নারায়ণগঞ্জ ০১:০০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
সোনারগাঁওয়ে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত সিদ্ধিরগঞ্জে ৪টি কারখানার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন হারামের পয়সা ব্যারামে খায় ,আমি হারাম খাই না খেতেও দেই না-সেলিম ওসমান ভূমি সম্পর্কিত সমস্যা থাকলে গণশুনানিতে আসার আহবান- না.গঞ্জে জেলা  প্রশাসক সিদ্ধিরগঞ্জে গ্যাসের দাবিতে ঢাকা-চটগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ সোনারগাঁওয়ে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২৪ অনুষ্ঠিত র‌্যাব পরিচয়ে ৫২ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় গ্রেফতার-৪ সিদ্ধিরগঞ্জে কাতার প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতি চিকিৎসার নামে কোনো প্রকার হয়রানি মেনে নেওয়া হবে না ঃ স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিকের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় গর্ভবতীর পোশাক শ্রমিক নিহত

ছেলের মৃত্যুর খবরে পিতার মৃত্যু

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জে এজমায় শ^াস কষ্ট ও জ¦র নিয়ে রিমন সাউদ (২৪) নামে এক যুবকের মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে এক ঘন্টার ব্যবধানে তার পিতা হাজী ইয়ার হোসেনে (৬০) মারা গেছে বলে জানা গেছে। সোমবার (১১ মে) ভোর ৬টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছেলে ও ৭টায় পিতার মৃত্যু হয়। এক ঘন্টার ব্যবধানে বাবা ও ছেলের এমন করুণ মৃত্যুর খবরে এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া।
মারা যাওয়া ব্যক্তিরা হলেন, মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জের ৫নং ওয়ার্ডের আজিবপুর সর্দারপাড়া এলাকার হাজী ইয়ার হোসেন ও তার ছেলে রিমন সাউদ। হাজী ইয়ার হোসেন সর্দারপাড়া জামে মসজিদের সভাপতি এবং একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী ছিলেন।
রিমনের এজমা সমস্যার কারণে জ¦র, কাশি ও শ^াসকষ্ট থাকায় করোনা সন্দেহে নমুনা পরীক্ষা করা হলে মেডিকেল থেকে তার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে বলে জানিয়েছেন তার পরিবারের লোকজন।
মৃত রিমেরন চাচাতো ভাই মাসুম সাউদ জানায়, আমার ভাই সারক্ষান এসি কক্ষে থাকার কারণে জ¦র ও শ^াস কষ্ট ছিল। গতকাল ভোর রাত ৩টার দিকে অসুস্থ্য বোধ করলে আমার চাচাতো ভাই রিমন সাউদ নিজ বাড়ির ২য় তলা থেকে পায়ে হেটে গাড়িতে উঠে। পরে ঢাকার বিভিন্ন হাসাপাতলে নিয়ে যাই। কিন্তু তার জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট থাকার কারণে করোনা সন্দেহে কোন হাসপাতালে ভর্তি নেয় নাই। পরে আমরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভোর ৬ টার দিকে সেখানে তার মৃত্যু হয়। ছেলের মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে শোক সইতে না পেরে হার্ট এ্যাটাক করেন তার পিতা হাজী ইয়ার হোসেন। তাকেও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে ৭ টার দিকে তিনিও মারা যায়। বিকালে সিদ্ধিরগঞ্জের সাইলো রোডের গ্যারেজ সংলগ্ন জামে মসজিদের সামনে জানাজা শেষে একই এলাকার কবরস্থানে পিতা-পুত্রকে দাফন করা হয়।
এ ব্যাপারে নাসিক ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জিএম সাদরিল জানায়, পূর্বে থেকেই রিমনের এজমা সমস্যা ছিল। তার পরিবারের সাথে কথা বলে জানতে পেরেছি যে গত কয়েকদিন ধরে সে জ¦র ও শ^াস কষ্টে ভোগছিলেন। রবিবার রাতে অসুস্থ্য হয়ে পরলে ঢাকার কয়েকটি হাসপাতালে নিয়ে গেলেও কোথাও না রাখায় পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই ভোরে তার মৃত্যু হয়। ছেলের মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে পিতা হাজী ইয়ার হোসেন হার্ট এ্যাটাক করে। এসময় ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে গেলে তিনি মৃত্যু বরণ করেন। মেডিকেলের রিপোর্টে রিমনের করোনা নেগেটিভ এসেছে। আমি ওই শোক সন্তপ্ত পরিবারের খোঁজ খবর নিয়ে সমবেদনা জানিয়েছি এবং লোকজন দিয়ে তাদের জন্য খাবার সামগ্রী পাঠিয়েছি।
সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ফারুক জানায়, শ^াস কষ্টের কারণেই রিমনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে কোন রোগী মারা গেলে সাথে সাথে আমাদেরকে রিপোর্ট পাঠায়। রিপোর্টে তার করোনা নেগেটিভ এসেছে।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সোনারগাঁওয়ে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

