নারায়ণগঞ্জ ১১:১৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

র‌্যাব’র অভিযানে পাইরেসি চক্রের ২৩ সদস্য আটক, বিপুল পরিমান সিডি ও কম্পিউটার জব্দ

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৩২:১৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৩ ডিসেম্বর ২০১৭
  • ৩৬ বার পড়া হয়েছে

র‌্যাব-১১’র একটি আভিযানিক দল রূপগঞ্জ ও সোনারগাঁ উপজেলা থেকে ৬৯০৪টি সিডি, ২৯টি মনিটর, ২৯টি সিপিইউ ও একটি হার্ডডিস্কসহ পর্নোগ্রাফি ও পাইরেসি চক্রের ২৩ সদস্যকে আটক করেছে ।

সোনারগায়ের মুগড়াপাড়া এলাকায় শনিবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ও রূপগঞ্জের গাউছিয়া মার্কেটসহ তাঁতবাজার মার্কেট এলাকায় শুক্রবার সন্ধ্যা হতে রাত ১১টা পর্যন্ত র‌্যাবের এ অভিযানটি পরিচালিত হয়। ওই অভিযান শেষে শনিবার বিকেলে র‌্যাব-১১ এর সদর দপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান ক্যাম্প কমান্ডার লে. কর্নেল কামরুল হাসান।

আটকরা হলেন- কামরুল ইসলাম, মামুন, রাজীব চন্দ্র দাস, ফিরোজ, বিপ্লব, হাবিব, আল মামুন, সুমন সরকার, খোরশেদ আলম, সুনীল দাস, স্বপন, সৌরভ চৌধুরী, সোহেল, কাউসার, সুমন, সাইদুর রহমান, জয়েন উদ্দিন জয়নাল, সাইফ উদ্দিন, রুমান, জহিরুল ইসলাম, ইসমাইল হোসেন শিপলু, নাহিদ হোসেন, এনামুল হক।

তাদের সবার বাড়ি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ ও আড়াইহাজার উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থানায় আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

র‌্যাব জানায়, আটক চক্রটি পাইরেসি ও পর্নোগ্রাফির সাথে জড়িত। তারা বিভিন্ন সিনেমা হলে প্রবেশ করে গোপন ক্যামেরার মাধ্যমে সিনেমাগুলো ধারণ করে তা বিক্রি করে আসছে। তাদের আবার কোন কোন সিনেমা হলের কর্মচারীরা এ কাজে সহায়তা করে। এসব ভিডিও এর সাথে অশ্লীল ছবির অংশ সংযোজন করে মোবাইল, পেনড্রাইভ, হার্ডডিস্কের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। বিভিন্ন নায়ক-নায়িকা ও সাধারণ ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ছবিও একাজে এডিটিং করে ব্যবহার হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এসব কারণে দেশের ফিল্ম ও মিউজিক শিল্প ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। পাশাপাশি অশ্লীলতার কারণে যুব সমাজ অপরাধ প্রবণতায় ধাবিত হচ্ছে।

এ ছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চিত্র নায়িকা অঞ্জনা ও তানিম সুবা, নায়ক বাপ্পি, গায়ক আতিক ডালিম, শারমিন শিমুসহ চলচিত্রের সাথে জড়িত অনেক কলাকুশলি।

সংবাদ সম্মেলনে তাঁরা চলচিত্র শিল্পকে রক্ষার জন্য পাইরেসি প্রতিরোধে আইনশৃংখলাবাহিনীসহ গনামাধ্যমের সহায়তা চেয়েছেন।

এ সময় র‌্যাব আরো জানায়, চলতি বছরে র‌্যাব-১১ নারায়ণগঞ্জ ও কুমিল্লার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে পর্ণোগ্রাফি ও পাইরেসী চক্রের ৫৫ জন সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে ৫৪ টি মনিটর, ৫৭ টি সিপিইউ, ২টি ল্যাপটপ, ৫ হাজার ৯‘শ ৮০টি সিডি, ১টি হার্ড ডিস্ক, ১৭টি বিট বক্স, ৩২টি স্পীকার, ২৩টি কী-বোর্ড, ২১টি মাউস, ৬টি ক্যাবল, ২টি প্রজেক্টর, ৫টি পেনড্রাইভ, ৪৩ টি কার্ড রিডার এবং ১০টি মেমোরীসহ বিপুল পরিমাণ স্যাটেলাইট সম্প্রচারের ইলেক্ট্রনিক সরঞ্জামাদি জব্দ করা হয়।

এর আগেও পাইরেসি ও অশ্লীলতার সাথে সম্পৃক্ত ডন বিপ্লব, পাইরেসী তুষার, বনি ইসলাম ওরফে নোবেলসহ আড়াই হাজার সংশ্লিষ্ট অপরাধীকে গ্রেফতার করা হয় এবং বিপুল পরিমান সিডি/ডিভিডি ও এ কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জামাদিও উদ্ধার করা হয়।

