নারায়ণগঞ্জ ০৯:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অপহরণ করে হত্যার হুমকি দিয়ে মুক্তিপণ আদায় গ্রেফতার- ২ : ভিটটিম উদ্ধার

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৫০:০৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০১৯
  • ৩৬ বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : কাপড় ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে হত্যার হুমকি দিয়ে মুক্তিপণ আদায়ের অভিযোগে স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার ও ভিকটিমকে উদ্ধার করেছে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ। শুক্রবার(১৪ জুন) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ মহানগরের ৯ নং ওয়ার্ড জালকুড়ি সিকদারবাড়ী এলাকার আওয়ামীলীগ নেতা মজিবুর রহমানের বাড়ীর ৫ তলার একটি ফ্যাট বাসায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার ও ভিকটিমকে উদ্ধার করে।

ধৃতরা হলো, হবীগঞ্জ জেলার আজমেরীগঞ্জ থানার রসুলপুর গ্রামের মো: তোতা মিয়ার ছেলে অপহরণকারী মো: সজল ইসলাম(২৮) ও তার স্ত্রী মৌসমী আক্তার মিতু(২৫)।

অপহৃত কাপড় ব্যবসায়ী মো: ইমরান(২৮) নড়াইল জেলা সদর থানার আউরিয়া এলাকার মৃত রাঙ্গা মোল্লার ছেলে।

জানা গেছে, ঢাকার উত্তর খান থানার চামুরখান মোড় এলাকা থেকে গত ১১ জুন সকাল ৯ টায় মো: ইমরানকে অপহরণ করা হয়। পরে তাকে সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুড়ি সিকদারবাড়ী এলাকায় স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা মজিবুর রহমানের বাড়ীর ভাড়াটিয়া মো: সজল ইসলামের ফ্যাট বাসায় আটক রেখে হত্যা করার হুমকি দিয়ে মোবাইল ফোনে মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীরা। ইমরানের স্বজনরা দু,দফায় বিকাশে ২৫ হাজার টাকা মুক্তিপণ দেওয়ার পরও তাকে না ছেড়ে আরো টাকা দাবি করা হয়। এ বিষয়ে অপহৃত ইমরানের স্ত্রী ইয়াসমিন উত্তর খান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন।

এ দিকে শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের ওই বহুতল বাড়ীর ৫ তলার ভাড়াটিয়া মো: সজল ইসলামের ফ্যাট বাসায় বাচাঁও বাঁচাও চিৎকার শুনে প্রতিবেশীদের সন্দেহ হলে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশকে জানায়। খবর পেয়ে থানার উপ-পরিদর্শক মো: আবদুর রাজ্জাক সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বেলা ১২ টার দিকে ওই বাসায় অভিযান চালিয়ে অপহৃত ইমরানকে উদ্ধার ও সজল ইসলাম এবং তার স্ত্রী মৌসমী আক্তার মিতুকে গ্রেফতার করে। পরে খবর পেয়ে ইমরানের স্বজনরা সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় ছুটে যান।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক মো: আবদুর রাজ্জাক জানায়, অভিযান চালানোর পর জানতে পারি ইমরানকে অপহরণ করে ওই বাসায় আটক রাখা হয়েছে। অপরণের সাথে জড়িত রয়েছে একটি সঙ্গবন্ধ চক্র। ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় সজল ইসলাম ও তার স্ত্রী মিতুকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকীদের গ্রেফতার করার চেষ্টা চলছে।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

অপহরণ করে হত্যার হুমকি দিয়ে মুক্তিপণ আদায় গ্রেফতার- ২ : ভিটটিম উদ্ধার

আপডেট সময় : ১০:৫০:০৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০১৯

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : কাপড় ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে হত্যার হুমকি দিয়ে মুক্তিপণ আদায়ের অভিযোগে স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার ও ভিকটিমকে উদ্ধার করেছে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ। শুক্রবার(১৪ জুন) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ মহানগরের ৯ নং ওয়ার্ড জালকুড়ি সিকদারবাড়ী এলাকার আওয়ামীলীগ নেতা মজিবুর রহমানের বাড়ীর ৫ তলার একটি ফ্যাট বাসায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার ও ভিকটিমকে উদ্ধার করে।

ধৃতরা হলো, হবীগঞ্জ জেলার আজমেরীগঞ্জ থানার রসুলপুর গ্রামের মো: তোতা মিয়ার ছেলে অপহরণকারী মো: সজল ইসলাম(২৮) ও তার স্ত্রী মৌসমী আক্তার মিতু(২৫)।

অপহৃত কাপড় ব্যবসায়ী মো: ইমরান(২৮) নড়াইল জেলা সদর থানার আউরিয়া এলাকার মৃত রাঙ্গা মোল্লার ছেলে।

জানা গেছে, ঢাকার উত্তর খান থানার চামুরখান মোড় এলাকা থেকে গত ১১ জুন সকাল ৯ টায় মো: ইমরানকে অপহরণ করা হয়। পরে তাকে সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুড়ি সিকদারবাড়ী এলাকায় স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা মজিবুর রহমানের বাড়ীর ভাড়াটিয়া মো: সজল ইসলামের ফ্যাট বাসায় আটক রেখে হত্যা করার হুমকি দিয়ে মোবাইল ফোনে মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীরা। ইমরানের স্বজনরা দু,দফায় বিকাশে ২৫ হাজার টাকা মুক্তিপণ দেওয়ার পরও তাকে না ছেড়ে আরো টাকা দাবি করা হয়। এ বিষয়ে অপহৃত ইমরানের স্ত্রী ইয়াসমিন উত্তর খান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন।

এ দিকে শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের ওই বহুতল বাড়ীর ৫ তলার ভাড়াটিয়া মো: সজল ইসলামের ফ্যাট বাসায় বাচাঁও বাঁচাও চিৎকার শুনে প্রতিবেশীদের সন্দেহ হলে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশকে জানায়। খবর পেয়ে থানার উপ-পরিদর্শক মো: আবদুর রাজ্জাক সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বেলা ১২ টার দিকে ওই বাসায় অভিযান চালিয়ে অপহৃত ইমরানকে উদ্ধার ও সজল ইসলাম এবং তার স্ত্রী মৌসমী আক্তার মিতুকে গ্রেফতার করে। পরে খবর পেয়ে ইমরানের স্বজনরা সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় ছুটে যান।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক মো: আবদুর রাজ্জাক জানায়, অভিযান চালানোর পর জানতে পারি ইমরানকে অপহরণ করে ওই বাসায় আটক রাখা হয়েছে। অপরণের সাথে জড়িত রয়েছে একটি সঙ্গবন্ধ চক্র। ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় সজল ইসলাম ও তার স্ত্রী মিতুকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকীদের গ্রেফতার করার চেষ্টা চলছে।