নারায়ণগঞ্জ ০৬:৫৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
গুণী জনদের পদচারণায়  উদযাপিত  দৈনিক আজকের নীর বাংলা পত্রিকা’র ১৫ তম  বর্ষপূর্তি সিদ্ধিরগঞ্জে রাজউকের অভিযানে ক্ষুব্ধ ভবন মালিকরা রেকমত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের মজিবুর রহমান সভাপতির দায়িত্ব নিয়েই শিক্ষার মান উন্নয়নের তাগিদ অস্ত্রের লাইসেন্সের আবেদন না করেও অপপ্রচারের শিকার মহিউদ্দিন মোল্লা ! সাংবাদিক শাওনের বাবা ফিরোজ আহমেদ আর নেই রিয়াদে জমকালো আয়োজনে মাই টিভির ১৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন রিয়াদে প্রিমিয়াম ফুটবল লীগের ফাইনাল অনুষ্ঠিত জুন মাসের ১৭ তারিখ কোরবানির ঈদ পালিত হওয়ার সম্ভবনা রিয়াদে নোভ আল আম্মার ইষ্টাবলিস্ট এর আয়োজনে দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত রিয়াদে বেগম খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

সিদ্ধিরগঞ্জের সাজাপ্রাপ্ত খালিদকে ১ বছরেও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:২৭:১৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮
  • ২২৪ বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জে মাল্টিপারপাস ব্যবসার নামে কোটি কোটি টাকা আত্নসাতকারী জামায়াত নেতার ছেলে চেক প্রতারনা মামলার সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি খালিদ বিন ফিরোজ ওরফে আল-আমিনকে ১ বছরেও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। একাধিক মামলার আসামী সাজাপ্রাপ্ত খালিদ প্রতারনা করে বহু মানুষের কোটি কোটি টাকা আত্নসাত করে আত্বগোপন করেছে। আদালত কর্তৃক গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির ১ বছর গত হলেও থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে না পারায় পাওনাদারদের মাঝে দেখা দিয়েছে হতাশা।
অভিযোগ জানা গেছে, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামের সিদ্ধিরগঞ্জ থানা শাখার প্রচার ও দপ্তর বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী ফিরোজ আহমেদ ও তার বড় ছেলে খালিদ বিন ফিরোজ ওরফে আল-আমিন একটি সিন্ডিকেট করে শিমরাইল মোড় মেরিডিয়ান কো-অপারেটিভ এম,সি,এস (প্রাঃ) লিমিটেড নামে একটি মাল্টিপারপাস প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলে। প্রথমে সমবায় অধিদপ্তর পরে জয়েনষ্টক থেকে নিবন্ধন করে হাজী ইব্রাহীম খলিল শপিং টাওয়ারে কার্যলয় গড়ে তুলে অধিক মূনাফা প্রদানের ফাঁদে ফেলে মেরিডিয়ান মাল্টিডারপাসের নামে পিতা-পুত্রের সিন্ডিকেট বিভিন্ন লোকজনের কাজ থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। একপর্যায়ে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ উত্থাপন হলে সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তর কর্তৃক লিকুইট বসে। তখন চারদিকে প্রতিষ্ঠানটির দুর্নীতির খবর ছড়িয়ে পড়লে আমানতকারি গ্রাহকরা তাদের টাকা ফেরত দেয়ার জন্য চাপ গ্রয়োগ করে। তখন প্রতিষ্ঠন মালিকপক্ষ গ্রাহকদের টাকা ফেরত না দিয়ে গা ঢাকা দেয়।
জানা গেছে, আমানত রাখা টাকা ফেরত না পেয়ে একাধিক গ্রাহক নারায়ণগঞ্জ আদালতে মামলা দায়ের করে। মামলার আসামিরা আদালত থেকে জামিন নিয়েও পাওনাদারদের ভয়ে আত্বগোপন করে। সিদ্ধিরগঞ্জ পাওয়ার স্টেশনের বাসিন্দা জামায়াত নেতা প্রকৌশলী ফিরোজ আহমেদ ও তার ছেলে আল-আমিনও স্বপরিবারে আতœগোপন করে। আসামি খালিদ ওরফে আল-আমিনের অনুপস্থিতিতে চেক প্রতারনা (যার সিআর ৩১৫/১৫) ১২৯৯/১৫ নং মামলায় আদালত তাকে ১ মাসের কারাদন্ড ও চেকে বর্ণিত টাকা বাদীকে ফেরত প্রদানের রায় ঘোষনা করেন। এই রায়ের বিরুদ্ধে আসামি খালিদ জজকোর্টে আপিল করলেও নিন্ম আদালতের রায় বহাল রাখে জজকোর্টের বিচারক। আপিলেও নিন্ম আদালতের রায় বহাল রাখার পর থেকেই খালিদ পালিয়ে বেড়াচ্ছে। সাজাপ্রাপ্ত আসামি খালিদ বিন ফিরোজ ওরফে আল-আমিনের বিরুদ্ধে আদালত গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। কিন্তু পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে পারছেনা। তবে তাকে গ্রেফতার করার জন্য একাধিকবার অভিযান চালানো হয়েছে পাশাপাশি গ্রেফতার করার চেষ্টা চলছে বলে পুলিশ জানায়।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