 

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

র‌্যাব’র অভিযানে পাইরেসি চক্রের ২৩ সদস্য আটক, বিপুল পরিমান সিডি ও কম্পিউটার জব্দ

আপডেট সময় : ০৩:৩২:১৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৩ ডিসেম্বর ২০১৭

র‌্যাব-১১’র একটি আভিযানিক দল রূপগঞ্জ ও সোনারগাঁ উপজেলা থেকে ৬৯০৪টি সিডি, ২৯টি মনিটর, ২৯টি সিপিইউ ও একটি হার্ডডিস্কসহ পর্নোগ্রাফি ও পাইরেসি চক্রের ২৩ সদস্যকে আটক করেছে ।

সোনারগায়ের মুগড়াপাড়া এলাকায় শনিবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ও রূপগঞ্জের গাউছিয়া মার্কেটসহ তাঁতবাজার মার্কেট এলাকায় শুক্রবার সন্ধ্যা হতে রাত ১১টা পর্যন্ত র‌্যাবের এ অভিযানটি পরিচালিত হয়। ওই অভিযান শেষে শনিবার বিকেলে র‌্যাব-১১ এর সদর দপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান ক্যাম্প কমান্ডার লে. কর্নেল কামরুল হাসান।

আটকরা হলেন- কামরুল ইসলাম, মামুন, রাজীব চন্দ্র দাস, ফিরোজ, বিপ্লব, হাবিব, আল মামুন, সুমন সরকার, খোরশেদ আলম, সুনীল দাস, স্বপন, সৌরভ চৌধুরী, সোহেল, কাউসার, সুমন, সাইদুর রহমান, জয়েন উদ্দিন জয়নাল, সাইফ উদ্দিন, রুমান, জহিরুল ইসলাম, ইসমাইল হোসেন শিপলু, নাহিদ হোসেন, এনামুল হক।

তাদের সবার বাড়ি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ ও আড়াইহাজার উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থানায় আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

র‌্যাব জানায়, আটক চক্রটি পাইরেসি ও পর্নোগ্রাফির সাথে জড়িত। তারা বিভিন্ন সিনেমা হলে প্রবেশ করে গোপন ক্যামেরার মাধ্যমে সিনেমাগুলো ধারণ করে তা বিক্রি করে আসছে। তাদের আবার কোন কোন সিনেমা হলের কর্মচারীরা এ কাজে সহায়তা করে। এসব ভিডিও এর সাথে অশ্লীল ছবির অংশ সংযোজন করে মোবাইল, পেনড্রাইভ, হার্ডডিস্কের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। বিভিন্ন নায়ক-নায়িকা ও সাধারণ ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ছবিও একাজে এডিটিং করে ব্যবহার হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এসব কারণে দেশের ফিল্ম ও মিউজিক শিল্প ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। পাশাপাশি অশ্লীলতার কারণে যুব সমাজ অপরাধ প্রবণতায় ধাবিত হচ্ছে।

এ ছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চিত্র নায়িকা অঞ্জনা ও তানিম সুবা, নায়ক বাপ্পি, গায়ক আতিক ডালিম, শারমিন শিমুসহ চলচিত্রের সাথে জড়িত অনেক কলাকুশলি।

সংবাদ সম্মেলনে তাঁরা চলচিত্র শিল্পকে রক্ষার জন্য পাইরেসি প্রতিরোধে আইনশৃংখলাবাহিনীসহ গনামাধ্যমের সহায়তা চেয়েছেন।

এ সময় র‌্যাব আরো জানায়, চলতি বছরে র‌্যাব-১১ নারায়ণগঞ্জ ও কুমিল্লার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে পর্ণোগ্রাফি ও পাইরেসী চক্রের ৫৫ জন সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে ৫৪ টি মনিটর, ৫৭ টি সিপিইউ, ২টি ল্যাপটপ, ৫ হাজার ৯‘শ ৮০টি সিডি, ১টি হার্ড ডিস্ক, ১৭টি বিট বক্স, ৩২টি স্পীকার, ২৩টি কী-বোর্ড, ২১টি মাউস, ৬টি ক্যাবল, ২টি প্রজেক্টর, ৫টি পেনড্রাইভ, ৪৩ টি কার্ড রিডার এবং ১০টি মেমোরীসহ বিপুল পরিমাণ স্যাটেলাইট সম্প্রচারের ইলেক্ট্রনিক সরঞ্জামাদি জব্দ করা হয়।

এর আগেও পাইরেসি ও অশ্লীলতার সাথে সম্পৃক্ত ডন বিপ্লব, পাইরেসী তুষার, বনি ইসলাম ওরফে নোবেলসহ আড়াই হাজার সংশ্লিষ্ট অপরাধীকে গ্রেফতার করা হয় এবং বিপুল পরিমান সিডি/ডিভিডি ও এ কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জামাদিও উদ্ধার করা হয়।