নারায়ণগঞ্জ ০২:৪১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সিদ্ধিরগঞ্জে মাদক সম্রাট হত্যা মামলার আসামী ফেন্সি বাবু বেপরোয়া

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:১৭:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ এপ্রিল ২০২১
  • ৫৮ বার পড়া হয়েছে

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জে এবার আলোচনায় উঠে এসেছে ফেন্সি বাবু। পুরো নাম আরাফাত রহমান বাবু। তার বাবার নাম কুট্টি ড্রাইভার। যিনি চিটাগাং রোড-ঢাকা রুটে চলাচলকারী কোমল মিনিবাসের চালক। হত্যা মামলার আসামী এই ফেন্সি বাবু এখন মিজমিজি পুর্বপাড়া এলাকার সাধারণ মানুষের ঘুম হারাম করে তুলেছে।

জানা যায়, আগের মানুষ বলতো ‘ছালনাই কুত্তার ভাঘার বেশি’ মাদক ব্যবসা করে রাতারাতি প্রচুর টাকার মালিক বনে যাওয়ায় কাউকে সে পরোয়াই করে না। মাদক বিক্রির টাকা দিয়ে কতিপয় প্রশাসনের অসাধু কর্মকর্তাদের সাথে সুসম্পর্ক গড়ে তুলেছে। গড়ে তুলেছে বখাটে কিছু যুবক ও কিশোর ছেলেদের নিয়ে কিশোরগ্যাং। মাদক বিক্রির টাকা দিয়ে সে তার গ্রুপ লালণ পালন করে। আর এই গ্রুপের সদস্যদের দিয়ে এলাকায় সব ধরনের অপরাধ পরিচালনা করে। এই ফেন্সি বাবুর একাধিক ভিডিও সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে ভাইরাইল হয়ে উঠেছে। ভিডিওতে দেখা যায়, সে যাকে তাকে হুমকি দিচ্ছে। যা ইচ্ছা তা করার ক্ষমতা নাকি সে রাখে। এছাড়া বিভিন্ন ছবিতে দেখা যাচ্ছে মাদকের আড্ডায় সহযোগিদের নিয়ে মাদক সেবন করছে ফেন্সি বাবু। এতো কিছুর পরও স্থানীয় প্রশাসন রহসজনকভাবে নিস্ক্রীয় ভুমিকা পালন করছে অপরাধী চক্রকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে। ফলে এলাকাবাসী জেলা পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এলাকাবাসী ও পুলিশের তথ্যমতে, সিদ্ধিরগঞ্জ নাসিক ১নং ওয়ার্ড মিজিমিজি পাগলাবাড়ী এলাকার কুট্টি ড্রাইভার (কোমল বাস চালক) এর ছেলে বাবু (আরাফাত রহমান বাবু) ওরফে ফেন্সি বাবু। চিহিৃত মাদক ডিলার, হত্যা মামলার আসামী ও কিশোরগ্যাং লিডার। তার একটি চক্র রয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে আরো জানা যায়, এলাকার কোন মানুষ এই চক্রের বিরুদ্ধে কথা বললেই তাদেরকে নানাভাবে ঘায়েল করার চেষ্টা করে। কোন-না, কোন দূর্বলতার সুযোগ খোজে চরিত্র হনন করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে।সন্ত্রাসী বাবু ২০১৩ সালের ২৭মে সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি সিআই খোলা এলাকার কলেজ ছাত্র কাউছার (১৮)কে দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে নির্মম ভাবে হত্যা করে। মামলা নং-৩০। ২৭-০৫-২০১৩। মামলায় বাবু ৩ নম্বর আসামী। এই মামলায় বাবু গ্রেফতার হয়ে দীর্ঘদিন জেল হাজতে ছিল, পরে জামিনে আসে। এ মামলায় মোট ১১জন আসামী। দীর্ঘদিন কারাভোগের পর জামিনে বেরিয়ে এসে অপরাধের নেটওয়ার্ক তৈরী করে ফেন্সি বাবু।

তদন্ত শেষে পুলিশ মামলায় বাবু ওরফে ফেন্সি বাবুকে প্রধান অভিযুক্ত করে অভিযোগপত্র (চার্জশীট) দাখিল করেন। এলাকাবাসী কিশোরগ্যাং লিডার এই ফেন্সি বাবুকে গ্রেপ্তারের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মো: জাহেদুল আলম পিপিএম ও র‍্যাব-১১ এর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সিদ্ধিরগঞ্জে মাদক সম্রাট হত্যা মামলার আসামী ফেন্সি বাবু বেপরোয়া

