার শিরোপাই জিতেছিল তারা। এবার জিতে স্পর্শ করল টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ ১৫ শিরোপা জয়ের রেকর্ডধারী উরুগুয়েকে। প্রথমবারের মতো দেশের মাটিতে কোপা আমেরিকার শিরোপা জিততে ব্যর্থ হলো ব্রাজিল; আগের পাঁচ আসরেই শিরোপা জিতেছিল তারা। মহাদেশ সেরা টুর্নামেন্টে দেশের মাটিতে তারা হারল ১৯৭৫ সালের পর এই প্রথম।

২১ মিনিটে নিজেদের প্রথম ভালো সুযোগেই স্বাগতিকদের স্তব্ধ করে দেয় আর্জেন্টিনা। নিজেদের অর্ধ থেকে রদ্রিগো দে পলের পাস পেয়ে যান ডি মারিয়া। মাঝ পথে বল থামানোর সুযোগ ছিল রেনান লোদির, পারেননি তিনি। পিএসজি মিডফিল্ডার বল রিসিভ করে আগুয়ান গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে পাঠান জালে। শেষ পর্যন্ত এই এক গোলেই ঠিক হয় আর্জেন্টিনার শিরোপা ভাগ্য। মেসিদের মুখে ফুটে হাসি।

কোপা আমেরিকায় এই জয়ে, আর্জেন্টিনার ২৮ বছরের শিরোপা খরা কাটিয়েই যে মেসি বিশ্বজয়ী পেলে, মারাডোনাকে ছাপিয়ে গেছেন এমন নয়। তবে সর্বকালের সেরা আলোচনায় মেসির উপস্থিতি নিশ্চিত হয়ে গেল এবার। ছয় ব্যালন ডি’অর জয়ের রেকর্ড আগে থেকেই মেসির। কোপা আমেরিকার মুকুট মাথায় তোলার পর হয়তো এসে যেতে পারে সপ্তমটিও।

এর আগে তিনটি ফাইনাল খেলেছেন মেসি। হয়টি ট্রফি জেতা। ২০১৪ বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনালে উঠেও হারতে হয়েছিল জার্মানির কাছে শেষ সময়ে গোটশের গোলে। সেটাও হয়েছিল ব্রাজিলে। এরপর টানা দুই বছর কোপার ফাইনালে চিলির কাছে টাইব্রেকারে হার। অভিমানে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে বিদায়ই নিয়েছিলেন তিনি। পরে আবার ফিরেছেনও। অন্তত একটি শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে।

২০১৪ সালে জার্মানির বিপক্ষে যে মাঠে হেরেছিলেন বিশ্বকাপের ফাইনালে, যে মাঠে আছে আর্জেন্টিনার অনেক বেদনার কাব্য সেই ঐতিহ্যবাহী মারাকানা স্টেডিয়ামে জিতলেন দেশের হয়ে প্রথম শিরোপা।

ব্রাজিল বিশ্বকাপে তো সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার গোল্ডেন বলও জিতেছিলেন মেসি। এবার কোপাতেও তাই। শিরোপার সাথে টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার। পৃথিবীতে এখন মেসির চেয়ে সুখী মানুষ মনে আর কেউ নেই।

চার গোল করে ছিলেন আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতা। তার পাঁচ অ্যাসিস্ট তো কোপা আমেরিকার ইতিহাসেই রেকর্ড। এত গোল কোনো আসরে ছিল না কারও। এই টুর্নামেন্ট যেন মেসির প্রাপ্তির টুর্নামেন্ট। হাভিয়ের মাসচেরানোকে ছাড়িয়ে গড়লেন দেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ড। স্পর্শ করলেন সবদেশ মিলিয়ে কোপা আমেরিকার ইতিহাসে সর্বোচ্চ ম্যাচ খেলার রেকর্ড।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

গুণী জনদের পদচারণায়  উদযাপিত  দৈনিক আজকের নীর বাংলা পত্রিকা’র ১৫ তম  বর্ষপূর্তি

ডি মারিয়ার গোলে মেসিদের স্বপ্ন পূরণ, ২৮ বছর পর শিরোপা আর্জেন্টিনার

আপডেট সময় : ০৩:১৬:৪৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১১ জুলাই ২০২১

অনলাইন ডেস্ক : ব্রাজিলকে ১-০ গোলে হারিয়ে ২৮ বছর পর কোপা আমেরিকার স্বপ্নের ট্রফিটা এখন আর্জেন্টিনা। এর আগে ১৯৯৩ সালে কোপা তথা বড় কোনো টুর্নামেন্টের শিরোপা জেতার স্বাদ পেয়েছিল তারা।

তাইতো ডি মারিয়ার চোখ ধাঁধানো গোলে আজ জয়ী মেসিদের আনন্দ-উল্লাসও দেখা গেল মাঠে।

Copa America LIVE: Watch Argentina v Brazil in final plus score updates -  Live - BBC Sport

১৯৯৩ সালের পর ৭টি ফাইনালে হার। আর্জেন্টিনা জানে ক্ষতটা কতো বড়! একটা ট্রফির জন্য যার বিশ্বসেরার তকমায় ছেদ পড়ে, প্রশ্ন উঠে যায়, সেই লিওনেল মেসি জানেন এই ট্রফিটার মহাত্ম্য কত!

