নারায়ণগঞ্জ ০৬:০২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
অপরাধি যেই হোক ছাড় পাবেনা : ওসি গোলাম মোস্তফা মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত আদমজী ইপিজেডকে অশান্ত করছে জনপ্রতিনিধিরা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে মহিলা লীগ নেত্রীর শুভেচ্ছা বিনিময় না’গঞ্জ কারাগারে হাজতীর মৃত্যু ফতুল্লায় চোরাইকৃত ট্যাংকলড়ী উদ্ধার আড়াইহাজারের মিথিলা টেক্সটাইল ঘুরে গেলেন ৮ দেশের রাষ্ট্রদূতসহ ১৮ দেশের প্রতিনিধি সিদ্ধিরগঞ্জ রিপোর্টার্স ক্লাবের কর্মকর্তাদের সাথে কাউন্সিলর ইকবাল হোসেনের মতবিনিময় ফতুল্লা ব্লাড ডোনার্সের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ শিক্ষা সিলেবাস বাতিলের দাবিতে খেলাফত মজলিসের বিক্ষোভ মিছিল

সিদ্ধিরগঞ্জে নূর হাবিবের চাঁদাবাজিতে অতিষ্ট ব্যবসায়ীরা

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:২২:২১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২
  • ৬৫ বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জের পাইনাদী নতুন মহল্লা এলাকায় নূর হাবিবের চাঁদাবাজিতে অতিষ্ট ভাসমান ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। এলাকায় ভ্যান গাড়ি নিয়ে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা তরিকরকারিসহ বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস বিক্রি করতে গেলেই নূর হাবিবকে চাঁদা দিতে হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, পাইনাদী ধনুহাজী বাড়ীর মো: নূর হাবিব দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় ভাসমান ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করছে। তাকে চাঁদা না দিলে এসব ব্যবসায়ীদের মারধর ও এলাকায় ঢুকতে দেয়না। চাঁদা না দেওয়ায় বহু তরিদরকারি ও মাছ বিক্রেতা নূর হাবিবের মারধরের শিকার হয়েছে। এসব ভাসমান ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে নূর হাবিব দৈনিক প্রায় আড়াই থেকে ৩ হাজার টাকা চাঁদা আদায় করছেন।

ভ্যানগাড়ি দিয়ে তরকারি বিক্রেতা জালাল উদ্দিন জানান, পাইনাদী এলাকায় গাড়ি নিয়ে গেলেই নূর হাবিবকে ৫০ টাকা চাঁদা দিতে হয়। একই কথা বলেন ফেরি করে মাছ বিক্রিতা বিল্লাল হোসেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার একজন বাসিন্দা জানান, নূর হাবিবের চাঁদাবাজির বিষয়ে কয়েকজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী অভিযোগ করলে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে জানানোর পরামর্শ দেই।

চাঁদাবাজির বিষয়ে নূর হাবিব বলেন, পাইনাদী এলাকার বায়তুল আমান জামে মসজিদের উন্নয়নের জন্য এসব ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে কিছু টাকা নেই। যা মসজিদ উন্নয়নে ব্যয় করা হচ্ছে।

তবে মসজিদ কমিটির সভাপতি হাজী ইউনুছ মিয়া বলেন,মসজিদের উন্নয়নের জন্য ভাসমান ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের কথা ভিত্তিহীন। নূর হাবিব চাঁদাবাজি করে কিনা আমার জানা নেই। তবে মসজিদ উন্নয়নের জন্য তিনি কোন টাকা আমার জানা মতে দিচ্ছেন না।

এবিষয়ে নাসিক ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার ইসলাম বলেন, কয়েকজন ব্যবসায়ী আমার কাছে এসেছিল। নূর হাবিব নামে এক লোক তাদের কাছ থেকে চাঁদা নিচ্ছেন বলে অভিযোগ জানায়। আমি বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছি।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

অপরাধি যেই হোক ছাড় পাবেনা : ওসি গোলাম মোস্তফা

সিদ্ধিরগঞ্জে নূর হাবিবের চাঁদাবাজিতে অতিষ্ট ব্যবসায়ীরা

আপডেট সময় : ০২:২২:২১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২

সিদ্ধিরগঞ্জের পাইনাদী নতুন মহল্লা এলাকায় নূর হাবিবের চাঁদাবাজিতে অতিষ্ট ভাসমান ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। এলাকায় ভ্যান গাড়ি নিয়ে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা তরিকরকারিসহ বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস বিক্রি করতে গেলেই নূর হাবিবকে চাঁদা দিতে হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, পাইনাদী ধনুহাজী বাড়ীর মো: নূর হাবিব দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় ভাসমান ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করছে। তাকে চাঁদা না দিলে এসব ব্যবসায়ীদের মারধর ও এলাকায় ঢুকতে দেয়না। চাঁদা না দেওয়ায় বহু তরিদরকারি ও মাছ বিক্রেতা নূর হাবিবের মারধরের শিকার হয়েছে। এসব ভাসমান ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে নূর হাবিব দৈনিক প্রায় আড়াই থেকে ৩ হাজার টাকা চাঁদা আদায় করছেন।

ভ্যানগাড়ি দিয়ে তরকারি বিক্রেতা জালাল উদ্দিন জানান, পাইনাদী এলাকায় গাড়ি নিয়ে গেলেই নূর হাবিবকে ৫০ টাকা চাঁদা দিতে হয়। একই কথা বলেন ফেরি করে মাছ বিক্রিতা বিল্লাল হোসেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার একজন বাসিন্দা জানান, নূর হাবিবের চাঁদাবাজির বিষয়ে কয়েকজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী অভিযোগ করলে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে জানানোর পরামর্শ দেই।

চাঁদাবাজির বিষয়ে নূর হাবিব বলেন, পাইনাদী এলাকার বায়তুল আমান জামে মসজিদের উন্নয়নের জন্য এসব ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে কিছু টাকা নেই। যা মসজিদ উন্নয়নে ব্যয় করা হচ্ছে।

তবে মসজিদ কমিটির সভাপতি হাজী ইউনুছ মিয়া বলেন,মসজিদের উন্নয়নের জন্য ভাসমান ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের কথা ভিত্তিহীন। নূর হাবিব চাঁদাবাজি করে কিনা আমার জানা নেই। তবে মসজিদ উন্নয়নের জন্য তিনি কোন টাকা আমার জানা মতে দিচ্ছেন না।

এবিষয়ে নাসিক ১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার ইসলাম বলেন, কয়েকজন ব্যবসায়ী আমার কাছে এসেছিল। নূর হাবিব নামে এক লোক তাদের কাছ থেকে চাঁদা নিচ্ছেন বলে অভিযোগ জানায়। আমি বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছি।