নারায়ণগঞ্জ ০৫:১০ অপরাহ্ন, শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২২ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত আদমজী ইপিজেডকে অশান্ত করছে জনপ্রতিনিধিরা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে মহিলা লীগ নেত্রীর শুভেচ্ছা বিনিময় না’গঞ্জ কারাগারে হাজতীর মৃত্যু ফতুল্লায় চোরাইকৃত ট্যাংকলড়ী উদ্ধার আড়াইহাজারের মিথিলা টেক্সটাইল ঘুরে গেলেন ৮ দেশের রাষ্ট্রদূতসহ ১৮ দেশের প্রতিনিধি সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে কাউন্সিলর ইকবাল হোসেনের মতবিনিময় ফতুল্লা ব্লাড ডোনার্সের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ শিক্ষা সিলেবাস বাতিলের দাবিতে খেলাফত মজলিসের বিক্ষোভ মিছিল সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শহরে নারী সমাবেশ ও মিছিল

সিদ্ধিরগঞ্জে সদ্য জামিনপ্রাপ্তকে আটকে অর্থ আদায়

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৩৬:২৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯
  • ৫৬ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় দেলোয়ার খান নামে এক ব্যক্তি জামিনে বেরিয়ে আসার পর দিন সকালে ফের গ্রেফতার দেখিয়ে এসআই বেলায়েত ও এএসআই শাহাদাত ১৫ হাজার টাকা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়টি নিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জে বেশ সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

সূত্র জানায়, সোমবার (২১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় দেলোয়ার তার স্ত্রীর মামলা হাজতবাসের পর জামিনে বেরিয়ে আসে। পর দিন মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) সকালে এসআই বেলায়েত ও এএসআই শাহাদাত দেলোয়ারের সাবেক স্ত্রীসহ বাসায় গিয়ে তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে। এ সময় তার মোবাইলে অস্ত্রের ছবি পাওয়া গেছে বলে দেলোয়ারকে জানান। পরে তার ভাই দিদার থানায় গেলে দিদারের কাছ থেকে ছোট মামলা দেয়ার কথা বলে ১৫ হাজার টাকা আদায় করেন।

দেলোয়ারের ভাই দিদার জানান, আমার ছোট ভায়ের স্ত্রী তার নামে যৌতুকের মামলা করে। সেই মামলায় তাকে আদালত জেল হাজতে পাঠায়। মামলায় হাজতবাসের পর সে জামিনে বেরিয়ে আসে। পরের দিন সকালে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ২ কর্মকর্তা তার স্ত্রীর প্ররোচনায় ধরে থানায় নিয়ে আসেন। তারা বলে দেলোয়ারের মোবাইলে অস্ত্রের ছবি পাওয়া গেছে। দেলোয়ার নরসিংদী সংসদ বডি গার্ড হিসেবে চাকরি করতেন। এমপির অস্ত্র তার কাছেই থাকতো। সেই অস্ত্রের ছবির অজুহাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি সাহেব এমপি সাহেবকে ফোন দিয়ে জেনেছেন। এখন তিনি বলছেন ধরে যেহেতু আনা হয়েছে এখন তো আর ছাড়া যাবে না। ছোট একটি মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানো হবে।

জানতে চাইলে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ পরিদর্শক বেলায়েত বলেন, আমি তো আসামী ধরি নাই। এএসআই শাহাদাত আসামী ধরেছে। আমি তার সাথে গিয়েছি। আসামী ধরলে কেউ কি টাকা দেয় নাকি?

জানতে চাইলে সিদ্ধিরগঞ্জের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুল ফারুক বলেন, দেলোয়ারের বৌয়ের মামলায় তাকে আটক করা হয়েছে। কালকে তার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। আজকে কিছু বলতে পারছি না।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত

সিদ্ধিরগঞ্জে সদ্য জামিনপ্রাপ্তকে আটকে অর্থ আদায়

আপডেট সময় : ০৬:৩৬:২৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় দেলোয়ার খান নামে এক ব্যক্তি জামিনে বেরিয়ে আসার পর দিন সকালে ফের গ্রেফতার দেখিয়ে এসআই বেলায়েত ও এএসআই শাহাদাত ১৫ হাজার টাকা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়টি নিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জে বেশ সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

সূত্র জানায়, সোমবার (২১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় দেলোয়ার তার স্ত্রীর মামলা হাজতবাসের পর জামিনে বেরিয়ে আসে। পর দিন মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) সকালে এসআই বেলায়েত ও এএসআই শাহাদাত দেলোয়ারের সাবেক স্ত্রীসহ বাসায় গিয়ে তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে। এ সময় তার মোবাইলে অস্ত্রের ছবি পাওয়া গেছে বলে দেলোয়ারকে জানান। পরে তার ভাই দিদার থানায় গেলে দিদারের কাছ থেকে ছোট মামলা দেয়ার কথা বলে ১৫ হাজার টাকা আদায় করেন।

দেলোয়ারের ভাই দিদার জানান, আমার ছোট ভায়ের স্ত্রী তার নামে যৌতুকের মামলা করে। সেই মামলায় তাকে আদালত জেল হাজতে পাঠায়। মামলায় হাজতবাসের পর সে জামিনে বেরিয়ে আসে। পরের দিন সকালে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ২ কর্মকর্তা তার স্ত্রীর প্ররোচনায় ধরে থানায় নিয়ে আসেন। তারা বলে দেলোয়ারের মোবাইলে অস্ত্রের ছবি পাওয়া গেছে। দেলোয়ার নরসিংদী সংসদ বডি গার্ড হিসেবে চাকরি করতেন। এমপির অস্ত্র তার কাছেই থাকতো। সেই অস্ত্রের ছবির অজুহাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি সাহেব এমপি সাহেবকে ফোন দিয়ে জেনেছেন। এখন তিনি বলছেন ধরে যেহেতু আনা হয়েছে এখন তো আর ছাড়া যাবে না। ছোট একটি মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানো হবে।

জানতে চাইলে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ পরিদর্শক বেলায়েত বলেন, আমি তো আসামী ধরি নাই। এএসআই শাহাদাত আসামী ধরেছে। আমি তার সাথে গিয়েছি। আসামী ধরলে কেউ কি টাকা দেয় নাকি?

জানতে চাইলে সিদ্ধিরগঞ্জের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুল ফারুক বলেন, দেলোয়ারের বৌয়ের মামলায় তাকে আটক করা হয়েছে। কালকে তার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। আজকে কিছু বলতে পারছি না।