নারায়ণগঞ্জ ১১:৫৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অবৈধ কারখানায় ভেজাল খাদ্য তৈরি আটক-2

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জে একটি অনুমোদনহীন কারখানায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমান ভেজাল খাদ্য ও পন্যসামগ্রী জব্দ করেছে র‌্যাব-১১। এসময় আটক করা হয়েছে দুইজনকে। মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল ) দুপুর বারটার দিকে র‌্যাব শিমরাইল এলাকায় এ অভিযান চালায়।
আটকরা হলো- মো: সম্রাট খান (৩৮) ও মো: শাহিন আলম (২২)।
সন্ধ্যায় র‌্যাবের সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার প্রণব কুমার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, কারখানাটিতে অবৈধ ভাবে ক্রাউডিং পাউডার, রোজ নুডলস, প্যারাসুট নারিকেল তেল, কিক আউট মসার কয়েল, পিনোসুইট সুপার পাউডার, ক্রিস্টাল অরেঞ্জ ফেভার ড্রিংক, লাচ্চি মিল্ক ফেভার ড্রিংকস্, আইসলল্,ী ম্যাংগো জুস, ডেইরি মিল্ক, ম্যাঙ্গো ফেভার জুস তৈরি করে বাজারজাত করা হতো। ভেজাল জুস তৈরীর কাজে ব্যবহৃত কেমিক্যাল ও ফেভার উদ্ধার করা হয়েছে। এসব খাদ্য শিশু ও জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক তিকারক। কারখানার নামে কোন ভ্যাট রেজিঃ নেই। তারা কোন প্রকার মূসক প্রদান না করে সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে এই সকল অননুমোদিত ভেজাল ও মানহীন খাদ্য পানীয় তৈরি ও সরবরাহ করে আসছিল। আটকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

অবৈধ কারখানায় ভেজাল খাদ্য তৈরি আটক-2

আপডেট সময় : ১২:৫২:৫৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ মে ২০২১

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জে একটি অনুমোদনহীন কারখানায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমান ভেজাল খাদ্য ও পন্যসামগ্রী জব্দ করেছে র‌্যাব-১১। এসময় আটক করা হয়েছে দুইজনকে। মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল ) দুপুর বারটার দিকে র‌্যাব শিমরাইল এলাকায় এ অভিযান চালায়।
আটকরা হলো- মো: সম্রাট খান (৩৮) ও মো: শাহিন আলম (২২)।
সন্ধ্যায় র‌্যাবের সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার প্রণব কুমার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, কারখানাটিতে অবৈধ ভাবে ক্রাউডিং পাউডার, রোজ নুডলস, প্যারাসুট নারিকেল তেল, কিক আউট মসার কয়েল, পিনোসুইট সুপার পাউডার, ক্রিস্টাল অরেঞ্জ ফেভার ড্রিংক, লাচ্চি মিল্ক ফেভার ড্রিংকস্, আইসলল্,ী ম্যাংগো জুস, ডেইরি মিল্ক, ম্যাঙ্গো ফেভার জুস তৈরি করে বাজারজাত করা হতো। ভেজাল জুস তৈরীর কাজে ব্যবহৃত কেমিক্যাল ও ফেভার উদ্ধার করা হয়েছে। এসব খাদ্য শিশু ও জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক তিকারক। কারখানার নামে কোন ভ্যাট রেজিঃ নেই। তারা কোন প্রকার মূসক প্রদান না করে সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে এই সকল অননুমোদিত ভেজাল ও মানহীন খাদ্য পানীয় তৈরি ও সরবরাহ করে আসছিল। আটকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।