২৮ বছর পর প্রথম কোনো বড় টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতল তারা। সবশেষ ১৯৯৩ সালে কোপা আমেরিকার শিরোপাই জিতেছিল তারা। এবার জিতে স্পর্শ করল টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ ১৫ শিরোপা জয়ের রেকর্ডধারী উরুগুয়েকে। প্রথমবারের মতো দেশের মাটিতে কোপা আমেরিকার শিরোপা জিততে ব্যর্থ হলো ব্রাজিল; আগের পাঁচ আসরেই শিরোপা জিতেছিল তারা। মহাদেশ সেরা টুর্নামেন্টে দেশের মাটিতে তারা হারল ১৯৭৫ সালের পর এই প্রথম।

২১ মিনিটে নিজেদের প্রথম ভালো সুযোগেই স্বাগতিকদের স্তব্ধ করে দেয় আর্জেন্টিনা। নিজেদের অর্ধ থেকে রদ্রিগো দে পলের পাস পেয়ে যান ডি মারিয়া। মাঝ পথে বল থামানোর সুযোগ ছিল রেনান লোদির, পারেননি তিনি। পিএসজি মিডফিল্ডার বল রিসিভ করে আগুয়ান গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে পাঠান জালে। শেষ পর্যন্ত এই এক গোলেই ঠিক হয় আর্জেন্টিনার শিরোপা ভাগ্য। মেসিদের মুখে ফুটে হাসি।

কোপা আমেরিকায় এই জয়ে, আর্জেন্টিনার ২৮ বছরের শিরোপা খরা কাটিয়েই যে মেসি বিশ্বজয়ী পেলে, মারাডোনাকে ছাপিয়ে গেছেন এমন নয়। তবে সর্বকালের সেরা আলোচনায় মেসির উপস্থিতি নিশ্চিত হয়ে গেল এবার। ছয় ব্যালন ডি’অর জয়ের রেকর্ড আগে থেকেই মেসির। কোপা আমেরিকার মুকুট মাথায় তোলার পর হয়তো এসে যেতে পারে সপ্তমটিও।

এর আগে তিনটি ফাইনাল খেলেছেন মেসি। হয়টি ট্রফি জেতা। ২০১৪ বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনালে উঠেও হারতে হয়েছিল জার্মানির কাছে শেষ সময়ে গোটশের গোলে। সেটাও হয়েছিল ব্রাজিলে। এরপর টানা দুই বছর কোপার ফাইনালে চিলির কাছে টাইব্রেকারে হার। অভিমানে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে বিদায়ই নিয়েছিলেন তিনি। পরে আবার ফিরেছেনও। অন্তত একটি শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে।

২০১৪ সালে জার্মানির বিপক্ষে যে মাঠে হেরেছিলেন বিশ্বকাপের ফাইনালে, যে মাঠে আছে আর্জেন্টিনার অনেক বেদনার কাব্য সেই ঐতিহ্যবাহী মারাকানা স্টেডিয়ামে জিতলেন দেশের হয়ে প্রথম শিরোপা।

ব্রাজিল বিশ্বকাপে তো সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার গোল্ডেন বলও জিতেছিলেন মেসি। এবার কোপাতেও তাই। শিরোপার সাথে টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার। পৃথিবীতে এখন মেসির চেয়ে সুখী মানুষ মনে আর কেউ নেই।

চার গোল করে ছিলেন আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতা। তার পাঁচ অ্যাসিস্ট তো কোপা আমেরিকার ইতিহাসেই রেকর্ড। এত গোল কোনো আসরে ছিল না কারও। এই টুর্নামেন্ট যেন মেসির প্রাপ্তির টুর্নামেন্ট। হাভিয়ের মাসচেরানোকে ছাড়িয়ে গড়লেন দেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ড। স্পর্শ করলেন সবদেশ মিলিয়ে কোপা আমেরিকার ইতিহাসে সর্বোচ্চ ম্যাচ খেলার রেকর্ড।