নারায়ণগঞ্জ ০৮:১৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩১ মে ২০২৩, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সিদ্ধিরগঞ্জে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাতের আঁধারে জালাল উদ্দিনের জমি দখলের চেষ্টা

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:১০:৪৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৫ অক্টোবর ২০১৯
  • ২৬৪ বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি :সিদ্ধিরগঞ্জের আটি এলাকায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাতের আঁধারে মো: জালাল উদ্দিনের জমি দখল করতে নির্মাণ কাজ চালিয়েছে মো: জহিরুল হকগং। গত বৃহস্পতিবার দিবাগত গভীর রাতে স্থানীয় সন্ত্রাসী ভূমিসদ্যুদের নিয়ে নালিশা জমিতে নির্মাণ কাজ করেছে বলে জালাল উদ্দিন অভিযোগ জানায়।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, আর.এস ২ নং আটি মৌজায় সি.এস খতিয়ান নং ২২৮, দাগ নং ২৩৩, এস. এখতিয়ান নং ৩৪৩, দাগ নং ২৩৪ এবং আর . এস ৩৪৭, ৫১দাগ নং ৩৮৯ ও ৩৮৬ নং দাগে মোঃ জালাল উদ্দীন ক্রয় সূত্রে ২৭০ শতাংশ জমির মালিক হয়ে একাংশে বাড়ি-ঘর নির্মাণ করে ভোগ দখল করে আসছে। আটি এলাকার মৃত হাবিবুল্লাহর ছেলে জহিরুল হকগং এই জায়গার কিছু অংশ দখল করার চেষ্টা চালায়। তখন জালাল উদ্দিন গত ১৭ সেপ্টেম্বন নারায়ণগঞ্জ সহকারী জজ ২য় আদালতে একটি দেওয়ানী মামলা করেন। যার নং ২৫৪/১৯। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে বিবাদী মৃত হাবিবুল্লাহর ছেলে মো: জহিরুল হক, তার ছেলে মুরাদ হোসেন, আজিম উদ্দিনের ছেলে রমজানকে নোটিশ প্রাপ্তির ১৫ দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দিয়ে আগামী ৩১ অক্টোবর পরবর্তী শুনানির তারিখ ধার্য করেন। পাশাপাশি বিবাধী পক্ষ নির্ধারিত তারিখে কারণ দর্শনো ও শুনানি না হওয়া নালিশী ভূমিতে উভয় পক্ষকে স্থিতাবস্থা বজায় রাখার আদেশ দেন আদালতের বিচারক শিউলী রানী দাস।

মামলার বাদী জালাল উদ্দিন অভিযোগ জানায়, গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১ টা ১৮ মিনিটে ০১৯৫৪৮৮৯৯৯ নাম্বার মোবাইল ফোন থেকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি আমাকে জানায় নালিশী জমিতে নির্মাণ কাজ করছে বিবাদী পক্ষ। কিছুক্ষণ পর আমি ০১৮১৭১০২১৫১ নাম্বার নিয়ে আবার ০১৯৫৪৮৮৯৯৯ নাম্বারে ফোন দিয়ে জানতে চাইলে তিনি নিজের পরিচয় না দিয়ে আমাকে জানায় আটি ফকিরবাড়ির জহিরুল হকের নেতৃত্বে তার ছেলে মুরাদ, মৃত হাফিজ উদ্দিনের ছেলে আজিজুল, আব্দুল মালেকের ছেলে মোহর চাঁন ও আজিবপুর কোনাপাড়া এলাকার ফজর আলির ছেলে টিএইচ তোফাসহ আরে অজ্ঞাত ১০/১২ জন গভীর রাতে চোরের মত নালিশী জমিতে নির্মাণ কাজ করছে নিজেদের দখল সত্য প্রমাণ করার জন্য। জীবনের নিরাপত্তা জনিত কারণে খবর পেয়েও এত রাতে আমি কাজে বাঁধা দিতে যাইনি। তবে মোবাইল ফোনে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত আজিজুল হককে ঘটনাটি জানানো হয়।এর আগেও তারা সন্ত্রাসী কায়দায় জহিরুল হকগং কয়েকদফা জমি দখলের চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থহয়ে জালাল উদ্দিনকে প্রাণ নাশের হুমকি দেয় বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে জানতে জহিরুল হকের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও সম্ভব হয়নি।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সিদ্ধিরগঞ্জে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাতের আঁধারে জালাল উদ্দিনের জমি দখলের চেষ্টা

