নারায়ণগঞ্জ ০৩:৩৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
চাষাড়ায় মাতৃভাষা দিবসে বইমেলার উদ্বোধন নারায়ণগঞ্জে কারাগারে সাংবাদিক হত্যাকারির আত্নহত্যা চৌধুরীগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন অস্ত্র মামলায় মিশনপাড়ার নাজমুলকে ১০ বছরের কারাদণ্ড বন্দরে এক রোহিঙ্গা যুবককে ৪হাজার ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে জামানত ১ লাখ টাকা ফতুল্লার ক্লু-লেস হত্যার রহস্য উদঘাটনসহ প্রধান আসামিকে গ্রেফতার র‌্যাব-১১ বানিজ্য মেলায় দর্শনার্থীদের সেবা দিতে ডিকেএমসি হাসপাতালের অধ্যাপক ডাক্তার এম এ কাশেম কাঁচপুর হাইওয়ে থানা পুলিশের উদ্যোগে সেবা সপ্তাহ পালন শিমরাইলে অলিতে-গলিতে মাদক, নেই প্রশাসনের নজরদারী

মিজমিজিতে কুপিয়ে জখম

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৩৯:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ মার্চ ২০১৮
  • ১১৩ বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি মধ্যপাড়া এলাকায় বায়তুস সালাত জামে মসজিদের নামে ক্রয়কৃত জমি বুঝে নিতে গেলে প্রতারক আব্দুল ছাত্তার ওরফে জুড়াড়ি ছাত্তার মসজিদের মোহতারিমকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্বক জখম করেছে। শুক্রবার সকালে মিজমিজি মধ্যপাড়া এলাকায় এই ঘটানা ঘটে।

মিজমিজি বায়তুস সালাত জামে মসজিদের সভাপতি হাসমত আলী হাসু জানায়, গত তিন মাস পূর্বে স্থানীয় বিল্লাল ও আজিজুল থেকে মসজিদের নামে এক শতাংশ জমি ১৮লক্ষ দিয়ে ক্রয় করা হয়। ক্রয়কৃত জমি বুঝে দেয়ার জন্য মসজিদ কমিটি বিল্লাল ও আজিজুল কে চাপ সৃষ্টি করলে তারা জমি বুঝে দিচ্ছি বলে নানান তালবাহানা করে আসছে।

জমি বুঝে পাওয়ার জন্য মসজিদের মোহ্তারিম হাজী দুদু ভইয়া (৯০) তাদেরকে শুক্রবার উপস্থিত থাকার জন্য বলেন। তারা জমি বুঝে দেওয়া কথা বললেও তাদের দ্বিতীয় ঘরের বড় ভাই স্থানীয় বখাটে প্রতারক ও নারী লোভী আব্দুস ছাত্তার জমি বুঝে দিবে না বলে হুমকি দেয়। জমি বিক্রি করি নাই বলে হুমকি দিয়ে আসছে।

শুক্রবার সকালে এলাকাবাসী ও মসজিদের মুসল্লিারা বিল্লাল ও আজিজুলকে মসজিদের জমি বুঝে দেওয়ার জন্য বললে তারা জমি বুঝে না দিয়ে উল্টো ১লাখ টাকা দেওয়ার জন্য চাপ দেয়।

মসজিদ কমিটির সহ-সভাপতি আব্দুল মজিদ জানান, জমিটি মুসল্লিলা অনেক কষ্ট করে ক্রয় করেছে। কিন্তু এলাকার প্রতারক, নারী ব্যবসায়ী ছাত্তার কিছু টাকা অতিরিক্ত হাতিয়ে নেওয়ার জন্য মসজিদের প্রতিষ্ঠাতাকে কুপিয়ে জখম করেছে। ৯০বছর বয়স্ক লোক সবাই তাকে শ্রদ্ধা করে। সে ব্যক্তিকে এভাবে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করতে চাইল তা আমাদের জন্য ন্যাক্কার জনক ঘটনা।

স্থানীয়রা জানান, ছাত্তার এলাকার একজন লম্পট দু:শ্চরিত্রের লোক, জুড়া খোর ও মাদক ব্যবসায়ী। গত বছর ছাত্তারের গ্যারেজে জুয়া আসরকে কেন্দ্র করে রবিউল নামে একজনকে হত্যা করে ছাত্তার সহ কয়েকজন মিলে। পরবর্তীতে স্থানীয় একজন নেতাকে ম্যানেজ করে মোটা অংকের টাকা খরচ করে তা রফাদফা করে।

