নারায়ণগঞ্জ ১১:৩৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সিদ্ধিরগঞ্জে সংবাদ প্রকাশ করায় সম্পাদকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:৩৫:৩১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ এপ্রিল ২০২১
  • ৪৪ বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করায় সম্পাদকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ। থানার বার্মাস্ট্যান্ড এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মৃত. ইসমাঈল হোসের বখাটে ছেলে মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক মামলার আসামী, র‍্যাবের সাথে বন্দুক যুদ্ধে নিহত ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী মাষ্টার দেলু সহযোগী রফিকুল ইসলাম ইমন এ জিডি করেন।

এলাকাবাসী জানায়, ইমন এলাকার চিহৃত মাদক ব্যবসায়ী তার বিরুদ্ধে গত ১৮’সালের অক্টোবর মাসের ১৭’তারিখে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করা হয়। সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ মাদকসহ ইমন ও তার সহযোগী বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন’র ছেলে রাশেদুল ইসলাম ডালিমকে মাদকসহ গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের বিষয়টি গণমাধ্যমে ও অনলাইন পোর্টালে প্রকাশিত হয়।

ইমনের ভবনের সামনে ময়লাযুক্ত পানিতে প্রতিবেশী উকিল কাজী চলাচল করতে না পেরে গৃহবন্দি হয়ে পড়ার ঘটনায়, গত ১৮’এপ্রিল আলোরধারা২৪.কমসহ অন্যান্য গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদ প্রকাশের কারনে মাদক ব্যবসায়ী ইমন তার এক বন্ধুকে নিয়ে আলোরধারা২৪.কমের সম্পাদক আসলাম মিয়া’র বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করায়।

থানায় অভিযোগের নাটের গুরু নামধারী সাংবাদিক মাদক ব্যবসায়ী ইমনকে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে শেল্টার দেওয়াসহ নিজেকে ইমনের বন্ধু পরিচয় দেয়। বন্ধুর সূত্র ধরে কথিত সেই সাংবাদিক ইমনের কাছ থেকে অবৈধ ভাবে আর্থিক লাভবান হচ্ছে। একজন সাংবাদিক হয়ে সে কীভাবে একজন মাদক ব্যবসায়ীকে প্রশ্রয় দেয় এমন প্রশ্ন উঠেছে সাংবাদিক মহলে। মাদক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম ইমনের অত্যাচারে অতিষ্ঠ বার্মাস্ট্যান্ডসহ আশপাশের এলাকাবাসী।

উল্ল্যেখ, শীর্ষ সন্ত্রসী ও মাদক সম্রাট মাষ্টার দেলুর সহযোগী মাদক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম ইমনের সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইল বার্মাশীল পদ্মা তেল ডিপু সংলগ্ন বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মৃত ইসমাইল হোসেনের বাড়ীতে র‍্যাব অভিযান চালালে মাষ্টার দেলু বাহিনীর সাথে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এতে র‍্যাবের ২’সদস্য আহত ও মাষ্টার দেলু নিহত হয়। র‍্যাবের তালিকাভূক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী মাষ্টার দেলু সিদ্ধিরগঞ্জ থানার গোদনাইল বার্মাশীল পদ্মা তেল ডিপু সংলগ্ন মৃত ইসমাইল কমান্ডারের বাড়ীতে দলবল নিয়ে অবস্থান করছে গোপন সূত্রে এ সংবাদ পেয়ে র‍্যাবের একটি দল অভিযান চালায়।

র‍্যাবের এএসপি আলেপ উদ্দিনের নেতৃত্বে পরিচালিত আভিযানিক দলটি প্রথমেই ওই বাড়ীটি ঘেরাউ করে। এসময় তিন তলা বাড়ীর দ্বিতীয় তলার একটি কক্ষে দেলু ও তার সহযোগীরা অবস্থান করছিল। এসময় র‍্যাব সদস্যরা অনেক ডাকা ডাকি করলেও দেলুবাহিনী ঘরের দরজা খোলেনি। এক পর্যায় র‍্যাব সদস্যরা দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করার সাথে সাথে অন্ধকার ঘরে র‍্যাবকে লক্ষ্য করে এলোপাথারি গুলি করে দেলু ও তার বাহিনী। আত্নরক্ষার্থে র‍্যাবও পাল্টা গুলি করে। এসময় গুলি করতে করতে সন্ত্রাসী দেলু রান্না ঘরে ঢুকে পড়ে। কিছুক্ষণ গুলাগুলির পর মাষ্টার দেলু গুলি বিদ্ধ হয়ে নিহত হয়। শীর্ষ সন্ত্রসী ও মাদক সম্রাট মাষ্টার দেলু নিহত হলেও তার সহযোগী ইমন এখনো বহাল তবিয়তে রয়েছে।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

