নারায়ণগঞ্জ ১১:৫২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শেরে বাংলা গণমানুষের মুক্তির রাজনীতি করে গেছেন : বাংলাদেশ ন্যাপ

  • প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:৩৩:০৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ এপ্রিল ২০২১
  • ১৪ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধি : শেরে বাংলা ছিলেন আমাদের বাঙালি জাতিসত্তা ও জাতীয়তাবাদের অগ্রনায়ক মন্তব্য করে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গাণি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, তিনি এদেশের কৃষক-শ্রমিক মেহনতি মানুষের মুক্তির লক্ষ্যে রাজনীতি করে গেছেন। যে কারণে তিনি ঋণ সালিশি বোর্ড গঠন করে কৃষক-প্রজার মুক্তি আনয়ন করেন।

সোমবার (২৬ এপ্রিল) শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হকের ৫৯তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বাণীতে তারা এসব কথা বলেন।

তারা বলেন, উপমহাদেশের রাজনীতিতে নতুনত্ব সৃষ্টি করেছেন শেরে বাংলা। তিনি বাঙালিদের জন্য শিক্ষার জাগরণ ঘটিয়েছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্টা করেছেন। এখন সেই বাংলাদেশকে বিশ্বমানের উন্নত দেশ প্রতিষ্ঠা করার মাধ্যমে দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গড়তে হবে।

নেতৃদ্বয় বলেন, তিনি যেটা বিশ্বাস করতেন সেটা কার্যকর করতেন। নৈতিকতা, সততা ও মূল্যবোধকে ধারণের মাধ্যমে শেরেবাংলার আদর্শকে বাস্তবায়ন করতে হবে। এদেশের শিক্ষা বিস্তারে সবচাইতে বেশী অবদান রাখেন শেরে বাংলা একে ফজলুল হক। যে কারণে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাসহ এদেশের অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকা রাখেন। তার আদর্শ বর্তমান প্রজন্মের সামনে আমাদের তুলে ধরা উচিত।

ট্যাগস :

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

শেরে বাংলা গণমানুষের মুক্তির রাজনীতি করে গেছেন : বাংলাদেশ ন্যাপ

আপডেট সময় : ০৮:৩৩:০৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ এপ্রিল ২০২১

বিশেষ প্রতিনিধি : শেরে বাংলা ছিলেন আমাদের বাঙালি জাতিসত্তা ও জাতীয়তাবাদের অগ্রনায়ক মন্তব্য করে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গাণি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, তিনি এদেশের কৃষক-শ্রমিক মেহনতি মানুষের মুক্তির লক্ষ্যে রাজনীতি করে গেছেন। যে কারণে তিনি ঋণ সালিশি বোর্ড গঠন করে কৃষক-প্রজার মুক্তি আনয়ন করেন।

সোমবার (২৬ এপ্রিল) শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হকের ৫৯তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বাণীতে তারা এসব কথা বলেন।

তারা বলেন, উপমহাদেশের রাজনীতিতে নতুনত্ব সৃষ্টি করেছেন শেরে বাংলা। তিনি বাঙালিদের জন্য শিক্ষার জাগরণ ঘটিয়েছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্টা করেছেন। এখন সেই বাংলাদেশকে বিশ্বমানের উন্নত দেশ প্রতিষ্ঠা করার মাধ্যমে দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গড়তে হবে।

নেতৃদ্বয় বলেন, তিনি যেটা বিশ্বাস করতেন সেটা কার্যকর করতেন। নৈতিকতা, সততা ও মূল্যবোধকে ধারণের মাধ্যমে শেরেবাংলার আদর্শকে বাস্তবায়ন করতে হবে। এদেশের শিক্ষা বিস্তারে সবচাইতে বেশী অবদান রাখেন শেরে বাংলা একে ফজলুল হক। যে কারণে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাসহ এদেশের অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকা রাখেন। তার আদর্শ বর্তমান প্রজন্মের সামনে আমাদের তুলে ধরা উচিত।