এছাড়া ছাত্তার গ্যারেজে প্রায় প্রতিদিন জুয়া খেলাসহ মধ্যরাতে নারীদিয়ে রমরমা ব্যবসা করে আসছে। বখাটে প্রতারক ছাত্তার কয়েকবছর ধরে ধমীয় লেবাস পড়ে মিজমিজি এলাকায় অসামাজিক কাজে ঝড়িয়ে পড়েছে। গত দুই বছর আগে হেফাজতের মামলার আসামীও বলে জানা যায়।

ছাত্তারের ভাই বিল্লাল জানান, ছাত্তার এমন একটি ঘটনা করবো তা আমরা অবাক। মসজিদের স্বার্থে এলাকাবাসীর স্বার্থে আমরা কাজ করবো। কিন্তু ছাত্তার ছোট বেলা থেকে বখাটের কারনে সে বর্তমানে কারো কথা শুনেনা। তার মাথা গরমের কারনে তার বউকে সে একবার তালাক দেয় আবার ঘরে ঊঠায় এভাবে কয়েকবার ঘটা ঘটনার পরে আমরা তাকে সামাজিক ভাবে চাপ সৃষ্টি করে তা মিমাংসা করে। পরবর্তী জীবনে জুয়া নেশা সে অনেক জায়গা সম্পত্তি বিক্রি করেছে। বর্তমানেও তা ছাড়তে না পারায় আমরা তাকে নিয়ে বিপদে আছি।

হাজী দুদু ভইয়ার ছেলে হাজী রমজান ভূইয়া জানান, আমরা জুয়ারী ছাত্তারের অত্যাচারে স্থানীয় এলাকাবাসী অতিষ্ঠ। এলাকাবাসীর প্রয়োজনে আমার বাবা মসজিদের জন্য জায়গা দিয়েছে। পরবর্তীতে মসজিদের স্থান সংকুলন না হওয়ায় আমরা ১৮লক্ষ টাকা দিয়ে বিল্লাল ও আজিজুল থেকে জমি ক্রয় করি।

কিন্ত্রু দুঃখের বিষয় জুয়ারি প্রতারক ছাত্তার হঠাৎ এখান থেকে ১লাখ টাকা দাবি করে জমি বুঝে না দেওয়ার জন্য হুমকি দেয়। এই অবস্থায় মসজিদ কমিটি ও মুসল্লিা সহ ছাত্তারের ভাইরা মসজিদের জায়গা বুঝে দিতে আসার পর আমার বাবাকে ও হাজী ফারুক মিয়া কে সহ এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করতে চাইছিল। আমরা থানা মামলা করেছি।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুস ছাত্তার মিয়া জানান, হাজী দুদু ভইয়া নামে একজন স্থানীয় বৃদ্ধকে কুপিয়ে আহত করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। আমি সাথে সাথে এসআই রফিককে ঘটনাস্থলে পাঠিয়েছি। যেই জড়িত থাকবে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

চাষাড়ায় মাতৃভাষা দিবসে বইমেলার উদ্বোধন

মিজমিজিতে কুপিয়ে জখম

আপডেট সময় : ০৪:৩৯:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ মার্চ ২০১৮

সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি মধ্যপাড়া এলাকায় বায়তুস সালাত জামে মসজিদের নামে ক্রয়কৃত জমি বুঝে নিতে গেলে প্রতারক আব্দুল ছাত্তার ওরফে জুড়াড়ি ছাত্তার মসজিদের মোহতারিমকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্বক জখম করেছে। শুক্রবার সকালে মিজমিজি মধ্যপাড়া এলাকায় এই ঘটানা ঘটে।

মিজমিজি বায়তুস সালাত জামে মসজিদের সভাপতি হাসমত আলী হাসু জানায়, গত তিন মাস পূর্বে স্থানীয় বিল্লাল ও আজিজুল থেকে মসজিদের নামে এক শতাংশ জমি ১৮লক্ষ দিয়ে ক্রয় করা হয়। ক্রয়কৃত জমি বুঝে দেয়ার জন্য মসজিদ কমিটি বিল্লাল ও আজিজুল কে চাপ সৃষ্টি করলে তারা জমি বুঝে দিচ্ছি বলে নানান তালবাহানা করে আসছে।

জমি বুঝে পাওয়ার জন্য মসজিদের মোহ্তারিম হাজী দুদু ভইয়া (৯০) তাদেরকে শুক্রবার উপস্থিত থাকার জন্য বলেন। তারা জমি বুঝে দেওয়া কথা বললেও তাদের দ্বিতীয় ঘরের বড় ভাই স্থানীয় বখাটে প্রতারক ও নারী লোভী আব্দুস ছাত্তার জমি বুঝে দিবে না বলে হুমকি দেয়। জমি বিক্রি করি নাই বলে হুমকি দিয়ে আসছে।

