নারায়ণগঞ্জ ০১:২৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সিদ্ধিরগঞ্জে চাকুরীর প্রলোভনে তরুণীকে অপহরণ ধর্ষণ

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:১৮:২৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৫ জুলাই ২০১৯
  • ১৯ বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি :সিদ্ধিরগঞ্জে গার্মেন্টসে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে আদমজী ইপিজেডের সামন থেকে ১৬ বছরের এক তরুণীকে অপহরণ করে ধর্ষণ ও দেহব্যবসায় বাধ্য করার অভিযোগে ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের। ভিকটিমকে উদ্ধার ও প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে গতকাল শুক্রবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, গার্মেন্টসে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে গত ২৫ জুন সকাল ৭ টায় বাদীর শ্যালিকাকে আদমজী ইপিজেডের সামনে নিয়ে যায় মামলার দুই নাম্বার আসামি মনির হোসেন জামাল। এর পর থেকে আর ওই তরুণী বাসায় ফিরেনি। মনিরকেও খোঁজে পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে ২৮ জুন সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়। জিডির সূত্র ধরে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক শামীম আহমেদ গত বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার মুগদা থানার মাদিনাবাগ এলাকার ৩৮/ক আবদুল জব্বারের বাড়ীর ভাড়াটিয়া হেলেনা বেগমের বাসা থেকে অপহৃত তরুণীকে উদ্ধার করেন। পরে উদ্ধারকৃত তরুণী পুলিশকে জানায়, তাকে অপহরণ করার পর হেলেনার বাসায় আটক রেখে প্রথমে মনির তাকে ধর্ষণ করে। পরে আরো কয়েক জনে দফায় দফায় ধর্ষণ করে। হেলানা একজন দেহব্যবসায়ী। মনির তরুণীকে দেহব্যবসায়ী হেলেনার কাছে রেখে পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করিয়েছে।

এ ঘটনায় পিরোজপুর জেলার মঠবাড়ীয়া থানার উত্তর মিঠাখালী এলাকার বাবুল সরদারের স্ত্রী হেলেনা বেগম, বরগুনা জেলা সদরের ইউপি নলটোনা এলাকার ইউসুফের ছেলে মনির হোসেন জামাল তাদের সহযোগী নানা কারফু, পনির, নাঈম, ইমন, মাজহারুল ও দ্বেবাশীষকে আসামি করে ওই তরুণীর ভগ্নিপতি বাদী হয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক শামীম আহমেদ জানান, অপহরণ করে ধর্ষণ ও পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করার অভিযোগে ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতার করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সিদ্ধিরগঞ্জে চাকুরীর প্রলোভনে তরুণীকে অপহরণ ধর্ষণ

আপডেট সময় : ০১:১৮:২৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৫ জুলাই ২০১৯

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি :সিদ্ধিরগঞ্জে গার্মেন্টসে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে আদমজী ইপিজেডের সামন থেকে ১৬ বছরের এক তরুণীকে অপহরণ করে ধর্ষণ ও দেহব্যবসায় বাধ্য করার অভিযোগে ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের। ভিকটিমকে উদ্ধার ও প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে গতকাল শুক্রবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, গার্মেন্টসে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে গত ২৫ জুন সকাল ৭ টায় বাদীর শ্যালিকাকে আদমজী ইপিজেডের সামনে নিয়ে যায় মামলার দুই নাম্বার আসামি মনির হোসেন জামাল। এর পর থেকে আর ওই তরুণী বাসায় ফিরেনি। মনিরকেও খোঁজে পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে ২৮ জুন সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়। জিডির সূত্র ধরে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক শামীম আহমেদ গত বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার মুগদা থানার মাদিনাবাগ এলাকার ৩৮/ক আবদুল জব্বারের বাড়ীর ভাড়াটিয়া হেলেনা বেগমের বাসা থেকে অপহৃত তরুণীকে উদ্ধার করেন। পরে উদ্ধারকৃত তরুণী পুলিশকে জানায়, তাকে অপহরণ করার পর হেলেনার বাসায় আটক রেখে প্রথমে মনির তাকে ধর্ষণ করে। পরে আরো কয়েক জনে দফায় দফায় ধর্ষণ করে। হেলানা একজন দেহব্যবসায়ী। মনির তরুণীকে দেহব্যবসায়ী হেলেনার কাছে রেখে পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করিয়েছে।

এ ঘটনায় পিরোজপুর জেলার মঠবাড়ীয়া থানার উত্তর মিঠাখালী এলাকার বাবুল সরদারের স্ত্রী হেলেনা বেগম, বরগুনা জেলা সদরের ইউপি নলটোনা এলাকার ইউসুফের ছেলে মনির হোসেন জামাল তাদের সহযোগী নানা কারফু, পনির, নাঈম, ইমন, মাজহারুল ও দ্বেবাশীষকে আসামি করে ওই তরুণীর ভগ্নিপতি বাদী হয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক শামীম আহমেদ জানান, অপহরণ করে ধর্ষণ ও পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করার অভিযোগে ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতার করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।