ছেলের মৃত্যুর খবরে পিতার মৃত্যু

আপডেট সময় : ০৫:০১:১২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ মে ২০২০

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জে এজমায় শ^াস কষ্ট ও জ¦র নিয়ে রিমন সাউদ (২৪) নামে এক যুবকের মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে এক ঘন্টার ব্যবধানে তার পিতা হাজী ইয়ার হোসেনে (৬০) মারা গেছে বলে জানা গেছে। সোমবার (১১ মে) ভোর ৬টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছেলে ও ৭টায় পিতার মৃত্যু হয়। এক ঘন্টার ব্যবধানে বাবা ও ছেলের এমন করুণ মৃত্যুর খবরে এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া।
মারা যাওয়া ব্যক্তিরা হলেন, মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জের ৫নং ওয়ার্ডের আজিবপুর সর্দারপাড়া এলাকার হাজী ইয়ার হোসেন ও তার ছেলে রিমন সাউদ। হাজী ইয়ার হোসেন সর্দারপাড়া জামে মসজিদের সভাপতি এবং একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী ছিলেন।
রিমনের এজমা সমস্যার কারণে জ¦র, কাশি ও শ^াসকষ্ট থাকায় করোনা সন্দেহে নমুনা পরীক্ষা করা হলে মেডিকেল থেকে তার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে বলে জানিয়েছেন তার পরিবারের লোকজন।
মৃত রিমেরন চাচাতো ভাই মাসুম সাউদ জানায়, আমার ভাই সারক্ষান এসি কক্ষে থাকার কারণে জ¦র ও শ^াস কষ্ট ছিল। গতকাল ভোর রাত ৩টার দিকে অসুস্থ্য বোধ করলে আমার চাচাতো ভাই রিমন সাউদ নিজ বাড়ির ২য় তলা থেকে পায়ে হেটে গাড়িতে উঠে। পরে ঢাকার বিভিন্ন হাসাপাতলে নিয়ে যাই। কিন্তু তার জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট থাকার কারণে করোনা সন্দেহে কোন হাসপাতালে ভর্তি নেয় নাই। পরে আমরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভোর ৬ টার দিকে সেখানে তার মৃত্যু হয়। ছেলের মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে শোক সইতে না পেরে হার্ট এ্যাটাক করেন তার পিতা হাজী ইয়ার হোসেন। তাকেও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে ৭ টার দিকে তিনিও মারা যায়। বিকালে সিদ্ধিরগঞ্জের সাইলো রোডের গ্যারেজ সংলগ্ন জামে মসজিদের সামনে জানাজা শেষে একই এলাকার কবরস্থানে পিতা-পুত্রকে দাফন করা হয়।
এ ব্যাপারে নাসিক ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জিএম সাদরিল জানায়, পূর্বে থেকেই রিমনের এজমা সমস্যা ছিল। তার পরিবারের সাথে কথা বলে জানতে পেরেছি যে গত কয়েকদিন ধরে সে জ¦র ও শ^াস কষ্টে ভোগছিলেন। রবিবার রাতে অসুস্থ্য হয়ে পরলে ঢাকার কয়েকটি হাসপাতালে নিয়ে গেলেও কোথাও না রাখায় পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই ভোরে তার মৃত্যু হয়। ছেলের মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে পিতা হাজী ইয়ার হোসেন হার্ট এ্যাটাক করে। এসময় ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে গেলে তিনি মৃত্যু বরণ করেন। মেডিকেলের রিপোর্টে রিমনের করোনা নেগেটিভ এসেছে। আমি ওই শোক সন্তপ্ত পরিবারের খোঁজ খবর নিয়ে সমবেদনা জানিয়েছি এবং লোকজন দিয়ে তাদের জন্য খাবার সামগ্রী পাঠিয়েছি।
সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ফারুক জানায়, শ^াস কষ্টের কারণেই রিমনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে কোন রোগী মারা গেলে সাথে সাথে আমাদেরকে রিপোর্ট পাঠায়। রিপোর্টে তার করোনা নেগেটিভ এসেছে।