মাতুয়াইল শিশু-মাতৃ স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট হাসপাতালে বিনা চিকিৎসায় একদিনে ৩’শিশুর মৃত্যু

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসক না থাকায় বিনা চিকিৎসায় একদিনে ৩’শিশুর মৃত্যু। ঘটনাটি ঘটেছে মাতুয়াইলের শিশু-মাতৃ স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট’এ (১’লা মে ২০ইং) তারিখে। শিশু-মাতৃ স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট’এ ভর্তি হওয়া রোগীর পরিবারগণ রয়েছে আতংকে। গত ১০’দিনে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ১০’শিশু বিনা চিকিৎসায় মারা যায়। চিকিৎসকরা নিয়মিত চিকিৎসা না দেওয়ায় এ ঘটনা ঘটে বলে রোগীর আত্মীয়রা জানায়।
ভর্তি হওয়া ১৫’দিনের শিশুর নানা রুস্তম আলী জানায়, খিচুনি ও নিউমোনিয়া রোগের উপসর্গ নিয়ে গত (২৩’এপ্রিল ২০ইং) মাতুয়াইলের শিশু-মাতৃ স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট’এ বহু কষ্টে ভর্তি করি। ১০’দিন গত হলেও কোন চিকিৎসক আমার নাতনিকে চিকিৎসা সেবা দিতে আসেনি। রীতিমত চিকিৎসক না আসায় আমি আমার নাতনিকে নিয়ে শংকিত। ২/১’দিন পরপর ওয়ার্ড বয় এসে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে যায। তাও আবার ক্ষনিকের জন্য। হাসপাতালে চিকিৎসক না থাকলেও রোগীর সাথে দেখা করতে গেলে গুনতে হয় ৩/৪’শ টাকা। সরকার সকল চিকিৎসকদের সর্Ÿোচ্চ সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দিলেও রহস্য জনক কারনে মাতুয়াইলের শিশু-মাতৃ স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট’এর চিকিৎসকরা চিকিৎসা সেবা দেওয়া বন্ধ রেখেছে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কোন চিকিৎসককে পাওয়া যায়নি। চিকিৎসকরা না আসায় ভর্তি হওয়া রোগীরা চরম আতংকের মধ্যে রযেছে। সারা বিশ্বে যখন করোনা আতংকে দিন কাটছে আর চিকিৎসকরা মৃত্যুর ভয়কে উপেক্ষা করে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে সেখানে গর্ভবতি মায়েদের ও শিশুদের চিকিৎসা কেন্দ্র শিশু-মাতৃ স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট’এ চিকিৎসকের অভাবে বিনা চিকিৎসায় মারা যাচ্ছে রোগীরা। ভর্তি হওয়া ১৫’দিনের শিশুর নানা রুস্তম আলী আরো জানায়, গত ১০’দিনে মাতুয়াইলের শিশু-মাতৃ স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট থেকে বিনা চিকিৎসায় মারা যাওয়া ১০’শিশুর লাশ হাসপাতাল থেকে বাহির করা হয়। মাত্র (১’লা মে ২০ইং) তারিখে এ সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসক না থাকায় বিনা চিকিৎসায় ৩’শিশুর মৃত্যু হয়।
এ ব্যাপারে শিশু-মাতৃ স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের প্রশাসনিক কর্মকর্তা নজরুল ইসলামের মোবাইল নাম্বার ০১৭১২০০০০০০ যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তা ব্যাস্ত পাওয়া যায়। ######