আপডেট সময় : ১১:১০:৪৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৫ অক্টোবর ২০১৯

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি :সিদ্ধিরগঞ্জের আটি এলাকায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাতের আঁধারে মো: জালাল উদ্দিনের জমি দখল করতে নির্মাণ কাজ চালিয়েছে মো: জহিরুল হকগং। গত বৃহস্পতিবার দিবাগত গভীর রাতে স্থানীয় সন্ত্রাসী ভূমিসদ্যুদের নিয়ে নালিশা জমিতে নির্মাণ কাজ করেছে বলে জালাল উদ্দিন অভিযোগ জানায়।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, আর.এস ২ নং আটি মৌজায় সি.এস খতিয়ান নং ২২৮, দাগ নং ২৩৩, এস. এখতিয়ান নং ৩৪৩, দাগ নং ২৩৪ এবং আর . এস ৩৪৭, ৫১দাগ নং ৩৮৯ ও ৩৮৬ নং দাগে মোঃ জালাল উদ্দীন ক্রয় সূত্রে ২৭০ শতাংশ জমির মালিক হয়ে একাংশে বাড়ি-ঘর নির্মাণ করে ভোগ দখল করে আসছে। আটি এলাকার মৃত হাবিবুল্লাহর ছেলে জহিরুল হকগং এই জায়গার কিছু অংশ দখল করার চেষ্টা চালায়। তখন জালাল উদ্দিন গত ১৭ সেপ্টেম্বন নারায়ণগঞ্জ সহকারী জজ ২য় আদালতে একটি দেওয়ানী মামলা করেন। যার নং ২৫৪/১৯। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে বিবাদী মৃত হাবিবুল্লাহর ছেলে মো: জহিরুল হক, তার ছেলে মুরাদ হোসেন, আজিম উদ্দিনের ছেলে রমজানকে নোটিশ প্রাপ্তির ১৫ দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দিয়ে আগামী ৩১ অক্টোবর পরবর্তী শুনানির তারিখ ধার্য করেন। পাশাপাশি বিবাধী পক্ষ নির্ধারিত তারিখে কারণ দর্শনো ও শুনানি না হওয়া নালিশী ভূমিতে উভয় পক্ষকে স্থিতাবস্থা বজায় রাখার আদেশ দেন আদালতের বিচারক শিউলী রানী দাস।

মামলার বাদী জালাল উদ্দিন অভিযোগ জানায়, গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১ টা ১৮ মিনিটে ০১৯৫৪৮৮৯৯৯ নাম্বার মোবাইল ফোন থেকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি আমাকে জানায় নালিশী জমিতে নির্মাণ কাজ করছে বিবাদী পক্ষ। কিছুক্ষণ পর আমি ০১৮১৭১০২১৫১ নাম্বার নিয়ে আবার ০১৯৫৪৮৮৯৯৯ নাম্বারে ফোন দিয়ে জানতে চাইলে তিনি নিজের পরিচয় না দিয়ে আমাকে জানায় আটি ফকিরবাড়ির জহিরুল হকের নেতৃত্বে তার ছেলে মুরাদ, মৃত হাফিজ উদ্দিনের ছেলে আজিজুল, আব্দুল মালেকের ছেলে মোহর চাঁন ও আজিবপুর কোনাপাড়া এলাকার ফজর আলির ছেলে টিএইচ তোফাসহ আরে অজ্ঞাত ১০/১২ জন গভীর রাতে চোরের মত নালিশী জমিতে নির্মাণ কাজ করছে নিজেদের দখল সত্য প্রমাণ করার জন্য। জীবনের নিরাপত্তা জনিত কারণে খবর পেয়েও এত রাতে আমি কাজে বাঁধা দিতে যাইনি। তবে মোবাইল ফোনে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত আজিজুল হককে ঘটনাটি জানানো হয়।এর আগেও তারা সন্ত্রাসী কায়দায় জহিরুল হকগং কয়েকদফা জমি দখলের চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থহয়ে জালাল উদ্দিনকে প্রাণ নাশের হুমকি দেয় বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে জানতে জহিরুল হকের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও সম্ভব হয়নি।