সিদ্ধিরগঞ্জে সংবাদ প্রকাশ করায় সম্পাদকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

আপডেট সময় : ০৮:৩৫:৩১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ এপ্রিল ২০২১

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করায় সম্পাদকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ। থানার বার্মাস্ট্যান্ড এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মৃত. ইসমাঈল হোসের বখাটে ছেলে মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক মামলার আসামী, র‍্যাবের সাথে বন্দুক যুদ্ধে নিহত ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী মাষ্টার দেলু সহযোগী রফিকুল ইসলাম ইমন এ জিডি করেন।

এলাকাবাসী জানায়, ইমন এলাকার চিহৃত মাদক ব্যবসায়ী তার বিরুদ্ধে গত ১৮’সালের অক্টোবর মাসের ১৭’তারিখে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করা হয়। সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ মাদকসহ ইমন ও তার সহযোগী বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন’র ছেলে রাশেদুল ইসলাম ডালিমকে মাদকসহ গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের বিষয়টি গণমাধ্যমে ও অনলাইন পোর্টালে প্রকাশিত হয়।

ইমনের ভবনের সামনে ময়লাযুক্ত পানিতে প্রতিবেশী উকিল কাজী চলাচল করতে না পেরে গৃহবন্দি হয়ে পড়ার ঘটনায়, গত ১৮’এপ্রিল আলোরধারা২৪.কমসহ অন্যান্য গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদ প্রকাশের কারনে মাদক ব্যবসায়ী ইমন তার এক বন্ধুকে নিয়ে আলোরধারা২৪.কমের সম্পাদক আসলাম মিয়া’র বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করায়।

থানায় অভিযোগের নাটের গুরু নামধারী সাংবাদিক মাদক ব্যবসায়ী ইমনকে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে শেল্টার দেওয়াসহ নিজেকে ইমনের বন্ধু পরিচয় দেয়। বন্ধুর সূত্র ধরে কথিত সেই সাংবাদিক ইমনের কাছ থেকে অবৈধ ভাবে আর্থিক লাভবান হচ্ছে। একজন সাংবাদিক হয়ে সে কীভাবে একজন মাদক ব্যবসায়ীকে প্রশ্রয় দেয় এমন প্রশ্ন উঠেছে সাংবাদিক মহলে। মাদক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম ইমনের অত্যাচারে অতিষ্ঠ বার্মাস্ট্যান্ডসহ আশপাশের এলাকাবাসী।

উল্ল্যেখ, শীর্ষ সন্ত্রসী ও মাদক সম্রাট মাষ্টার দেলুর সহযোগী মাদক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম ইমনের সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইল বার্মাশীল পদ্মা তেল ডিপু সংলগ্ন বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মৃত ইসমাইল হোসেনের বাড়ীতে র‍্যাব অভিযান চালালে মাষ্টার দেলু বাহিনীর সাথে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এতে র‍্যাবের ২’সদস্য আহত ও মাষ্টার দেলু নিহত হয়। র‍্যাবের তালিকাভূক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী মাষ্টার দেলু সিদ্ধিরগঞ্জ থানার গোদনাইল বার্মাশীল পদ্মা তেল ডিপু সংলগ্ন মৃত ইসমাইল কমান্ডারের বাড়ীতে দলবল নিয়ে অবস্থান করছে গোপন সূত্রে এ সংবাদ পেয়ে র‍্যাবের একটি দল অভিযান চালায়।

র‍্যাবের এএসপি আলেপ উদ্দিনের নেতৃত্বে পরিচালিত আভিযানিক দলটি প্রথমেই ওই বাড়ীটি ঘেরাউ করে। এসময় তিন তলা বাড়ীর দ্বিতীয় তলার একটি কক্ষে দেলু ও তার সহযোগীরা অবস্থান করছিল। এসময় র‍্যাব সদস্যরা অনেক ডাকা ডাকি করলেও দেলুবাহিনী ঘরের দরজা খোলেনি। এক পর্যায় র‍্যাব সদস্যরা দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করার সাথে সাথে অন্ধকার ঘরে র‍্যাবকে লক্ষ্য করে এলোপাথারি গুলি করে দেলু ও তার বাহিনী। আত্নরক্ষার্থে র‍্যাবও পাল্টা গুলি করে। এসময় গুলি করতে করতে সন্ত্রাসী দেলু রান্না ঘরে ঢুকে পড়ে। কিছুক্ষণ গুলাগুলির পর মাষ্টার দেলু গুলি বিদ্ধ হয়ে নিহত হয়। শীর্ষ সন্ত্রসী ও মাদক সম্রাট মাষ্টার দেলু নিহত হলেও তার সহযোগী ইমন এখনো বহাল তবিয়তে রয়েছে।