আপডেট সময় : ০৮:১৭:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ এপ্রিল ২০২১

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : সিদ্ধিরগঞ্জে এবার আলোচনায় উঠে এসেছে ফেন্সি বাবু। পুরো নাম আরাফাত রহমান বাবু। তার বাবার নাম কুট্টি ড্রাইভার। যিনি চিটাগাং রোড-ঢাকা রুটে চলাচলকারী কোমল মিনিবাসের চালক। হত্যা মামলার আসামী এই ফেন্সি বাবু এখন মিজমিজি পুর্বপাড়া এলাকার সাধারণ মানুষের ঘুম হারাম করে তুলেছে।

জানা যায়, আগের মানুষ বলতো ‘ছালনাই কুত্তার ভাঘার বেশি’ মাদক ব্যবসা করে রাতারাতি প্রচুর টাকার মালিক বনে যাওয়ায় কাউকে সে পরোয়াই করে না। মাদক বিক্রির টাকা দিয়ে কতিপয় প্রশাসনের অসাধু কর্মকর্তাদের সাথে সুসম্পর্ক গড়ে তুলেছে। গড়ে তুলেছে বখাটে কিছু যুবক ও কিশোর ছেলেদের নিয়ে কিশোরগ্যাং। মাদক বিক্রির টাকা দিয়ে সে তার গ্রুপ লালণ পালন করে। আর এই গ্রুপের সদস্যদের দিয়ে এলাকায় সব ধরনের অপরাধ পরিচালনা করে। এই ফেন্সি বাবুর একাধিক ভিডিও সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে ভাইরাইল হয়ে উঠেছে। ভিডিওতে দেখা যায়, সে যাকে তাকে হুমকি দিচ্ছে। যা ইচ্ছা তা করার ক্ষমতা নাকি সে রাখে। এছাড়া বিভিন্ন ছবিতে দেখা যাচ্ছে মাদকের আড্ডায় সহযোগিদের নিয়ে মাদক সেবন করছে ফেন্সি বাবু। এতো কিছুর পরও স্থানীয় প্রশাসন রহসজনকভাবে নিস্ক্রীয় ভুমিকা পালন করছে অপরাধী চক্রকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে। ফলে এলাকাবাসী জেলা পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এলাকাবাসী ও পুলিশের তথ্যমতে, সিদ্ধিরগঞ্জ নাসিক ১নং ওয়ার্ড মিজিমিজি পাগলাবাড়ী এলাকার কুট্টি ড্রাইভার (কোমল বাস চালক) এর ছেলে বাবু (আরাফাত রহমান বাবু) ওরফে ফেন্সি বাবু। চিহিৃত মাদক ডিলার, হত্যা মামলার আসামী ও কিশোরগ্যাং লিডার। তার একটি চক্র রয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে আরো জানা যায়, এলাকার কোন মানুষ এই চক্রের বিরুদ্ধে কথা বললেই তাদেরকে নানাভাবে ঘায়েল করার চেষ্টা করে। কোন-না, কোন দূর্বলতার সুযোগ খোজে চরিত্র হনন করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে।সন্ত্রাসী বাবু ২০১৩ সালের ২৭মে সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি সিআই খোলা এলাকার কলেজ ছাত্র কাউছার (১৮)কে দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে নির্মম ভাবে হত্যা করে। মামলা নং-৩০। ২৭-০৫-২০১৩। মামলায় বাবু ৩ নম্বর আসামী। এই মামলায় বাবু গ্রেফতার হয়ে দীর্ঘদিন জেল হাজতে ছিল, পরে জামিনে আসে। এ মামলায় মোট ১১জন আসামী। দীর্ঘদিন কারাভোগের পর জামিনে বেরিয়ে এসে অপরাধের নেটওয়ার্ক তৈরী করে ফেন্সি বাবু।

তদন্ত শেষে পুলিশ মামলায় বাবু ওরফে ফেন্সি বাবুকে প্রধান অভিযুক্ত করে অভিযোগপত্র (চার্জশীট) দাখিল করেন। এলাকাবাসী কিশোরগ্যাং লিডার এই ফেন্সি বাবুকে গ্রেপ্তারের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মো: জাহেদুল আলম পিপিএম ও র‍্যাব-১১ এর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।