নারায়ণগঞ্জ ০১:৩২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আরাফাত হত্যা মামলায় ৭ জনের যাবজ্জীবন, খালাস ২

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৪৭:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ অগাস্ট ২০১৯
  • ৬০ বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি :
সিদ্ধিরগঞ্জে ২০১০ সালে পূর্ব শত্রæতার জের ধরে ক্রিকেট খেলার কথা বলে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে আরাফাত (২২) কে হত্যার দায়ে ৭ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও প্রত্যেককে ৫ হাজার টাকা অর্থদন্ডের রায় দিয়েছেন আদালত। রায়ে ২ জন আসামিকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়। আরাফাত মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জের আটি এলাকার মৃত আনোয়ার হোসেনের ছেলে।
বুধবার (২৮ আগস্ট) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় শেখ রাজিয়া সুলতানার আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। এ সময় আদালতে ৩ জন আসামি উপস্থিত ছিল। মামলায় ২৫ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। মামলা নং ৩১(২)১০।
সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলো, ফালাইন্নার ছেলে সজিব, মৃত-মোহন মিয়ার ছেলে রাসেল, হারুন অর রশিদের ছেলে জয় আহমেদ ওরফে জাহিদুল ইসলাম।
এ মামলার সাজাপ্রাপ্ত অপর চার পলাতক আসামিরা হলো, রফিকুল্লা ওরফে রফিকের ছেলে ইসব ওরফে ইউসুফ, মৃত আফজালের ছেলে রফিকুল্লা ওরফে রফিক, চান মিয়ার ছেলে দেলোয়ার ওরফে দেলু এবং আবু তালেবের ছেলে শামীম।
খালাশ প্রাপ্তরা হলো, মোসলেমের ছেল রাজু আহম্মেদ, ইব্রাহিমের ছেলে শফি ওরফে শফিকুল ইসলাম।
রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি ) এড. জাসমিন আহমেদ জানান, ২০১০ সালে সিদ্ধিরগঞ্জে ক্রিকেট খেলার কথা বলে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে আরাফাত (২২) কে আর এম অয়েল মিলের পরিত্যক্ত জায়গায় বেলেট দিয়ে পুঁচিয়ে হত্যা করে ডোবার মধ্যে ফেলে রাখে। পরেরদিন বিকেলে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।
তিনি আরও জানান, এরপর আরাফাতের বাবা বাদী হয়ে ৯ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন । আজ এই মামলায় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় শেখ রাজিয়া সুলতানার আদালত ৩ জন আসামির উপস্থিতিতে ২৫ সাক্ষির মধ্যে ১৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে ৭ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও প্রত্যেককে ৫ হাজার টাকা অর্থদন্ডের রায় দিয়েছেন এবং ২ জনকে বেকসুর খালাস দেন।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

আরাফাত হত্যা মামলায় ৭ জনের যাবজ্জীবন, খালাস ২

আপডেট সময় : ১২:৪৭:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৮ অগাস্ট ২০১৯

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি :
সিদ্ধিরগঞ্জে ২০১০ সালে পূর্ব শত্রæতার জের ধরে ক্রিকেট খেলার কথা বলে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে আরাফাত (২২) কে হত্যার দায়ে ৭ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও প্রত্যেককে ৫ হাজার টাকা অর্থদন্ডের রায় দিয়েছেন আদালত। রায়ে ২ জন আসামিকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়। আরাফাত মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জের আটি এলাকার মৃত আনোয়ার হোসেনের ছেলে।
বুধবার (২৮ আগস্ট) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় শেখ রাজিয়া সুলতানার আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। এ সময় আদালতে ৩ জন আসামি উপস্থিত ছিল। মামলায় ২৫ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। মামলা নং ৩১(২)১০।
সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলো, ফালাইন্নার ছেলে সজিব, মৃত-মোহন মিয়ার ছেলে রাসেল, হারুন অর রশিদের ছেলে জয় আহমেদ ওরফে জাহিদুল ইসলাম।
এ মামলার সাজাপ্রাপ্ত অপর চার পলাতক আসামিরা হলো, রফিকুল্লা ওরফে রফিকের ছেলে ইসব ওরফে ইউসুফ, মৃত আফজালের ছেলে রফিকুল্লা ওরফে রফিক, চান মিয়ার ছেলে দেলোয়ার ওরফে দেলু এবং আবু তালেবের ছেলে শামীম।
খালাশ প্রাপ্তরা হলো, মোসলেমের ছেল রাজু আহম্মেদ, ইব্রাহিমের ছেলে শফি ওরফে শফিকুল ইসলাম।
রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি ) এড. জাসমিন আহমেদ জানান, ২০১০ সালে সিদ্ধিরগঞ্জে ক্রিকেট খেলার কথা বলে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে আরাফাত (২২) কে আর এম অয়েল মিলের পরিত্যক্ত জায়গায় বেলেট দিয়ে পুঁচিয়ে হত্যা করে ডোবার মধ্যে ফেলে রাখে। পরেরদিন বিকেলে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।
তিনি আরও জানান, এরপর আরাফাতের বাবা বাদী হয়ে ৯ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন । আজ এই মামলায় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় শেখ রাজিয়া সুলতানার আদালত ৩ জন আসামির উপস্থিতিতে ২৫ সাক্ষির মধ্যে ১৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে ৭ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও প্রত্যেককে ৫ হাজার টাকা অর্থদন্ডের রায় দিয়েছেন এবং ২ জনকে বেকসুর খালাস দেন।