ফতুল্লায় সিকদার পাম্পের জমি দখলের অভিযোগ

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার ভূঁইগড় এলাকায় পিসিপি বিল্ডার্স লিমিটেডের চেয়ারম্যান লুতফুর রহমান এর মালিকানাধিন সিকদার ফিলিং ও সর্ভিসেস লিমিটেড এর জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। এক যুবলীগ নেতাকে ম্যানেজ করে একই এলাকার জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী নামে একলোক জোরপূর্বক জায়গা দখল করে হাদিছা কার হাট নামক গাড়ি বেচাকেনার একটি শোরুম বানিয়েছে। দখলকারী মো: জাহাঙ্গীর আলম চৌধূরীর বিরুদ্ধে থানায় জিডি ও জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ করা হলেও জমি দখলমুক্ত হচ্ছেনা বলে জানায় পিসিপি বিল্ডার্স এর চেয়ারম্যান লুতফুর রহমান।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ঋণগ্রস্থ সিকদার ফিলিং ও সার্ভিসেস লিমিটেড প্রতিষ্ঠানটি এনসিসি ব্যাংক রাজধানীর মতিঝিল দিলকুশা শাখা কর্তৃক নিলাম হলে বিগত ২ হাজার ১৫ সালের ১৮ ডিসেম্বর পিসিপি বিল্ডার্স লিমিটেডের চেয়ারম্যান লুতফুর রহমান নিলামের মধ্যমে কিনে নেন। ভূঁইগড় মৌজার সিএস ও এসএ ৪৫০/৪৫১ নং দাগে এক একর ২ শতাংশ জমির উপর নির্মিত সিকদার ফিলিং ও সার্ভিসেস নামক প্রতিষ্ঠানটি কিনার পর, ২ হাজার ১৬ সালের ২৮ মার্চ দখল বুঝে নেয়। পরে কিছুদিন ব্যবসা পরিচালনা করেন পিসিপি বিল্ডার্স লিমিটেড। পরে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসি) বরাবর আবেদন করেও তেলের অনুমোদন না পাওয়ায় পাম্পটি বন্ধ রাখা হয়। দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ থাকার সুযোগে ভূঁইগড় এলাকার মৃত মফিজুর রহমানের ছেলে মো: জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী সিকদার পাম্পের উত্তর দিকের কিছু জায়গা দখল করে পুরাতন গাড়ি বেচাকেনার শোরুমটি নির্মাণ করেন। বিষয়টি অবগত হওয়ার পর জমি দখলমুক্ত করতে পিসিপি বিল্ডার্স এর ম্যানেজার (প্রশাসন) জেকের উল্লাহ ফতুল্লা থানায় একটি জিডি করেন। যার নম্বর ৮৩৪৬। তাতে প্রতিকার না পেয়ে পিসিপি বিল্ডার্স এর চেয়ারম্যান লুতফুর রহমান নিজে বাদী হয়ে চলতি বছরের গত ২২ জুলাই নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ করেন।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জমির ২৭ শতাংশ সিকদার পম্পের নিজস্ব আর ৭৫ শতাংশ সড়ক ও জনপথ বিভাগ থেকে লিজ নেওয়া। লিজ নবায়নের জন্য লুতপুর রহমান সওজ কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছেন। নবায়ন কার্যক্রম প্রক্রিয়াধিন রয়েছে।
লুতফুর রহামন জানান, অভিযোগ করার পর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো: মোস্তাফিজুর রহমান দুইপক্ষকে তলব করে শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রেখে যার যার অবস্থানে থাকার নির্দেশ দেন।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত মো: জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কথা বলতে অনিহা প্রকাশ করেন।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, জমি সংক্রান্ত বিরোধ নিস্পত্তি আদালতের বিষয়। তাই দুইপক্ষকে ডেকে আদালতের মাধ্যমে নিস্পত্তি করার পরামর্শ দিয়ে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার নির্দেশ দেই।