নারায়ণগঞ্জ ০১:৫৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আড়াইহাজারে ঝগড়া থামাতে গিয়ে হামলায় আহত কাশেমের মৃত্যু

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৫০:৫১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৬ জুন ২০২১
  • ১১৩ বার পড়া হয়েছে

মোঃ জিয়াউর রহমান:

আড়াইহাজারে ঝগড়া থামাতে গিয়ে হামলায় আহত কাশেমের (৫৬) মৃত্যু হয়েছে। গত ২১ জুন উপজেলার বিশনন্দী ইউনিয়নের চৈতনকান্দা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। নিহত কাশেম মানিকপুর গ্রামের মৃত চাঁন মিয়ার ছেলে। শুক্রবার বিকালে তার লাশ গ্রামের বাড়ি পৌছঁলে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের সৃস্টি হয়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ২১ জুন বাড়ির উপর দিয়ে পানি পড়া নিয়ে উপজেলার চৈতনকান্দা গ্রামের ইউসুফ ও স্বপনদের মাঝে প্রথমে তর্ক বিতর্ক হয়। এই সময় ইউসুফের স্ত্রী সুফিয়া প্রতিপক্ষের একজনকে মারধর করে। এতে শুরু হয় সংঘর্ষ। সংঘর্ষে ৩/৪ জন আহত হয়। আহতরা বেশীর ভাগই স্বপনের লোক। এদিকে ঘটনা থামাতে পাশের গ্রামের কাশেম ঘটনাস্থলে গেলে ইফসুফের লোকজন তার উপরই হামলা করে। হামালায় কাশেম আহত হয়। পরে স্বজন ও স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতলে নেওয়ার পর শুক্রবার বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

আড়াইহাজার থানার ওসি আনিচুর রহমান মোল্লা জানান, ঘটনার পরই হামলায় আহত কাশেমের ভাই বাদী হয়ে ৪ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ২/৩ জনকে আসামী করে থানায় একটি হত্যার চেস্টার মামলা দায়ের করেন। সেই মামলাটি এখন হত্যা মামলায় রুপান্তিত করা হবে। ইতিপূর্বে হত্যার চেস্টা মামলার আসামীরা হলে, ইফসুফ, তার ছেলে ইয়াছিন, জিলানী স্ত্রী সুফিয়া বেগম প্রমুখ।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

আড়াইহাজারে ঝগড়া থামাতে গিয়ে হামলায় আহত কাশেমের মৃত্যু

আপডেট সময় : ০৬:৫০:৫১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৬ জুন ২০২১

মোঃ জিয়াউর রহমান:

আড়াইহাজারে ঝগড়া থামাতে গিয়ে হামলায় আহত কাশেমের (৫৬) মৃত্যু হয়েছে। গত ২১ জুন উপজেলার বিশনন্দী ইউনিয়নের চৈতনকান্দা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। নিহত কাশেম মানিকপুর গ্রামের মৃত চাঁন মিয়ার ছেলে। শুক্রবার বিকালে তার লাশ গ্রামের বাড়ি পৌছঁলে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের সৃস্টি হয়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ২১ জুন বাড়ির উপর দিয়ে পানি পড়া নিয়ে উপজেলার চৈতনকান্দা গ্রামের ইউসুফ ও স্বপনদের মাঝে প্রথমে তর্ক বিতর্ক হয়। এই সময় ইউসুফের স্ত্রী সুফিয়া প্রতিপক্ষের একজনকে মারধর করে। এতে শুরু হয় সংঘর্ষ। সংঘর্ষে ৩/৪ জন আহত হয়। আহতরা বেশীর ভাগই স্বপনের লোক। এদিকে ঘটনা থামাতে পাশের গ্রামের কাশেম ঘটনাস্থলে গেলে ইফসুফের লোকজন তার উপরই হামলা করে। হামালায় কাশেম আহত হয়। পরে স্বজন ও স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতলে নেওয়ার পর শুক্রবার বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

আড়াইহাজার থানার ওসি আনিচুর রহমান মোল্লা জানান, ঘটনার পরই হামলায় আহত কাশেমের ভাই বাদী হয়ে ৪ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ২/৩ জনকে আসামী করে থানায় একটি হত্যার চেস্টার মামলা দায়ের করেন। সেই মামলাটি এখন হত্যা মামলায় রুপান্তিত করা হবে। ইতিপূর্বে হত্যার চেস্টা মামলার আসামীরা হলে, ইফসুফ, তার ছেলে ইয়াছিন, জিলানী স্ত্রী সুফিয়া বেগম প্রমুখ।