সোমবার সরস্বতী পুজো, নগরজুড়ে প্রস্ততি

এক হাতে বীণা আর শ্বেতবস্ত্রে ইতিমধ্যে দেবী সরস্বতী সেজে উঠেছে তার আপন রূপে। দেবী স্বরস্বতীকে বরণ করে নিতে নগরজুড়ে পূজা মন্ডপগুলোতে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি।

রাত পোহালেই মন্ডপগুলোতে শুরু হবে দেবীর আরাধনা। সনাতন ধর্মাবলম্বীরা ভোরে ¯œান শেষে পরিস্কার বস্ত্র পরিধান করে দেবীর আরাধনায় বসবে। মন্ডপে মন্ডপে ধ্বনিত হবে- নমো সরস্বতী মহাভাগে বিদ্যে কমললোচনে। বিশ্বরূপে বিশাললক্ষ্মী বিদ্যাংদেহি নমোহস্তুতে।। জয় জয় দেবী চরাচর সারে, কুচযুগশোভিত মুক্তাহারে। বীনারঞ্জিত পুস্তক হস্তে, ভগবতী ভারতী দেবী নমহস্তুতে।

সরস্বতী পূজা সনাতন ধর্মাবলম্বীদের একটি অন্যতম প্রচলিত পূজা। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মতে,সরস্বতী দেবী হল শিক্ষা, সংগীত ও শিল্পকলার দেবী। বাংলা মাঘ মাসের ৫মী তিথিতে এই পূজা অনুষ্ঠিত হয়। বিদ্যা-বুদ্ধিতে সফলতার আশায় সনাতন ধর্মাবলম্বীরা দেবীর পূজা করে থাকে।

পূরাণ অনুযায়ী দেবী সরস্বতী ব্রহ্মার মুখ থেকে উত্থান। দেবীর সকল সৌন্দর্য্য ও দীপ্তির উৎস মূলত ব্রহ্মা। পঞ্চমস্তকধারী দেবী ব্রহ্মা এক স্বকীয় নিদর্শন।

এছাড়া পূজার জন্য দেবী সরস্বতীর মূর্তি শ্বেত বস্ত্র পরিধান যা পবিত্রতার নিদর্শন। সরস্বতী পূজার একটি বিশেষ অর্ঘ্য হল পলাশ ফুল। দেবীর অঞ্জলীর জন্য এটি অত্যাবশ্যকীয় উপাদান।