গুণী জনদের পদচারণায়  উদযাপিত  দৈনিক আজকের নীর বাংলা পত্রিকা’র ১৫ তম  বর্ষপূর্তি

সিদ্ধিরগঞ্জের সাজাপ্রাপ্ত খালিদকে ১ বছরেও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ

আপডেট সময় : ১২:২৭:১৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জে মাল্টিপারপাস ব্যবসার নামে কোটি কোটি টাকা আত্নসাতকারী জামায়াত নেতার ছেলে চেক প্রতারনা মামলার সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি খালিদ বিন ফিরোজ ওরফে আল-আমিনকে ১ বছরেও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। একাধিক মামলার আসামী সাজাপ্রাপ্ত খালিদ প্রতারনা করে বহু মানুষের কোটি কোটি টাকা আত্নসাত করে আত্বগোপন করেছে। আদালত কর্তৃক গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির ১ বছর গত হলেও থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে না পারায় পাওনাদারদের মাঝে দেখা দিয়েছে হতাশা।
অভিযোগ জানা গেছে, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামের সিদ্ধিরগঞ্জ থানা শাখার প্রচার ও দপ্তর বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী ফিরোজ আহমেদ ও তার বড় ছেলে খালিদ বিন ফিরোজ ওরফে আল-আমিন একটি সিন্ডিকেট করে শিমরাইল মোড় মেরিডিয়ান কো-অপারেটিভ এম,সি,এস (প্রাঃ) লিমিটেড নামে একটি মাল্টিপারপাস প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলে। প্রথমে সমবায় অধিদপ্তর পরে জয়েনষ্টক থেকে নিবন্ধন করে হাজী ইব্রাহীম খলিল শপিং টাওয়ারে কার্যলয় গড়ে তুলে অধিক মূনাফা প্রদানের ফাঁদে ফেলে মেরিডিয়ান মাল্টিডারপাসের নামে পিতা-পুত্রের সিন্ডিকেট বিভিন্ন লোকজনের কাজ থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। একপর্যায়ে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ উত্থাপন হলে সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তর কর্তৃক লিকুইট বসে। তখন চারদিকে প্রতিষ্ঠানটির দুর্নীতির খবর ছড়িয়ে পড়লে আমানতকারি গ্রাহকরা তাদের টাকা ফেরত দেয়ার জন্য চাপ গ্রয়োগ করে। তখন প্রতিষ্ঠন মালিকপক্ষ গ্রাহকদের টাকা ফেরত না দিয়ে গা ঢাকা দেয়।
জানা গেছে, আমানত রাখা টাকা ফেরত না পেয়ে একাধিক গ্রাহক নারায়ণগঞ্জ আদালতে মামলা দায়ের করে। মামলার আসামিরা আদালত থেকে জামিন নিয়েও পাওনাদারদের ভয়ে আত্বগোপন করে। সিদ্ধিরগঞ্জ পাওয়ার স্টেশনের বাসিন্দা জামায়াত নেতা প্রকৌশলী ফিরোজ আহমেদ ও তার ছেলে আল-আমিনও স্বপরিবারে আতœগোপন করে। আসামি খালিদ ওরফে আল-আমিনের অনুপস্থিতিতে চেক প্রতারনা (যার সিআর ৩১৫/১৫) ১২৯৯/১৫ নং মামলায় আদালত তাকে ১ মাসের কারাদন্ড ও চেকে বর্ণিত টাকা বাদীকে ফেরত প্রদানের রায় ঘোষনা করেন। এই রায়ের বিরুদ্ধে আসামি খালিদ জজকোর্টে আপিল করলেও নিন্ম আদালতের রায় বহাল রাখে জজকোর্টের বিচারক। আপিলেও নিন্ম আদালতের রায় বহাল রাখার পর থেকেই খালিদ পালিয়ে বেড়াচ্ছে। সাজাপ্রাপ্ত আসামি খালিদ বিন ফিরোজ ওরফে আল-আমিনের বিরুদ্ধে আদালত গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। কিন্তু পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে পারছেনা। তবে তাকে গ্রেফতার করার জন্য একাধিকবার অভিযান চালানো হয়েছে পাশাপাশি গ্রেফতার করার চেষ্টা চলছে বলে পুলিশ জানায়।