শুক্রবার সকালে এলাকাবাসী ও মসজিদের মুসল্লিারা বিল্লাল ও আজিজুলকে মসজিদের জমি বুঝে দেওয়ার জন্য বললে তারা জমি বুঝে না দিয়ে উল্টো ১লাখ টাকা দেওয়ার জন্য চাপ দেয়।

মসজিদ কমিটির সহ-সভাপতি আব্দুল মজিদ জানান, জমিটি মুসল্লিলা অনেক কষ্ট করে ক্রয় করেছে। কিন্তু এলাকার প্রতারক, নারী ব্যবসায়ী ছাত্তার কিছু টাকা অতিরিক্ত হাতিয়ে নেওয়ার জন্য মসজিদের প্রতিষ্ঠাতাকে কুপিয়ে জখম করেছে। ৯০বছর বয়স্ক লোক সবাই তাকে শ্রদ্ধা করে। সে ব্যক্তিকে এভাবে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করতে চাইল তা আমাদের জন্য ন্যাক্কার জনক ঘটনা।

স্থানীয়রা জানান, ছাত্তার এলাকার একজন লম্পট দু:শ্চরিত্রের লোক, জুড়া খোর ও মাদক ব্যবসায়ী। গত বছর ছাত্তারের গ্যারেজে জুয়া আসরকে কেন্দ্র করে রবিউল নামে একজনকে হত্যা করে ছাত্তার সহ কয়েকজন মিলে। পরবর্তীতে স্থানীয় একজন নেতাকে ম্যানেজ করে মোটা অংকের টাকা খরচ করে তা রফাদফা করে।

এছাড়া ছাত্তার গ্যারেজে প্রায় প্রতিদিন জুয়া খেলাসহ মধ্যরাতে নারীদিয়ে রমরমা ব্যবসা করে আসছে। বখাটে প্রতারক ছাত্তার কয়েকবছর ধরে ধমীয় লেবাস পড়ে মিজমিজি এলাকায় অসামাজিক কাজে ঝড়িয়ে পড়েছে। গত দুই বছর আগে হেফাজতের মামলার আসামীও বলে জানা যায়।

ছাত্তারের ভাই বিল্লাল জানান, ছাত্তার এমন একটি ঘটনা করবো তা আমরা অবাক। মসজিদের স্বার্থে এলাকাবাসীর স্বার্থে আমরা কাজ করবো। কিন্তু ছাত্তার ছোট বেলা থেকে বখাটের কারনে সে বর্তমানে কারো কথা শুনেনা। তার মাথা গরমের কারনে তার বউকে সে একবার তালাক দেয় আবার ঘরে ঊঠায় এভাবে কয়েকবার ঘটা ঘটনার পরে আমরা তাকে সামাজিক ভাবে চাপ সৃষ্টি করে তা মিমাংসা করে। পরবর্তী জীবনে জুয়া নেশা সে অনেক জায়গা সম্পত্তি বিক্রি করেছে। বর্তমানেও তা ছাড়তে না পারায় আমরা তাকে নিয়ে বিপদে আছি।

হাজী দুদু ভইয়ার ছেলে হাজী রমজান ভূইয়া জানান, আমরা জুয়ারী ছাত্তারের অত্যাচারে স্থানীয় এলাকাবাসী অতিষ্ঠ। এলাকাবাসীর প্রয়োজনে আমার বাবা মসজিদের জন্য জায়গা দিয়েছে। পরবর্তীতে মসজিদের স্থান সংকুলন না হওয়ায় আমরা ১৮লক্ষ টাকা দিয়ে বিল্লাল ও আজিজুল থেকে জমি ক্রয় করি।

কিন্ত্রু দুঃখের বিষয় জুয়ারি প্রতারক ছাত্তার হঠাৎ এখান থেকে ১লাখ টাকা দাবি করে জমি বুঝে না দেওয়ার জন্য হুমকি দেয়। এই অবস্থায় মসজিদ কমিটি ও মুসল্লিা সহ ছাত্তারের ভাইরা মসজিদের জায়গা বুঝে দিতে আসার পর আমার বাবাকে ও হাজী ফারুক মিয়া কে সহ এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করতে চাইছিল। আমরা থানা মামলা করেছি।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুস ছাত্তার মিয়া জানান, হাজী দুদু ভইয়া নামে একজন স্থানীয় বৃদ্ধকে কুপিয়ে আহত করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। আমি সাথে সাথে এসআই রফিককে ঘটনাস্থলে পাঠিয়েছি। যেই জড়িত থাকবে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।