নারায়ণগঞ্জ ১১:২৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
সোনারগাঁওয়ে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত সিদ্ধিরগঞ্জে ৪টি কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হারামের পয়সা ব্যারামে খায় ,আমি হারাম খাই না খেতেও দেই না-সেলিম ওসমান ভূমি সম্পর্কিত সমস্যা থাকলে গণশুনানিতে আসার আহবান- না.গঞ্জে জেলা  প্রশাসক সিদ্ধিরগঞ্জে গ্যাসের দাবিতে ঢাকা-চটগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ সোনারগাঁওয়ে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২৪ অনুষ্ঠিত র‌্যাব পরিচয়ে ৫২ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় গ্রেফতার-৪ সিদ্ধিরগঞ্জে কাতার প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতি চিকিৎসার নামে কোনো প্রকার হয়রানি মেনে নেওয়া হবে না ঃ স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিকের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় গর্ভবতীর পোশাক শ্রমিক নিহত

কিশোরীকে দিনের বেলায় মুখে গামছা পেছিয়ে গণধর্ষন

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:০৭:০৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ এপ্রিল ২০২১
  • ১৮৫ বার পড়া হয়েছে

নোয়াখালী থেকে, অনুপ সিংহ : নোয়াখালীর সোনানাইমুড়ীতে কিশোরীকে মুখে গামছা পেছিয়ে দিনের বেলায় জোরপূর্বক ধান ক্ষেতে নিয়ে পালাক্রমে গণধর্ষন করে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার বিকাল ৫ টার দিকে উপজেলার বজরা ইউনিয়নের পশ্চিম বজরা গ্রামে।

সোনাইমুড়ী থানা পুলিশ রাতেই ভিকটিম কিশোরীকে উদ্ধার করে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর ৩ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষন মামলা রুজু করে। যার নং-২৮।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পশ্চিম বজরা গ্রামের হতদরিদ্র রিক্সা চালক আবু জাহেরের কিশোরী কণ্যা বিলকিছ আক্তার (১১) বৃহস্পতিবার বিকাল ৫ টার দিকে ঐ গ্রামের আবুলের দোকানে মোবাইল কার্ড কিনতে যায়। দোকান থেকে ফেরার পথে একই গ্রামের বাকের মিয়ার বখাটে ছেলে আবদুর রব (২৩) তার গতি রোধ করে রাস্তায় দাঁড় করে রাখে। পরে পশ্চিম বজরা গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে রিপা(২৮) এসে উভয়ে তার মুখে গামছা পেছিয়ে কাচারী স্কুলের পাশে নির্জনস্থান ধান ক্ষেতে নিয়ে যায়। একই গ্রামের সেরু মিয়ার পুত্র সালা উদ্দিন (২৯) পাহারা দেয়। আর বখাটে আবদুর রব ও রিপা তাকে পালাক্রমে ধর্ষন করে।

পরে কিশোরী বাড়ীতে এসে বিষয়টি তার অভিভাবককে জানালে ঘটনাটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে সোনাইমুড়ী থানা পুলিশ গিয়ে রাত ৮ টার দিকে ধর্ষিতাকে থানায় নিয়ে এসে জিজ্ঞাসা বাদ করে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত্রেই কিশোরীর মা জহুরা বেগম বাদী হয়ে ৩ জনকে বিবাদী করে সোনাইমুড়ী থানায় ধর্ষনের অভিযোগে মামলা দায়ের করে। এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত ধর্ষনকারীদের গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়নি পুলিশ। সোনাইমুড়ী থানার ওসি ও এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গিয়াস উদ্দিন জানান, ধর্ষিতাকে মেডিকেল পরীক্ষা করার জন্য ও জবানবন্দী দিতে বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষনের অভিযোগে মামলা হয়েছে। দোষীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সোনারগাঁওয়ে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

কিশোরীকে দিনের বেলায় মুখে গামছা পেছিয়ে গণধর্ষন

আপডেট সময় : ১২:০৭:০৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ এপ্রিল ২০২১

নোয়াখালী থেকে, অনুপ সিংহ : নোয়াখালীর সোনানাইমুড়ীতে কিশোরীকে মুখে গামছা পেছিয়ে দিনের বেলায় জোরপূর্বক ধান ক্ষেতে নিয়ে পালাক্রমে গণধর্ষন করে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার বিকাল ৫ টার দিকে উপজেলার বজরা ইউনিয়নের পশ্চিম বজরা গ্রামে।

সোনাইমুড়ী থানা পুলিশ রাতেই ভিকটিম কিশোরীকে উদ্ধার করে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর ৩ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষন মামলা রুজু করে। যার নং-২৮।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পশ্চিম বজরা গ্রামের হতদরিদ্র রিক্সা চালক আবু জাহেরের কিশোরী কণ্যা বিলকিছ আক্তার (১১) বৃহস্পতিবার বিকাল ৫ টার দিকে ঐ গ্রামের আবুলের দোকানে মোবাইল কার্ড কিনতে যায়। দোকান থেকে ফেরার পথে একই গ্রামের বাকের মিয়ার বখাটে ছেলে আবদুর রব (২৩) তার গতি রোধ করে রাস্তায় দাঁড় করে রাখে। পরে পশ্চিম বজরা গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে রিপা(২৮) এসে উভয়ে তার মুখে গামছা পেছিয়ে কাচারী স্কুলের পাশে নির্জনস্থান ধান ক্ষেতে নিয়ে যায়। একই গ্রামের সেরু মিয়ার পুত্র সালা উদ্দিন (২৯) পাহারা দেয়। আর বখাটে আবদুর রব ও রিপা তাকে পালাক্রমে ধর্ষন করে।

পরে কিশোরী বাড়ীতে এসে বিষয়টি তার অভিভাবককে জানালে ঘটনাটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে সোনাইমুড়ী থানা পুলিশ গিয়ে রাত ৮ টার দিকে ধর্ষিতাকে থানায় নিয়ে এসে জিজ্ঞাসা বাদ করে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত্রেই কিশোরীর মা জহুরা বেগম বাদী হয়ে ৩ জনকে বিবাদী করে সোনাইমুড়ী থানায় ধর্ষনের অভিযোগে মামলা দায়ের করে। এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত ধর্ষনকারীদের গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়নি পুলিশ। সোনাইমুড়ী থানার ওসি ও এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গিয়াস উদ্দিন জানান, ধর্ষিতাকে মেডিকেল পরীক্ষা করার জন্য ও জবানবন্দী দিতে বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষনের অভিযোগে মামলা হয়েছে। দোষীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।